ওবায়দুল কাদের

এ মাসের শেষের দিকে গঠিত হতে পারে নির্বাচনকালীন সরকার : ওবায়দুল কাদের

চলতি মাস,মানে অক্টোবরের শেষের দিকে গঠিত হতে পারে নির্বাচনকালীন সরকার। এমনটাই জানিয়েছেন সেতু মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

আজ শুক্রবার রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউতে লায়ন্স ক্লাবস এন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে আয়োজিত একটি র‍্যালীর  উদ্ভোদন শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের আরো বলেন নির্বাচনকালীন সরকারে সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী দলগুলোর বাইরে কেউ থাকতে পারবে না। বর্তমান সংসদ সদস্যদের নিয়ে নির্বাচনকালীন সরকরা গঠিত হবে। বর্তমানে সংসদে যারা প্রতিনিধিত্ব করছে, তারাই থাকবেন নির্বাচনকালীন সরকারে।

তফসিল ঘোষনার আগেই আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারনা এবং জনসংযোগের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, বিএনপি তো নিজেদের ঘর সামলানো নিয়েই্ ব্যস্ত, আমরা তো তাদের বারন করি নি। তাদের অন্তরদ্বন্দের কারনে তারা নির্বাচনী প্রচারনা করতে পারছে না। এটা তাদে সমস্যা। সরকারের পক্ষ থেকে তাদের নির্বাচনী প্রচারনায় কোন বাধা নেই।

সাংবাদিকদের আরেকটি প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন,কমনওয়েলথ বিএনপির নির্বাচনে আসা নিয়ে কি বললো তা নিয়ে আমাদের মাথা ব্যাথা নেই।

নিউজ ঢাকা ২৪।

 

 

আরো পড়ুন: খালেদা তারেককে ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হবে না: বিপু

 

খালেদা তারেকদের ভোট দিলে দেশে কোন উন্নয়ন হবে না। তারা যদি ক্ষমতায় আসে তা হলে দেশের যত উন্নয়ন কার্য চলছে তা সব বন্ধ করে দিবে। থমকে যাবে দেশ, তাই আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় আবার ভোট দিতে হবে। আজ কেরানীগঞ্জ দোকান মালিক সমবায় সমিতির উদ্দ্যোগে আয়োজিত মত বিনিময় সভায় এমনটাই বলেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

মত বিনিময় সভায় নসরুল হামিদ বিপু ব্যবসায়ীদের সাথে উন্মুক্ত আলোচনা করেন এবং ব্যবসায়ীদের নানাবিধ সমস্যার কথা শুনেন। এ সময় ব্যবসায়ীরা প্রতিমন্ত্রীর কাছে তাদের নানাবিধ দাবী দাওয়া পেশ করেন। ব্যবসায়ীরা মন্ত্রীকে বলেন সদরঘাটের ইজারার জন্য কাষ্টমাররা এখন কেরানীগঞ্জে আসতে চায় না , ঘাটের যারা খাজনা উঠায় তারা ব্যবসায়ীদের সাথে অনেক বাজে ব্যবহার করে এমনকি তাদের গায়ে ও হাত তোলে। তাই মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর কাছে তারা খাজনা ফ্রি করে দেয়ার দাবী জানায়। এছাড়া ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে ময়লা ফালানোর ব্যবস্থা , বিদ্যুৎ এর ইউনিট দর কমানোন জন্য দাবী তোলা হয়।

জবাবে নসরুল হামিদ বিপু বলেন, ব্যবসায়ীদের সকল দাবী দাওয়া আমি পূরন করে দিবো। কিন্তু ব্যবসায়ীদের  আমাকে ওয়াদা করতে হবে যে তারা শুভাঢ্যা খাল পরিষ্কার রাখবে, এবং শুভাঢ্যা খাল যে কোন  বিনিময়ে রক্ষা করতে এখানকার সকল ব্যবসায়ীরা আমাকে সর্বোচ্চ সাহায্য করবে।

 

শুভাঢ্যা খাল রক্ষা করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে তিনি ব্যবসায়ী ও গার্মেন্টস মালিক সমিতিকে ১ সপ্তাহের সময় দেন।

এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, গেল দশ বছরে দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। এ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সকলকে আগামী নির্বাচনে ভোট দিতে হবে। বিএনপি সরকার ক্ষমতায় আসলে সরকারের গৃহীত সকল উন্নয়ন পদক্ষেপ বন্ধ করে দিবে। থমকে যাবে তখন দেশের উন্নয়ন। তাই আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার সরকার কে ভোট দিতে হবে।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

নজরুলের জীবনের মতো নজরুলিয়ানদেরও সঠিক মূল্যায়ন হয়ত হবে না

  নিজ ঘরেই পরবাসি’ এই কথাটার বাস্তব উদাহরণ হতে পারে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!