অাত্মহত্যা

দক্ষিন কেরানীগঞ্জে পারিবারিক কলহের জেরে গৃহবধুর আত্মহত্যা, পরিবারের অভিযোগ স্বামী কর্তৃক হত্যা

দক্ষিন কেরানীগঞ্জের খেজুরবাগ এলাকায় পারিবারিক কলহের জের ধরে মাহমুদা আক্তার রূপা (১৯) নামের এক গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করার খবর পাওয়া গেছে। নিহত গৃহবধুর মা-বাবাসহ স্বজনদের অভিযোগ  স্বামী আহমেদ আলী মাহমুদাকে হত্যা করে লাশ মর্গে রেখে পালিয়ে গেছে।

নিহতের পরিবার সুত্রে জানা যায়, নিহত মাহমুদার স্বামী আহমেদ আলী দীর্ঘদিন তার গৃহ শিক্ষক ছিলেন। এক পর্যায়ে তাদের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত দুই বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। এ সময় তাদের ঘরে আরাফি আহমেদ নামের একটি পুত্র সন্তান আসে। তার বয়স আনুমানিক এক বছর।

এদিকে মাহমুদার স্বামী আহমেদ আলী আইন পেশায় পাশ করে ঢাকার জজকোর্টে ওকালতি করতে থাকেন। বিয়ের পর থেকে তাদের সাংসারিক জীবন ভাল যাচ্ছিল না। প্রায় সময়ই ঝগড়া বিবাদ লেগে থাকতো।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ কাউসার আহমেদ জানান, হাসপাতাল থেকে খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের সুরতহাল রিপোর্ট করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছি। এস আই বলেন, নিহত মাহমুদা শুক্রবার দিবাগত রাত আনুমানিক দেড়টার সময় বাথ রুমের সাওরের সাাথে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করে।  স্বামী আহমেদ আলী ঘটনা টের পেয়ে বাড়ির অন্যান্য ভাড়াটিয়াদের সহযোগিতায় চিকিৎসার জন্যস্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার দুপুরে মারা যায়। খবর পেয়ে নিহতের মা-বাবা, ভাই-ফুফুসহ আরো  আত্মীয়স্বজনরা হাসপাতাল মর্গে পৌছে স্বামী মেরে ফেলেছে বলে চেচামেচি করতে থাকলে স্বামী আহমেদ আলী সেখান থেকে পালিয়ে যায়। নিহতের গলায় ফাঁস দেয়া দাগ ছাড়া কোন আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি। প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তবে ময়না তদন্ত রিপোর্ট আসলে বলা যাবে এটা হত্যা না আত্মহত্যা। এ ব্যাপারে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় মামলা প্রক্রিধীন রয়েছে।

আরো পড়ুন কেরানীগঞ্জে ভুয়া পুলিশ।

এ.এইচ.এম সাগর।

নিউজ ঢাকা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে অসহায়দের কম্বল দিলেন ঢাকা জেলা পুলিশ

ঢাকার কেরানীগঞ্জে অসহায় ও দরিদ্র শীতার্ত মানুষের হাতে কম্বল তুলে দিয়েছেন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!