Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / মাইগ্রেশনের নামে জবি শিক্ষার্থীর কাছে ১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি

মাইগ্রেশনের নামে জবি শিক্ষার্থীর কাছে ১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে মাইগ্রেশনের নাম করে ১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় জড়িতদের নামে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেছে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী।

অভিযুক্তরা হলেন তৎকালীন জগন্নাথ কলেজের সাবেক জিএস জাহাঙ্গীর সিকদার ঝোটনের ছেলে সায়েম সিকদার ও তার অনুসারী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বহিস্কৃত ছাত্র সামিউল তাসবাহ শিশির, কবি নজরুল কলেজের প্রথম বর্ষের ‍আজিজুল খান রাফি, শোভন, হিমেল এবং সৈকত। এদের মধ্যে শুধু আজিজুল খান রাফিকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

ভুক্তোভোগী শিক্ষার্থী সোমবার (১৩ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বরাবর লিখিত অভিযোগ দেন। অভিযোগপত্রে তাকে মাইগ্রেশনের নাম বলে ও ভয় ভীতি প্রদর্শন করে এবং জোরপূর্বক উঠিয়ে নেয়ার মত ঘটনা ঘটিয়েছে বলে উল্লেখ্য করেন ।

অভিযোগপত্র ও ভুক্তভোগীর বক্তব্য থেকে জানা যায় , জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা দেওয়ার পরে ভুক্তভোগীর পজিশন ছিল ২০৩৬ । প্রথমে বিষয় না পেলেও পরবর্তীতে ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে সুযোগ পায় সে । পরে আজিজুল খান রাফি তাকে মাইগ্রেশন করিয়ে আইন বিভাগে ভর্তি করিয়ে দেয়ার প্রস্তাব দেয়। তখন ভুক্তভোগী পরিবারের সাথে কথা বলে জানায় । পরবর্তীতে অভিযুক্তরা তার কাছ থেকে ভর্তির রোল নাম্বার নেয় পজিশন দেখার জন্য। তবে পরবর্তীতে মাইগ্রেশানে প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ অটোমেটিক হয় জেনে তাদের প্রস্তাব প্রত্যাখান করে সে ।প্রত্যাখান করে দেয়ার পর তারা ৮০ হাজার টাকা খরচ করেছে বলে দাবি করে । তারা মাইগ্রেশনের নামে টাকা চাইলেও ভুক্তোভোগীর মাইগ্রেশন হয়নি । সেই টাকা দেয়ার জন্য বিভিন্নভাবে হয়রানি ও হুমকি দিতে থাকে অভিযুক্তরা ।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আরও জানান, অভিযুক্তরা ৮ ও ৯ তারিখ দুই বার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী প্রজন্মলীগ নেতা সায়েম সিকদারের অফিসে তুলে নিয়ে গিয়ে টাকা চাপ প্রয়োগ করে। সায়েম সিকদার জগন্নাথ কলেজের (বর্তমানে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়) সাবেক জিএস জাহাঙ্গীর সিকদার ঝোটনের ছেলে।

এ প্রসঙ্গে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টর মোস্তফা কামাল বলেন, কোতোয়ালি থানায় এঘটনায় শিক্ষার্থী বাদী হয়ে মামলা করেছেন, ওটা পুলিশ দেখবে। আমাদের কাছে আবেদন করেছে আমরা তদন্ত করে দেখবো। বিশ্ববিদ্যালয়ের যারা এবিষয়ের সাথে জড়িত আছে তাদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ হতে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাহিরের যারা জড়িত আছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা করা হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

About জবি প্রতিনিধি

Check Also

কেরানীগঞ্জে র‍্যাবের হাতে মুক্তিপণ চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থানাধীন কদমতলী ও মুসলিমনগর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করিয়া মুক্তিপান ...

কেরানীগঞ্জে পুনাক এর উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ

ঢাকা জেলা পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) এর উদ্যোগে কেরানীগঞ্জ উপজেলার আগানগর ইউনিয়নে গরীব ও ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *