ষড়যন্ত্রকারীরা আগামী নির্বাচন বানচালের জন্য ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে : খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যমন্ত্রী বলেছেন, আগামী নির্বাচন সুষ্ঠ ভাবে হোক একটি মহল তা চায় না। আগামী নির্বাচন বানচালের জন্য কিছু ষড়যন্ত্রকারী ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে, সাধারন জনগনকে ষড়যন্ত্র প্রতিহত করার জন্য সার্বজনীন ভাবে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আগামী একাদ্বশ নির্বাচন এখন থেকে সবাই নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহন করি ।

যার যার অবস্থান থেকে ষড়যন্ত্রকারীদের প্রতিহত করার চেষ্টা করবেন। এ সব ষড়যন্ত্রকারীরা আমাদের সন্তানদের মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইউতহাস না শেখানোর জন্য নির্বাচন বানচাল করতে চায়। তারা নির্বাচনকে ভয় পায়। আমরা আশা করি একাদ্বশ নির্বাচন সুষ্ঠ নির্বাচন হবে। নির্বাচন কমিশন দেশের জনগনকে একটি অবাধ সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিবে। একটি সুষ্ঠ নির্বাচনের বিপক্ষে যত অন্তরায় সে অন্তরায়গুলো দুর করার জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ¦ব্বান করছি।

আমরা কমিউনিটি ক্লিনিক চালু করেছিলাম, বি.এন.পি রাষ্ট ক্ষমতায় আসার পরে সেগুলো বন্ধ করে দিয়েছিলো। সেগুলো আবার চালু করা হয়েছে। আমরা উন্নয়নশীল দেশ থেকে সামনে এগিয়ে যাচ্ছি। জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে আমরা উন্নত দেশ হবার স্বপ্ন দেখছি। আসুন আমরা দেশ প্রেমে উদ্ভুদ্ব হয়ে আগামী নির্বাচনে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে নৌকায় ভোট দেই।

এই সরকার উন্নয়নের ধারবাহিকতা ধরে রেখেছে। আপনারা আপনাদের বিবেক বিবেচনা করুন ১০ বছর আগে দেশ কি ছিলো এখন কতো উন্নত হয়েছে কোথায় গিয়েছি আমরা। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে আবারো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমতায় আনতে হবে।আজ মঙ্গলবার সকালে কেরানীগঞ্জের কালিন্দী ইউনিয়নের নেকরোজবাগস্থ রেডরোজ পার্টি সেন্টারে পুষ্টি চাল বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম এ সব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন,বর্তমান দেশে খাদ্যে  স্বয়ং সম্পূর্ন এবং সাধারন জনগনের ক্রয়-ক্ষমতাও বৃদ্ধি পেয়েছে। সুষম খাদ্য গ্রহনের অসেচতনার জন্য জনগনের মাছে পুষ্ট সমস্য বিরাজমান।পুষ্টি সমস্য দর করার জন্য বর্তমান সরকার নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। এর মধ্যে দরিদ্র জনগনের জন্য সরকার কর্তৃক গৃহীত সামাজিকক নিরাপত্তা বলয় কর্মসুচির অন্তর্ভূক্ত খাদ্যবান্ধব কর্মসুচি উল্লেখ যোগ্য

। কেরানীগঞ্জে খাদ্যবান্ধব কর্মসচির আওতায় ১৮৯০১জন সাধারন জনগনকে পুষ্টিচাল বিতরন করা হয়। এ কর্মসুচির আওতায় সাধারন জনগন ১০ টাকায় ৩০ কেজি পুষ্টিচাল উত্তোলন করতে পারবে। ঢাকা জেলা প্রশাসক আবু ছালেহ মোহাম্মদ ফেরদৌস খান এর সভাাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসুচির এর বাংলাদেশস্থ প্রতিনিধি রিচার্ড রেগান,

খাদ্যমন্ত্রী বলেন,বাংলাদেশে পুষ্টি সমৃদ্ধ খাদ্য প্রাপ্তি এখন একটি অন্যতম সমস্যা। বাংলাদেশে দারিদ্রতার হার কমলেও মানুরে দেহে ভিটামিন এ,বি-১,বি-১২, আয়রন,জিংক,আয়োডিন, এবং ফলিক এসিডের ব্যাপক ঘাটতি রয়েছে। এ সবব ভিটামিনের অভাাবে নারী ও কিশোরীদের দেহে এবং একজন মায়ের সুস্থ ও তার ভবিষ্যত সন্তানের উপর প্রভাব পড়ে । অনুপুষ্টি ঘাটতি পুরনে পুষ্টিচালের গুরত্বপূর্ন ভুমিকা রয়েছে। এ সকল প্রভাবের কথা চিন্তা করে বাংলাদেশ সরকার সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টনীর আওতায় খাদ্যবান্ধব কর্মসুচির মাধ্যমে পুষ্টিচাল বিতরন কার্যক্রম গ্রহন করছে।

এ জন্য বিশ্ব খাদ্য কর্মসুচির পক্ষ থেকে পুষ্টি সমস্য সমাধানে বাংলাদেশকে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদানেরও অশ্বাস দেন তিনি। সভায় অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন খাদ্য অধিদপ্তরের মহা পরিচালক মোঃ আরিফুর রহমান অপু,খাদ্য মন্ত্রনালয়ের সচিব শাহাবুদ্দিন আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহে এলিদ মইনুল আমিন প্রমুখ।

এ.এইচ.এম সাগর.

নিউজ ঢাকা ২৪।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে [sharethis-inline-buttons]

Check Also

কেরানীগঞ্জে সুজন বাহিনীর ভয়ে চার বছর এলাকা ছেড়ে থাকছেন বলে অভিযোগ বীর মুক্তিযোদ্ধার

কেরানীগঞ্জের কোন্ডা ইউনিয়নে কান্দাপাড়া গ্রামে সুজন বাহিনীর ভয়ে প্রায় চার বছর নিজের বাপ দাদার বসতবাড়ি …

error: Content is protected !!