দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা

সোস্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার আরেকটি সফলতা !

ঢাকার কেরানীগঞ্জে হাসনাবাদ এলাকায় ডেমরা থেকে অপহৃত আরাফাত (৬) নামক একটি শিশুকে উদ্ধার করেছে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ।
বৃহস্পতিবার (০৩/০১/১৯) সকালে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মো: শাহজামান এ তথ্য জানান।
বুধবার রাত আনুমানিক সাড়ে আটটার সময় শিশুটিকে প্রথম বুড়িগঙ্গা চীন মেত্রী সেতুর নিচে হাসনাবাদ এলাকার পেয়ার হাজীর বালুর গদির কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার এ এস আই ইমরান উকিল জানান, বুধবার রাত ৮ ঘটিকার সময় আমি আব্দুল্লাপুর রাজেন্দ্রপুর রোডে ডিউটিরত ছিলাম। এসময় হাসনাবাদ এলাকার জৈনক আলামীন নামক এক ব্যাক্তি আমাকে কল দেয় যে, তাদের বালুর গদির নিকট একটি বাচ্চা পাওয়া গেছে। খবরটি পেয়ে আমি অফিসার ইনচার্জ শাহজামান স্যারের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি তাৎক্ষিন আমাকে ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশ দেন।

ঘটনাস্থল হাসনাবাদ পেয়ার হাজীর বালুর গদির নিকট গেলে আমি শিশুটিকে বালুর গদির পাশে পরে থাকতে দেখি। আলামীন ও আশে পাশের লোকজনের সহযোগিতায় আমি শিশুটিকে উদ্ধার করি। পরে প্রাথমিক চিকিৎসা ও খাবার খাইয়ে আতঙ্কিত শিশুটিকে থানায় নিয়ে আসি। থানায় আসার পরে ওসি স্যার শিশুটিকে কাপড় চোপড় কিনে দেয় । শিশুটি ঠিক মতো কথা বলতে পারছিলো না। বিস্তারিত জানার চেষ্টা করলে শিশুটি তার নাম আলামীন বলে, বাবার নাম হাবিবুর রহমান এবং পাইটি গ্রামে থাকে বলে জানায় এর বেশি কিছু সে বলতে পারে না। কিভাবে এখানে এলে জানতে চাইলে শিশুটি বলে, চিপস দেয়ার কথা বলে তাকে মটর সাইকেলে করে ব্রীজের উপরে আনে এবং ব্রীজ থেকে তাকে ফেলে দেয়।

এ.এস.আই ইমরান উকিল আরো বলেন, বালুর ওপরে পরার কারনে শিশুটি প্রানে বেচে যায়। এর পরে আমরা আমাদের থানার ফেসবুক পেজে শিশুটির পাওয়ার বিষয়টি আপলোড করি। এবং আশে পাশের থানা গুলোতে ইনফরমেশন দেই। ফেসবুকে শিশু আরাফাতের উদ্ধারের ছবি দেখে রাত ১১ ঘটিকার সময় শিশুটির অভিভাবকরা থানায় আসে। এবং ওকে নিয়ে যায়।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ জামান জানান, বুধবার রাত ৮.৩০ এর দিকে আরাফাত (৬) নামক এক শিশুকে হাসনাবাদ এলাকা থেকে উদ্ধার করে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ। পরে সোসাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হলে শিশুটির বাবা মো: হাবিবুর রহমান ও চাচা মো: শাহলম রাত সাড়ে ১১ টার দিকে থানায় এসে শিশু আরাফাতকে নিয়ে যায়। তারা রাজধানীর ডেমরা থানার পাইটি এলাকার বাসিন্দা। শিশুটির হারিয়ে যাওয়ার বিষয়ে তার পরিবার ডেমরা থানায় গতকাল জিডি করেছিল।

এ ব্যাপারে উদ্ধারকৃত শিশু আরাফাতের বাবা হাবিবুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

উল্লেখ্য এর আগে গত ২০ শে নভেম্বর ২০১৮  বুড়িগঙ্গা নদী থেকে অজ্ঞাত ৫০ বছরের এক পুরুষের লাশ উদ্ধার করে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ। পরে লাশটি চিহ্নিত করার জন্য দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশের ফেসবুক আইডিতে প্রচার করা হয়। লাশটি নিহতের আত্মীয় স্বজন ফেসবুকে দেখতে পায় এবং লাশটি যশোর বিএনপি নেতা আবু বক্কর আবুর বলে চিহ্নিত করে।

নিউজ ঢাকা ২৪।

আরো পড়ুন:  প্রধানমন্ত্রীকে যা বললেন হিরো আলম।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

নজরুলের জীবনের মতো নজরুলিয়ানদেরও সঠিক মূল্যায়ন হয়ত হবে না

  নিজ ঘরেই পরবাসি’ এই কথাটার বাস্তব উদাহরণ হতে পারে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!