Breaking News
Home / কেরানীগঞ্জ / কেরানীগঞ্জে ব্যথামুক্ত স্বাভাবিক প্রসব বিষয়ক অবহিতকরন সভা অনুিষ্ঠত

কেরানীগঞ্জে ব্যথামুক্ত স্বাভাবিক প্রসব বিষয়ক অবহিতকরন সভা অনুিষ্ঠত

অপ্রয়োজনীয় সিজারিয়ান ডেলিভারিকে “না”বলুন এই  স্লোগানকে সামনে রেখে সাজেদা ফাউন্ডেশন পরিচালিত কেরানীগঞ্জে অবস্থিত সাজেদা হাসপাতালে গর্ভবতী মায়েদের অংশ গ্রহনে ব্যথামুক্ত স্বাভাবিক প্রসব বিষয়ক অবহিতকরন সভা অনুিষ্ঠত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে জনজিরা ইউনিয়নের বন্দছাটগাওঁ এলাকার সজেদা হাসপাতাল কনফারেন্স রুমে এ সভার আয়োজন করা হয়।
সাজেদা হাসপাতালের শিশু বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডাঃ শেখ জুলফিকার আহমেদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মীর মোবারক হোসাইন ।
এসময় গর্ভবতী মায়েদের ব্যথা মুক্ত স্বাভাবিক প্রসাব করার উপকারীতা ও অপকারিতা সম্পর্কে বিভিন্ন কথা তুলে ধরেন সাজেদা হাসপাতালের প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ কনসালটেন্ট ডাঃ সারিয়া নাফিয়া। তিনি বলেন ব্যথা মুক্ত স্বাভাবিক প্রসাব সুবিধা হচ্ছে ব্যথা পাওয়া যায় না ,পজিশন ঠিক না থাকলেও এটাকে করা যায়,উচ্চ রক্তচাপের বিষয় পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যবস্থা থাকে,আরাম করে ক্ষত কমায় ,যদি প্রসবের পর সেলাইয়ের দরকার হয় তাহলে খুব সহজে করা যায়,প্রসব পরবর্তী স্ট্রেস কমে,এখানে কোন ধরনের অসুবিধা নাই বললেই চলে । আর ব্যথামুক্ত স্বাভাবিক প্রসবের একদিন পরই ঐ মা স্বাভাবিক ভাবে হাটা চলা করতে পারবে ।
সাজেদা হাপতালের এ্যানেসথেসিওলজি কণসালটেন্ট ডাঃ মোঃ রায়হান আমিন তার আলোচনায় বলেন, ব্যাথামুক্ত স্বাভাবিক প্রসবে সময় সম্পূর্ন গর্ভবতি মাকে ব্যথা নিয়ন্ত্রনের জন্য একজন ডা.সারাক্ষণ কাজ করেন। এত করে গর্ভবতী মা কোন ব্যথাই অনুভব করবে না। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন প্যাথলজি ও প্রধান ডায়গনষ্টিক বিভাগ এর সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. আবু উবায়দে মুহাম্মদ মহসিন, গাইনী বিশেষজ্ঞ ডা.কাবেরি সালাম, ডা. সংজুক্তা দাস পূজা, সিনিয়র ম্যানেজার শহজালাল ফরাজী, সিনিয়র জি এম ইমানুয়েল বাপ্পি মন্ডল প্রমুখ ।

নিউজ ঢাকাhttps://www.facebook.com/newsdhaka24/

আরো পড়ুন,খোলামোড়া এলাকায় চলছে খোলা বেবী ।। কেরানীগঞ্জে ভ্রমন পিপাসুদের প্রিয় যান খোলা বেবীhttps://newsdhaka24.com/%e0%a6%96%e0%a7%8b%e0%a6%b2%e0%a6%be-%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%ac%e0%a7%80/

তিনচাক্কার বেবীটেক্সি, একটা সময় ঢাকাসহ সারা বাংলাদেশের রাস্তা দাপিয়ে বেড়িয়েছে যানবাহনটি। ব্যাক্তিগত ভ্রমনের জন্য অথবা পরিবার নিয়ে এক স্থান থেকে আরেক স্থানে যাতায়াতের জন্য এই বেবীটেক্সিই ছিলো সবার ভরসা। কালের বিবর্তনে আধুনিকতার ছোয়ায় ২০০১ সালে ঢাকাসহ সারাদেশে নিষিদ্ধ করা হয় এই বাহনটি। খোলা বেবী

এরপরে পর্যায়ক্রমে ২০০১ ও ২০০২ সালে বেবীটেক্সির বিকল্প হিসাবে ভারত ও চীন থেকে আনাহয় সিএনজি চালিত অটোরিক্সা। অকটেন চালিত বেবীটেক্সি থেকে প্রচুর পরিমান ধোয়া নির্গত হতো, তাই পরিবেশ দূষন কমাতে বন্ধ করে দেয়া হয় এই বেবীটেক্সি গুলোকে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

About News Dhaka Desk

Check Also

কেরানীগঞ্জে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের ; তিন দিনেও হদিস নেই মালিকের

ঢাকার দক্ষিন কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া হিজলতলা অবস্থিত প্রাইম পেট এন্ড প্লাস্টিক ইন্ড্রাস্ট্রিস লি: অগ্নিকান্ডের ঘটনায় দক্ষিন ...

কেরানীগঞ্জে বিভিন্ন সংস্থার অগ্নিকান্ডের স্থানে পরিদর্শন

ঢাকার দক্ষিন কেরানীগঞ্জের শুভাঢ্যা ইউনিয়নের চুনকুটিয়া হিজলতলা এলাকায় অবস্থিত প্রাইম পেট এন্ড প্লাস্টিক ইন্ড্রাস্ট্রিস লিঃ। ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *