জেএসসি

নাটোরের লালপুরে প্রাথমিক ও জেএসসি তে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৩৪ জন

সজিবুল ইসলাম হৃদয়, লালপুর (নাটোর)ঃ নাটোরের লালপুর উপজেলায় এ বছর প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৪৭ জন আর জেএসসি তে পেয়েছে ৮৭ জন ।

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে লালপুর উপজেলায় ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা এগিয়ে গেছে। ৫২৭ জন জিপিএ ৫ প্রাপ্তদের মধ্যে ২১২ জন ছেলে ও ৩১৫ জন মেয়ে।

এছাড়াও এবতেদায়ী শাখায় বালিতিতা ইসলামপুর ফাজিল মাদ্রাসা ও সালামপুর দাখিল মাদ্রাসা দুইজন করে, আহমদপুর দাখিল মাদ্রাসা হতে একজন জিপিএ ৫ পেয়েছে। তবে এউপজেলায় জেডিসি হতে একজনও জিপিএ ৫ পায়নি।

আর জেএসসিতে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ৮৭ জনের মধ্যে লালপুর শ্রীসুন্দরী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০ জন, নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলস্ হাই স্কুলের ১১ জন, লালপুর কেএন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ জন, কলসনগর উচ্চ বিদ্যালয়, বিলমাড়ীয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও বিলমাড়ীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পাঁচ জন করে, করিমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের চার, চকনাজিরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের তিন, গোপালপুর উচ্চ বিদ্যালয়, রাধাকান্তপুর উচ্চ বিদ্যালয়, আড়বাব উচ্চ বিদ্যালয়, রাকসা উচ্চ বিদ্যালয় ও বোয়ালিয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই জন করে, গৌরীপুর উচ্চ বিদ্যালয়, কচুয়া উচ্চ বিদ্যালয়, সাদীপুর উচ্চ বিদ্যালয়, লক্ষণবাড়ীয়া উচ্চ বিদ্যালয়, নওদাপাড়া জুুনিয়র উচ্চ বিদ্যালয়, মোশাররফ হোসেন উচ্চ বিদ্যালয় ও রামপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের একজন জিপিএ-৫ পেয়েছে । এখানে ছয়টি প্রতিষ্ঠানে শতভাগ শিক্ষার্থী পাশ করেছে।

আরো পড়ুন: শিশুর পেটে শিশু।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রহিমানপুর ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া গ্রামের বাবুল রায়ের ১২ বছরের মেয়ে বিথিকা রায়। স্থানীয় মলানপুকুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী সে।

গত দশদিন আগে হঠাৎ করেই বিথিকার শারীরিক পরিবর্তন ঘটতে শুরু করে। তার পেট হঠাৎ করেই ফুলতে থাকে। এতে ঘাবড়ে যায় পরিবারের লোকজন। সবার ধারণা হয় সে হয়তো কারও দ্বারা ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে।

ভয় থেকেই ছুটে যায় ডাক্তারের কাছে। তবে স্থানীয় ডাক্তারের কাছে না গিয়ে যায় রংপুরের এক ডাক্তারের কাছে। চিকিৎসক প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে জানান বিথিকার পেটে বড় আকারের টিউমার রয়েছে। যা জরুরি ভিত্তিতে অপারেশন করা প্রয়োজন।

এদিকে পেশায় দিনমজুর বাবুল রায় রংপুরে অপারেশন করার সামর্থ্য না থাকায় মেয়েকে নিয়ে ঠাকুরগাঁও হাসান এক্স-রে ক্লিনিকে ভর্তি করে ডা. মো. নুরুজ্জামান জুয়েলের শরণাপন্ন হন। ডা. জুয়েল ঝুঁকিপূর্ণ অপারেশন হওয়ায় প্রথমে রাজী হননি। পরে বাবুলের আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে অপারেশনের সিদ্ধান্ত নেন।

 

 

 

নিউজ ঢাকা ২৪।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

করোনার টিকা: এনআইডিহীন জবি শিক্ষার্থীদের রেজিষ্ট্রেশন জন্মনিবন্ধনের মাধ্যমে

জবি প্রতিনিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) যেসব শিক্ষার্থীদের জাতীয় পরিচয়পত্র (NID) নেই তাদেরকে জন্মনিবন্ধনের তথ্যাদি নিজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!