ইয়াবা

কেরানীগঞ্জে ইয়াবা সহ ৩ মাদক কারবারী গ্রেপ্তার

কেরানীগঞ্জে ৭০০ পিস ইয়াবাসহ ৩ মাদক কারবারীকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা জেলা দক্ষিন গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে আমবাগিচা খালপাড় এলাকা থেকে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তাদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, মোঃ শান্ত (২০), লাদেন (১৯) ও মাসুম (২০)। ডিবি পুলিশের দাবি, গ্রেপ্তারকৃতরা ইয়াবা ব্যবসায়ী ।
ঢাকা জেলা দক্ষিন গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের এসআই কাজি এনায়েত হোসেন জানান, মঙ্গলবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে জানতে পারি যে আমবাগিচা খালপাড় এলাকার একদল মাদক ব্যবসায়ী অবস্থান করছে।

এ সংবাদের ভিত্তিত্বে সঙ্গীয় এস আই নুরুল হুদাকে সাথে নিয়ে ওই এলাকায় অভিযান চালাই। অভিযানে সেখান থেকে আমরা ৩ জন যুবককে গ্রেপ্তার করি। এরপর তাদের দেহ তল্লাসি করে তাদের কাছ থেকে সাতটি নীল জিপারে ভিতর থেকে ৭০০ পিস ইয়াবা টেবলেট উদ্ধার করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে এস আই নুরুল হুদা বাদী হয়ে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় মাদক আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ এইচ এম সাগর

নিউজ ঢাকা ২৪।

 

আরো পড়ুন: হিজরাদের জন্য সরকারের ব্যবস্থা।

 

যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছিলেন দুটি অনুষ্ঠানে অংশ নিতে। যথারীতি এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটেও চেপেছিলেন তিনি। কিন্তু বিপত্তি হল পুলিশ বাধ সাধেন তাতে। ঘটনাটি ২০ জুলাই শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। যার সাথে এ ঘটনা তিনি ইমরান এইচ সরকার। গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র তিনি।

ইমরান জানান, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আমন্ত্রণে ইয়থ ভিজিটর লিডারশিপ প্রোগ্রাম ও মানবাধিকার সংক্রান্ত আরেকটি অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার জন্য তিনি আমেরিকা যাচ্ছিলেন। এমিরেটাস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তার যাওয়ার কথা ছিল। এজন্য তিনি বিকেল ৪টার দিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান। বোর্ডিং পাশ নিয়ে তিনি ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেন। নির্দিষ্ট সময়ে তিনি বিমানের ভেতরে নিজ আসনে বসলে একজন পুলিশ কর্মকর্তা তাকে সেখান থেকে ডেকে বের করে নিয়ে আসেন। পরে তার সঙ্গে দীর্ঘ সময় নিয়ে আমেরিকা যাওয়ার কারণ নিয়ে কথা বলেন। এরমধ্যে বিমান ছেড়ে যায়। পরে ওই পুলিশ কর্মকর্তা তাকে উপরের নির্দেশে যুক্তরাষ্ট্র যাত্রা বাতিল করা হয়েছে বলে জানায়।

ইমরান বলেন, ‘আজ আমার সঙ্গে যা করা হলো তা একটি অগণতান্ত্রিক আচরণ, নিপীড়নমূলক। আমি একটি ভালো কাজে যাচ্ছিলাম। কিন্তু নজীরবিহীনভাবে আমাকে ইমিগ্রেশন পার হওয়ার পর আবার ফিরিয়ে আনা হয়। আমার বিরুদ্ধে কোনও মামলা বা ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাও নেই। ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা থাকলে ইমিগ্রেশনের সময় তারা আটকাতো। এরকম নজিরবিহীন ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে আবাসিক এলাকায় গরুর উচ্ছিষ্ট প্রক্রিয়াকরণ কারখানা; দূষণে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

ঢাকার কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া নতুন রাস্তা মোড় মুজাহিদ নগর এলাকায় গরুর উচ্ছিষ্ট প্রক্রিয়াকরন কারখানায় গরু জবাইয়ের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!