নসরুল হামিদ বিপু

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার লক্ষে প্রধানমন্ত্রী ২৪ ঘন্টা কাজ করে যাচ্ছে — নসরুল হামিদ বিপু

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষে গনতন্ত্রের বঙ্গকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা নিরলস ভাবে ২৪ ঘন্টা কাজ করে যাচ্ছে। ‘৭৫’ এর পর ২০ বছর লেগেছে এ বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর সপ্নে ফিরিয়ে আনতে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গঠনের পিছনে বঙ্গকন্যা আলোকিত বাংলাদেশ গড়তে যাচ্ছে। সে লক্ষে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি।

আগামী বছর প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দিবো। আগামী সেপ্টেম্বর মাসে আমরা দেশের জনগনকে জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে ২০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উপহার দিবো। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ইকুরিয়া বিআরটিএ অফিস মাঠে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বিদ্যুৎ-জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু এ কথা বলেন। মন্ত্রী আরো বলেন, স্বাধীনতার চেতনা ও আওয়ামীলীগ সরকারকে রক্ষা করতে পুলিশ এগিয়ে এসেছে। এর আগে বঙ্গবন্ধুর জন্য পুলিশ অত্মত্যাগ করেছে। বর্তমানে পুলিশ সরকার ও দেশ নিরাপত্তার জন্য বিরতীহিন কাজ করছে।

স্বাধীনতা যুদ্ধে প্রথম হামলা হয়েছিল পুলিশের উপর। স্বাধীনতার পূর্বে যে সকল পুলিশ দেশের জন্য নিরলসভাবে কাজ করেছে তাদের স্বরন না করলেই নয়। এদের মধ্যে তৎকালিন আইজিপি আব্দুল খালেক, তৎকালিন রাজশাহী রেঞ্জের ডিইজি মামুনুর রশীদ ও রহিম শেখ উল্লেখযোগ্য। মন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমানের কথা বলতে গিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধু ২৫ মার্চ রাতে কেরানীগঞ্জে এসে যুদ্ধের পরিকল্পনা করবেন। মুক্তিযুদ্ধোর চেতনা কেরানীগঞ্জই। বিএনপি-জামায়েত চক্র যতই ষড়যন্ত্র-চিন্তা ভাবনা করুক না কেন আমাদের পুলিশ বাহিনী আছে। মন্ত্রী কেরানীগঞ্জবাসীর উদ্যোশে বলেন, আগামী একাদ্বশ নির্বাচনে নৌকার ছায়া তলে এসে শেখ হাসিনার প্রতি ভালবাসা দেখিয়ে ভেভাটের মাধ্যমে আবার ক্ষমতায় আনবে। আগামীতে কেরানীগঞ্জের উন্নয়নের জন্য আট হাজার কোটি টাকা ব্যায়ের পরিকল্পনা রয়েছে শেখ হাসিনার। মন্ত্রী নতুনদের উধ্যোমে বলেন, যারা নতুন ভোটার হয়েছে তাদের কাছে যেতে হবে। তাদের বঙ্গবন্ধুর ম্পর্কে বলতে হবে, তাদের মুক্তিযুদ্ধের কথা বলতে হবে, তাদের স্বাশীনতার কথা বলতে হবে তাহলেই আমরা আগামীতে একটি ভাল জাতি পাবো।


ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান সাফিউর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পুলিশের ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ-আল-মামুন ও কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ আহবায়ক শাহীন আহমেদ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা জেলা অতিরিক্ত পুলিষ সুপার (অপরাধ) মাসুম ভুইয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কেরানীগঞ্জ সার্কেল রামানন্দ সরকার, কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহে এলিদ মইনুল আমিন,ইজনজিরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাজি সাকুর হোসেন সাকু, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ সভানেত্রী স্মৃতি কনা বিশ্বাস, ওসি দক্ষিন কেরানীগঞ্জ মোঃ মনিরুল ইসলাম, ওসি কেরানীগঞ্জ মডেল শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের, ওসি ঢাকা জেলা দক্ষিন গোয়েন্দা মোঃ শাহজামান প্রমুখ

এইচ এম সাগর, নিউজ ঢাকা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

বইমেলার পর্দা নামলো আজ

বইমেলার পর্দা নামলো আজ , তবে শেষ দিনেও আশা পূরণ হয়নি প্রকাশকদের শিপংকর শীল: প্রকাশনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!