ঈদ মিলন মেলা

লক্ষ্মীপুরে নদীভাঙা সন্তানদের ব্যতিক্রমী ঈদ মিলন মেলা

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরের চর কালকিনির সন্তানদের ঈদ মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার(২৩আগস্ট) বিকেলে মেঘনাতীরের নাছিরগঞ্জ বাজারে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে চর কালকিনির কৃতি সন্তানরা। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন, গণপুর্ত অডিট অধিদপ্তরের বিভাগীয় হিসাব রক্ষক সিরাজুল ইসলাম।

চট্টগ্রাম কাস্টম হাউজের ডেপুটি সুপারিন্টেডেন্ট মাওলানা নুরুল ইসলাম সিরাজীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন, উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা আবু তাহের মামুন, মুফতি মো. এমদাদ উল্লাহ, চর কালকিনি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহমুদুর রহমান বেলায়েত, সদর উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মাষ্টার আবদুল খালেক।

সোনাইমুড়ি উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আহমেদ উল্লাহ সবুজের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, উপকূল সংবাদকর্মী জুনাইদ আল হাবিব, কমলনগর থানা মসজিদের পেশ ইমাম বেলাল হোসেন বেলালী, জেলা জর্জ কোর্টের শিক্ষানবীশ আইনজীবী ফারুক হোসেন টিপু, শিক্ষক নুর হোসেন পারভেজ ও শেখ আবুল বাশার, সাভারের স্যামস এ্যাটার লিমিটেডের এজিএম আবদুর রশিদ লিটন, সাবেক জনপ্রতিনিধি আবুল কাশেম হাওলাদার, চট্টগ্রামের ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি স্যানেটারী ট্রেনিং ইন্সপেক্টর জসিম উদ্দিন, ব্যবসায়ী ইব্রাহিম সুমন ও আবদুর রহিম, শিক্ষক নুরনবী নবাব প্রমুখ।

প্রধান অতিথি বক্তব্যে বলেন, এটি সত্যি একটি প্রশংসিত উদ্যোগ। মেঘনার রাক্ষুসে ভাঙনের কারণে এখানের মানুষগুলো ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। এসব মানুষকে ফেসবুকের কল্যাণে আজ একত্রিত করা সম্ভব হয়েছে। এখানের কৃতি সন্তানদের প্রচেষ্টার কারণেই মূলত অনুষ্ঠানটি সফল হওয়ার কারণে আমার কাছে বেশ ভালো লাগছে। এমন অনুষ্ঠান অব্যাহত রাখা দরকার। আমরা চর কালকিনির নদীভাঙা ছিন্নমূল মানুষের কল্যাণে একটি ট্রাস্ট গঠনের চিন্তা-ভাবনা করছি।

জুনাইদ অাল হাবি, নিউজ ঢাকা।

 

আরো পড়ুন: পুলিশের ডি.আইজি

পুলিশ ও হাবিবুর রহমান এই দুটি নামের মাঝে নেই যেন কোনো পার্থক্য বিদ্যমান । পুলিশের এই স্বনামধন্য কর্মকর্তার হাত ধরে পুলিশ এগিয়ে গেছে অনেক দূর। আধুনিক ও জনবান্ধব এই পুলিশ কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান পুলিশ বাহিনীর সকল সুবিধা ,অসুবিধা সকল কিছুতেই তীক্ষ্ণ নজর রাখেন ।

নিজ বাহিনীর কল্যানে এই জনপ্রিয় পুলিশ অফিসারের উদ্যোগে একের পর এক পুলিশের নানা সমস্যার নিরসন হয়েছে, দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় শান্তির শপথে বলীয়ান যে পুলিশ সদস্যরা দিনরাত দেশের জন্য কাজ করতে গিয়ে শহীদ হচ্ছেন , মৃত্যু বরণ করছেন তাঁদের লাশ প্রিয়জনের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য ইতিপূর্বে ছিলোনা তেমন কোন পরিবহন সুবিধা ডিআইজি হাবিবুর রহমানের উদ্যোগে অবসান ঘটলো সেই সমস্যারও।
কিছুদিন আগে পুলিশ মহাপরিদর্শক (IGP) ডঃ মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী ও ডিআইজি হাবিবুর রহমানের কাছে কনকর্ড গ্রূপের চেয়ারম্যান পুলিশকে এই লাশবাহী গাড়িটি হস্তান্তর করেছেন এ সময় পুলিশের আরো বিভিন্ন শাখার উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগণও উপস্থিত ছিলেন ।
সংক্ষেপে জেনে নিন হাবিবুর রহমানের কিছু পুলিশ কল্যাণ মুখী কর্মকান্ড
১) মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হাবিবুর রহমানের একান্ত উদ্যোগে মহান মুক্তিযুদ্ধে পুলিশের অবদানকে স্মরণীয় ও চিরস্থায়ী করে রাখতে রাজারবাগে নির্মাণ করা হয় পুলিশ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর, জাদুঘরটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি তিনি।
২)শিক্ষানুরাগী এই অফিসার ডিসি হেডকোয়াটার্স হিসেবে দায়িত্ব পালন ক

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

রামগড়ে পিকআপ ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ

আদনান হাবিব, রামগড়: খাগড়াছড়ির জেলার রামগড়ে প্রাণ আরএফএল গ্রুপ এর পণ্য পরিবহনকারী পিকআপ ভ্যানের সাথে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!