ফেনীতে হাফেজিয়া মাদরাসায় শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ফেনীর বিরিঞ্চিতে মদিনাতুল উলুম কারেমীয়া মাদরাসায় আবু বক্কর সিদ্দিক রাফি (১০) নামে এক শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতনকারী মাদরাসা শিক্ষকের নাম মাসুম। বুধবার আবু বক্কর সিদ্দিক রাফির পরিবার বিষয়টি জানান।

জানা যায়, কোরবানির ঈদের ছুটি শেষে গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় মাদরাসায় দিয়ে আসা হয় আবু বক্কর সিদ্দিক রাফিকে। দিয়ে আসার পর থেকে হাতে হালকা মেহেদী ও চুলের কাটিংয়ের কারণে ঘাড় ধরে ক্লাস থেকে বের করে দেয় মাদরাসার দায়িত্বে থাকা মাসুম হুজুর। দুপুর ২ টা থেকে মাঝখানে নামাজের বিরতি ছাড়া সারাক্ষণই দরজার সামনে কান ধরে দাঁড় করিয়ে রাখে হুজুর। ঠিকভাবে খেতেও দেয়া হয়নি তাকে।

তারপর রাত এগারটায় ঘুমাতে দেয়া হয় এবং বুধবার সকালে আবারও তাকে থাপ্পড়-আর ঘাড়ে ঘুষি দেয়া হয় এবং আগের মত কান ধরে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। সহ্য করতে না পেরে রাফি সুযোগ বুঝে মাদরাসা থেকে পালায় এবং বিকাল ৩ টায় ফেনীর বিরিঞ্চি মাদরাসা থেকে ফেনীর দক্ষিণ কাশিমপুরে নিজ বাড়িতে পৌঁছে। মাদরাসা থেকে বাড়ির দূরুত্ব প্রায় ১৫ কিলোমিটার। মাদরাসা থেকে বেরিয়ে বাড়ি পৌঁছে গেলেও হুজুর বাড়িতে কিছুই জানায়নি।

নির্যাতিত শিশু রাফির মামা হারুনুর রশিদ বলেন, আমি মাদরাসায় হুজুরের কাছে সুন্দরভাবে ঘটনা জানতে চেয়েছি। হুজুর উল্টো গরম হয়ে অন্যায়ের শাস্তি দিয়েছে বলে জানায় এবং পারলে কিছু করে দেখাতে বলে৷ আমি আমার ভাগিনা নির্যাতনের বিচার চাই।

এবিষয়ে অভিযুক্ত মাদরাসা শিক্ষক বলেন, আমি শুধু কানে ধরিয়ে দাঁড়া করাই রাখছি। গালে থাপ্পড় দিছি যাতে এরকম আর না হয়।

এবিষয়ে ফেনী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রতিবেদককে মুঠোফোনে বলেন, ঘটনাটি সম্পর্কে আমি এখনও অবগত হইনি। বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ নিচ্ছি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

তিন জেলার মানুষ বিনামূল্যে পাবে চক্ষু চিকিৎসা

জবি প্রতিনিধি: পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও ও মানিকগঞ্জ এই তিন জেলায় অসহায়দের বিনামূল্যে চক্ষুসেবা দিতে চারটি চক্ষু …

error: Content is protected !!