এক্সট্রা কারিকুলামকেই প্রধান পাঠ্যসূচি বললেনঃ সংস্কৃতিমন্ত্রী

বিশ্ববিদ্যালয়ে আমরা পড়াশুনার পাশাপাশি নানা রকম সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে যুক্ত থাকি। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় আমরা এসব কর্মকান্ডকে এক্সট্রা কারিকুলাম বলে থাকি। আমি এই এক্সট্রা কারিকুলামকেই প্রধান পাঠ্যসূচি বলবো : সংস্কৃতিমন্ত্রী

আজ ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ-এর সিদ্ধেশ্বরী ক্যাম্পাসে স্টামফোর্ডের ১৫টি ক্লাব নিয়ে স্টামফোর্ড ক্লাব ফেয়ার-২০১৮ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির এই আয়োজন দেখে। এ ধরনের আয়োজন শিক্ষার্থীদের পথচলার পাথেয় হবে।

স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ-এর বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারম্যান ফাতিনাজ ফিরোজ-এর সভাপতিত্বে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

তিনি বলেন, পাঠ্যপুস্তকের চেয়ে পাঠ্যারিক্ত বিষয় বেশি চর্চা করা দরকার। এটি শিক্ষার্থীদের দেহ ও মনের বিকাশের জন্য অত্যন্ত জরুরী। তিনি বলেন, শুধুমাত্র পাঠ্যপুস্তক দিয়ে দক্ষ নাগরিক নাগরিক হওয়া যায় না। দক্ষ নাগরিক হওয়ার জন্য অবশ্যই পাঠ্যপুস্তকের বাইরের জ্ঞান অর্জন করতে হবে।

এছাড়া উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টির সদস্য এবং স্টিয়ারিং কমিটি স্টামফোর্ড ফোরামের কনভেনর ড. ফারাহনাজ ফিরোজ, স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ-এর উপাচার্য অধ্যাপক মুহাম্মদ আলী নকী বলেন, অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে যারা মনে করে ক্লাস নিয়ে আর ডিগ্রি দিয়ে দিলে তার দায়িত্ব শেষ। আজ স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি এই আয়োজনের মাধ্যমে প্রমাণ করলো শুধু পাঠ্যপুস্তককের মাধ্যমে না বরং এর বাইরে নানা রকম কাজ দিয়ে শিক্ষার্থীদের সুদক্ষ করা যায়।

দিনব্যাপী এ আয়োজনে বিভিন্ন পর্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আব্দুর-নূর-তুষার, সিইও, নাগরিক টিভি; আয়মান সাদিক, প্রতিষ্ঠাতা, ১০ মিনিট স্কুল; ডন সামদানি, মটিভেশনাল স্পিকার; ইরেশ জাকের, অভিনেতা; যুবায়ের হোসাইন, প্রতিষ্ঠাতা ভ্যাট চেকার; নাসিমা আক্তার নিশা, প্রতিষ্ঠাতা, উই; ওসামা বিন নূর, প্রতিষ্ঠাতা ইউথ অপটিউনটি; সাদিক আল সরকার, সভাপতি, লিডসাস গ্লোবাল অ্যাক্শন; তানভির তারেক, সাংবাদিক-লেখক-উপস্থাপক; যাইবা তাহিয়া, প্রতিষ্ঠাতা এফইএম।

নিউজ ঢাকা।

আরো পড়ুন: খালেদা কে ভোট দিলে দেশে উন্নয়ন হবে না।

খালেদা তারেকদের ভোট দিলে দেশে কোন উন্নয়ন হবে না। তারা যদি ক্ষমতায় আসে তা হলে দেশের যত উন্নয়ন কার্য চলছে তা সব বন্ধ করে দিবে। থমকে যাবে দেশ, তাই আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় আবার ভোট দিতে হবে। আজ কেরানীগঞ্জ দোকান মালিক সমবায় সমিতির উদ্দ্যোগে আয়োজিত মত বিনিময় সভায় এমনটাই বলেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

 

মত বিনিময় সভায় নসরুল হামিদ বিপু ব্যবসায়ীদের সাথে উন্মুক্ত আলোচনা করেন এবং ব্যবসায়ীদের নানাবিধ সমস্যার কথা শুনেন। এ সময় ব্যবসায়ীরা প্রতিমন্ত্রীর কাছে তাদের নানাবিধ দাবী দাওয়া পেশ করেন। ব্যবসায়ীরা মন্ত্রীকে বলেন সদরঘাটের ইজারার জন্য কাষ্টমাররা এখন কেরানীগঞ্জে আসতে চায় না , ঘাটের যারা খাজনা উঠায় তারা ব্যবসায়ীদের সাথে অনেক বাজে ব্যবহার করে এমনকি তাদের গায়ে ও হাত তোলে। তাই মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর কাছে তারা খাজনা ফ্রি করে দেয়ার দাবী জানায়। এছাড়া ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে ময়লা ফালানোর ব্যবস্থা , বিদ্যুৎ এর ইউনিট দর কমানোন জন্য দাবী তোলা হয়।

জবাবে নসরুল হামিদ বিপু বলেন, ব্যবসায়ীদের সকল দাবী দাওয়া আমি পূরন করে দিবো। কিন্তু ব্যবসায়ীদের  আমাকে ওয়াদা করতে হবে যে তারা শুভাঢ্যা খাল পরিষ্কার রাখবে, এবং শুভাঢ্যা খাল যে কোন  বিনিময়ে রক্ষা করতে এখানকার সকল ব্যবসায়ীরা আমাকে সর্বোচ্চ সাহায্য করবে।

শুভাঢ্যা খাল রক্ষা করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে তিনি ব্যবসায়ী ও গার্মেন্টস মালিক সমিতিকে ১ সপ্তাহের সময় দেন।

এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, গেল দশ বছরে দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। এ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সকলকে আগামী নির্বাচনে ভোট দিতে হবে। বিএনপি সরকার ক্ষমতায় আসলে সরকারের গৃহীত সকল উন্নয়ন পদক্ষেপ বন্ধ করে দিবে। থমকে যাবে তখন দেশের উন্নয়ন। তাই আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার সরকার কে ভোট দিতে হবে।

সভাপতির বক্তবে কেরানীগঞ্জ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আ: আজিজ শেখ বলেন, বিগত সরকারের আমলে এই গার্মেন্টস এলাকায় অনেক চাদাবাজি হতো , বাবা আনোয়ার সহ নামকরা অনেক গুন্ডারা এখানে চাদাবাজি করতো, বর্তমানে নসরুল হামিদ বিপু ক্ষমতায় আসার পরে কেরানীগঞ্জের ব্যবসায়ীরা নিশ্চিন্তায় ব্যবসা করছে। প্রতিমন্ত্রী আমাদের কে হকার মুক্ত ফুট করে দিয়েছেন। রাজউক থেকে কয়েকবার আমাদের মার্কেট গুলাে ভাঙার চেষ্টা করলেও মন্ত্রী নিজে আমাদের পাশে দাড়িয়ে সব কিছু মোকাবেলা করেছেন । তিনি সব সময় আমাদের পাশে থাকেন । তাই কৃতজ্ঞতার সাথে আগামী নির্বাচনে নসরুল হামিদ বিপুকে বিপুল ভোটে জয় যুক্ত করিয়ে আনাটাই আমাদের লক্ষ্য।

 

কেরানীগঞ্জ গার্মেন্ট দোকান মালিক সমবায় সমিতির কোষাধ্যক্ষ শেখ কাউসার বলেন, আগে কেরানীগঞ্জ ছিলো বাত্তির নিচে অন্ধকার, বিদ্যুৎতের কারনে এখানকার ব্যবসায়ীরা ঠিক মতো ব্যবসা করতে পারতো না, আমাদের মন্ত্রী সাহেব তার সমাধান করেছেন, তিনি আমাদের সুবিধার্থে রাস্তা বড় করে দিয়েছেন এখন বড় বড় কন্টেইনার আমাদের দোকানের সামনেই চলে আসে। জনাব নসরুল হামিদ বিপু তার নেতাকর্মীদের স্পষ্ট ভাবে নির্দেশ দিয়েছেন ব্যবসায়ী এলাকায় কোন ধরনের চাদাবাজি যাতে না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে। ব্যাবসায়ীরা বিগত সরকারের আমলে মোটা অংকের চাদা দিয়ে ব্যাবসা করতো এখন কোন ব্যাবসায়ী বলতে পারবে না যে সে কোন প্রকার চাদা দেয়।

 

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ, ঢাকা জেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও তথ্য বিষয়ক সম্পাদক ম.ই মামুন, জিনজিরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাকুর হোসেন সাকু, আগানগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর শাহ, কেরানীগঞ্জ উপজেলা দক্ষিন যুবলীগের সভাপতি মাহমুদ আলম, দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের আহব্বায়ক ফারুক হোসেন মিঠু, আঞ্চলিক শাখা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মুসলিম ঢালী, ঢাকা জেলা দ: ছাত্রলীগের সভাপতি অনিক হোসেন সহ প্রমুখ।

নিউজ ঢাকা ২৪

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

জবিতে যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে গণস্বাক্ষর কর্মসূচী

অপূর্ব চৌধুরী, জবি প্রতিনিধিঃ সম্প্রতি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই নারী শিক্ষার্থীর সাথে যৌন হয়ারানির ঘটনায় ও …

error: Content is protected !!