রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি

এগিয়ে যাচ্ছে ঢাকা জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি

১৯৭৩ সালের ৩১ মার্চ বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সূচনা হয়, যা একই বছরের ২০ সেপ্টেম্বর তারিখে আন্তর্জাতিক রেড ক্রসের স্বীকৃতি পায়। ২ নভেম্বর ১৯৭৩ তারিখে এই সোসাইটি রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্টের আন্তর্জাতিক সংস্থায় অন্তর্ভুক্ত হয়।

বাংলাদেশের ৬৪ টি জেলার মোট ৬৮ টি ইউনিট নিয়ে গঠিত এই বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি। যার মধ্যে ঢাকা জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি অন্যতম।
রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ঢাকা জেলা ইউনিট এর সকলের পরিশ্রম, ভালবাসার আর একজন যোগ্যতম নেতার নেএীএের আর নৈপুণ্যতার ফসল আজকের এই ঢাকা জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, তিনি আমাদের সকলের প্রিয় যুব প্রধান শোয়েব আহমেদ, যিনি এই ঢাকা জেলার রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির যুব প্রধানের দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকেই কাজ, সততা, নিষ্ঠা আর যোগ্য নেএীত্য দিয়ে এই ঢাকা জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিকে সফল ভাবে গড়ে তুলতে আতুলনীয় পরিস্রম ও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যার ফলে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্টের অন্য সকল ইউনিটের মধ্যে আন্যতম ইউনিট হিসেবে আজ পরিচিতি পেয়েছে এই ঢাকা জেলা ইউনিট।

কোন প্রকার ভেদাভেদ ছাড়া যুদ্ধক্ষেত্রে আহতদের সাহয্যের উদ্দেশ্য সৃষ্ঠ আন্তর্জাতিক রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সর্বত্র মানুষের দুঃখ দুর্দশা প্রতিরোধ ও উপশম করার চেষ্টায়। জীবন ও স্বাস্থ্য রক্ষা এবং মানুষ সম্মান বজায় রাখা এর উদ্দেশ্য। এই আন্দোলন পারস্পরিক সমঝোতা, বন্ধুত্ব, সহযোগিতা এবং সকল জাতির মধ্যে স্থ শান্তি প্রতিষ্ঠার পথ সুগম করে। এই আন্দোলন জাতি, গোত্র, ধর্মীয় বিশ্বাস, শ্রেণী বা রাজনৈতিক মতবাদ মধ্যে কোন বৈষম্য করে না। কেবলমাত্র প্রয়োজনের ভিত্তিতে এই আন্দোলন মানুষের কষ্ট লাঘবের চেষ্টা করে এবং সর্বাধিক বিপদাপন্ন ব্যক্তিদেরকে সাহায্যের অগ্রাধিকার দেয়।

ত্রাণ ও পুনর্বাসন কার্যক্রম ও বস্ত্র বিতরণের প্রস্তুতি।

শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ঢাকা জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি।

ঈদে যানজট নিরসনে রেড ক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবা প্রধান করে থাকে সেবা প্রধানে সময় মার্কেটের সামনে সিএনজির পার্কিং করতে দেয়নি স্বেচ্ছাসেবকরা। ফলে শহরের প্রবেশ পথ ছিল একেবারেই যানজটমুক্ত। বেলা আড়াইটা পর্যন্ত তাদের দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায়।
এ ব্যাপারে কথা হয় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ঢাকা জেলা ইউনিটির যুব প্রধান শোয়েব আহমেদের সঙ্গে। তিনি জানান, শহরবাসীকে যানজটের ভোগান্তি থেকে মুক্ত রাখতে আমাদের স্বেচ্ছাসেবকরা মাঠে কাজ করছে। রাস্তায় অবৈধ পার্কিং ও রং রোডে গাড়ি চলাচল রোধে আমরা কাজ করব।

ঈদে যানজট নিরসনে ঢাকা জেলা রেড ক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবক সব সময় কাজ করে থাকে।
ইফরান নেওয়াজ,নিউজ ঢাকা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

রামগড়ে পিকআপ ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ

আদনান হাবিব, রামগড়: খাগড়াছড়ির জেলার রামগড়ে প্রাণ আরএফএল গ্রুপ এর পণ্য পরিবহনকারী পিকআপ ভ্যানের সাথে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!