দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের কমিটিতে আলোচনায় যারা

স্বাধীনতাসহ দেশের সব আন্দোলন-সংগ্রামের নেতৃত্বদাতা ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। ঢাকা জেলার অন্তর্গত দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগ , ছাত্রলীগের একটি গুরুত্বপূর্ন অংশ হলেও দীর্ঘ ১৮ বছর কোন সম্মেলন ই হয়নি কেরানীগঞ্জে।

দীর্ঘ ১৮ বছর পর গত ২২ অক্টোবর ২০২১ কেরানীগঞ্জের আমবাগিচা মহিলা কলেজ মাঠে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎ জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

সম্মেলনে সংক্ষিপ্ত এক বক্তব্যে বিপু বলেন, ছাত্ররাই করবে ছাত্র রাজনীতি। ছাত্রলীগের রাজনীতি হবে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী। দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের আগামীর কমিটিতে যারা আসবেন অবশ্যই তাদের যোগ্যতাসম্পন্ন হতে হবে।

সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের নাম ঘোষনা করার কথা থাকলেও, সাময়িক কারনে তা ঘোষনা করা সম্ভব হয় নি। তবে ঢাকা জেলা ছাত্রলীগ সুত্রে জানা গেছে অতি শীঘ্রই ঘোষনা করা হবে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের আগামী কমিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের নাম।

আগামী কমিটিকে ঘিরে সংগঠনটির নেতাকর্মীদের ইতিমধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা বিরাজ করছে। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জায়গা পেতে এরই মধ্যে পদপ্রত্যাশীরা জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের আগামী কমিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক পদে ১ ডজন প্রার্থী থাকলেও আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে রয়েছে কয়েকজন।

ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব কেমন হতে যাচ্ছে, সে সম্পর্কে ধারণা দিয়ে ঢাকা জেলা দক্ষিন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক এহসান আরাফ অনিক বলেন, যারা মাঠের রাজনীতিতে সক্রিয়, যাদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই এবং স্বচ্ছ ভাবমূর্তির, পারিবারিকভাবে বঙ্গবন্ধু এবং শেখ হাসিনার প্রশ্নে যারা আপোষহীন, যারা বিপু ভাই ও শাহীন ভাইয়ের  আদর্শের রাজনীতি করে তাদের মধ্য থেকেই আসবে আগামীর নেতৃত্ব।

সংক্ষিপ্ত তালিকায় যারা :


সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্রে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যায়নরত, মাঠের রাজনীতি, স্বচ্ছ ভাবমূর্তি, সব মহলে জনপ্রিয়তা, পারিবারিক ঐতিহ্য, সাংগঠনিক দক্ষতা এবং অবিবাহিত, সব সমীকরণ মিলিয়ে শেষ মুহুর্তের দৌড়ে শীর্ষে আছেন  শুভাঢ্যা থেকে নজরুল ইসলাম সোহেল, জিনজিরা থেকে মাহমুদুল্লা ইপ্তি, তেঘরিয়া থেকে ওলিউল্লাহ শিশির, আগানগর থেকে গাজী মাসুম বিল্লাহ জুয়েল ও  নাজমুল হোসেন রাতুল , এবং শাকিল আহমেদ।

নজরুল ইসলাম সোহেল:

 

 

 

 

 

 

 

 

মাঠের রাজনীতিতে সক্রিয়, স্বচ্ছ ভাবমূর্তি, সব মহলে গ্রহনযোগ্যতা, সংগঠনের প্রতি আনুগত্য, বাগ্মিতা, গঠনতন্ত্রের গ্রহনযোগ্যতা , সব কিছু মিলিয়ে আগামী কমিটির সভাপতি হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে নসরুল হামিদ বিপু ও শাহীন আহমেদের আস্থাভাজন ছাত্রনেতা নজরুল ইসলাম সোহেল।

নজরুল ইসলাম সোহেল ২০১১ সালে  দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের সদস্য ছিলেন । এছাড়া শুভাঢ্য ইউনিয়ন ছাত্রলীঘের যুগ্ন আহব্বায়কের দায়িত্বও পালন করেছেন এই ছাত্রনেতা।  বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্টি করার দায়ে তারেক জিয়ার বিরুদ্ধে করা মামলার  একনং স্বাক্ষী এই ছাত্রনেতা। এছাড়াও ২০১৪/১৫ সালে বিএনপি জামাত যখন রাস্তায় যানবাহনে হামলা ও পেট্টোল বোমা নিক্ষেপ করে তখন  বিএনপি জামাতের হামলা থেকে কেরানীগঞ্জবাসীকে নিরাপদ রাখার জন্য তৎকালীন ছাত্রনেতাদের সাথে টানা ৯২ দিন রাস্তায় অবস্থান করে এই পরিশ্রমী ও মেধাবী এই ছাত্রনেতা।

নামপ্রকাশ না করার শর্তে কেরানীগঞ্জের ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মীর সাথে কথা হলে সোহেল কে সমর্থন দিয়ে তারা বলেন, সোহেল ক্লিন ইমেজের একজন ব্যাক্তিত্ব। রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে সোহেলের বিরুদ্ধে কোন খারাপ রেকর্ড নেই। সোহেল কে নেতৃত্ব দিলে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগ আরো গতিশীল হবে বলে তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

মাহমুদুল্লাহ ইপ্তি:

একজন যোগ্য ও দক্ষ ছাত্রনেতার যতগুলো গুন থাকা দরকার, তার সবটুকুই আছে জিনজিরার ছেলে মাহমুদুল্লাহ ইপ্তির। বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মাহমুদুল্লাহ ইপ্তি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর মৎস্যবিজ্ঞান বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের একজন ছাত্র। ২০১৪ সাল থেকে ছাত্র রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ইপ্তি কলেজ জীবনে পড়াশোনা করেছেন বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ পাবলিক কলেজে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হল ছাত্রলীগ এবং জিনজিরা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী হিসাবে ছাত্রলীগের প্রতিটি কর্মসূচিতেও দেখা যায় তাকে। খবর নিয়ে জানা যায়, ২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে পোলিং এজেন্ট হিসেবে গুরুত্বপূর্ন দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

করোনা মহামারীর শুরুর দিকে সারা দেশে যে সকল ছাত্র নেতারা সর্বোচ্চ ঝুকি নিয়ে বিনা স্বার্থে দেশের ও জনগনের সেবা করেছেন ইপ্তি তাদের মধ্যে একজন। সেই সময় জিনজিরা ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান জনাব হাজী মোঃ সাকুর হোসেন সাকুর নেতৃত্বে গরীব, অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী, মাক্স বিতরন সহ নানান কাজে সহযোগিতা করেছেন তিনি।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জের একাধিক ছাত্রনেতা ও কর্মীদের সাথে কথা হলে অনেকেই বলেন ইপ্তির কথা। তাদের ভাষ্যমতে একটি সুন্দর গ্রহনযোগ্য ও পরিচ্ছন্ন কমিটি গড়ার জন্য দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগে ইপ্তির মতো ক্লিন ইমেজ ও মেধাবী ছাত্রদের দরকার।

অলিউল্লাহ্ শিশির:

তেঘরিয়া ইউনিয়ন, ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অলিউল্লাহ শিশির ও এগিয়ে আছেন সভাপতি – সাধারন সম্পাদক হওয়ার দৌড়ে।। ,দনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রয়েছেন দঃ কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগ  সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি । ছাত্রলীগের যারা একনিষ্ঠকর্মী এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী তাদের নিয়েই হবে আগামীর দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগ এমনটাই আশা এই ছাত্রনেতার । আগামীর কমিটিতে নির্বাচিত হলে ছাত্রলীগের সকলদের নিয়ে আধুনিক ও মডেল একটি কমিটি গঠন করবে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগ এমনটাই প্রত্যাশা এই ছাত্র নেতার।

গাজী মাসুম বিল্লাহ জুয়েল: 

আগানগর ইউনিয়নের ছাত্রলীগের বর্তমান সাধারন সম্পাদক গাজী মাসুম বিল্লাহ জুয়েল ২০০৩ সাল থেকে ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই মেধাবী ছাত্র বিএনপি-জামাত বিরোধী আন্দোলন,  ১/১১ এর আন্দোলন যুদ্ধাপরাধী বিরোধী আন্দোলনসহ সকল আন্দোলনে একজন সক্রিয় কর্মী ছিলেন। এছাড়াও ২০০৯,২০১৪,২০১৮ জাতীয় নির্বাচনসহ গত দুইটি উপজেলা পরিষদ ও দুইটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের পোলিং এজেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

নাজমুল হোসেন রাতুল:

২০০৭ সাল থেকে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগ এর সাথে সংযুক্ত ছাত্রনেতা রাতুলও এগিয়ে রয়েছে এই দৌড়ে।  আগানগরের ১ নং ওয়ার্ড ছাএলীগের সদস্য থেকে ১ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগ এর সভাপতি, পরবর্তীতে আগানগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ত্রর সদস্য থেকে ২০১২ সালে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগ ত্রর আহবায়ক কমিটির সদস্য করা হয় এবং ২০১৯ সালে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগ এর সস্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য করা হয় তাকে।

শাকিল আহমেদ: জিনজিরা ইউনিয়নের একসময় ছাত্রলীগের যুগ্ন আহ্ববায়ক শাকিল আহমেদ ও রয়েছেন আলোচনায়।

 

দক্ষিন কেরানীগঞ্জের থানাধীন আওয়ামীলীগ ও তার সহযোগী সংগঠনগুলোর প্রতিটি নেতাকর্মী চাইছেন ক্লিন ইমেজ ও যোগ্যদের হাতেই যাক দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার ছাত্রলীগের আগামীর নেতৃত্ব। 

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা যুবলীগের সদস্য ও তরুন রাজনীতিবিদ শিপু আহমেদের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, যারা পারিবারিক ভাবে আওয়ামীলীগের রাজনীতি বহন করে, পরিচ্ছন ইমেজের ও মাননীয় বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বিপু ভাই ও উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন ভাই ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী যাদের যোগ্য মনে করেন তারাই আসুক আগামীর কমিটিতে।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক ও তরুন ব্যাক্তিত্ব ম ই মামুনের সাথে কথা হলে তিনি জানান, ছাত্রলীগ হচ্ছে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও দেশ এবং জাতি গঠনের নতুন নেতৃত্ব তৈরী করার একটা কারখানা। দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের আগামীর নেতা হিসাবে শিক্ষা, ছাত্রত্ব ও ব্যাক্তিগত চরিত্রের সমন্বয়ে যারা যোগ্য তারাই আসবে।  যোগ্যরাই আসুক আগামীর কমিটিতে, যাদের দ্বারা আগামীর নেতৃত্ব তৈরী হবে।

কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক শাহীন আহমেদ বলেন, ছাত্রলীগ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের গুরুত্বপূর্ন একটা অংশ। দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের কমিটি অতি শীঘ্রই ঘোষনা দেয়া হবে। প্রার্থীদের সকলের বায়োডাটা আমাদের কাছে আছে।   যারা ছাত্রলীগটাকে ধারন করে, যারা গঠনতন্ত্র অনুযায়ী যোগ্য, তারাই আসবে আগামীর কমিটিতে। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী অযোগ্য ও অছাত্রদের কোন স্থান নেই এখানে।

 

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

আপেল মার্কা সমর্থক শাওনের নেতৃত্বে ফুটবলের প্রার্থী ওহেদুজ্জামানের উপর হামলার অভিযোগ ; আহত ৭

ঢাকার দক্ষিন কেরানীগঞ্জ শুভাঢ্যা ০৮নং ওয়ার্ড প্রার্থী হাজি মোঃ ওহেদুজ্জামান এর ফুটবল মার্কার সমর্থকে উপর …

error: Content is protected !!