গরমে ঠান্ডা পানি কেন খাবেন না

তীব্র গরমে এক গ্লাস ঠান্ডা পানি আমাদের অনেক তৃপ্তি দেয়।এ জন্য বলা নেই কওয়া নেই হুট করে ফ্রিজ থেকে বরফ জমা ঠান্ডা পানি বের করে খাওয়া আমাদের উচিত নয়। শুধু গরমে নয় আয়ুর্বেদশাস্ত্রে যে কোন সময়ে ঠান্ডা পানি পানে আমাদের কে সতর্ক করা হয়েছে। ঠান্ডা পানি হজমে সমস্যা সৃষ্টি করে। তীব্র গরমে প্রচন্ড ঠান্ডা পানি যতোটা সম্ভব এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে বিশেষঞ্জরা।

দ্য কমপ্লিট বুক অব আয়ুর্বেদিক হোম রেমিডিস’ বইয়ের তথ্য অনুযায়ী, যে কোন সময় ঠান্ডা পানি শরীরের জন্য ক্ষতিকর বলা হয়।

তাই খাবারের জন্য বা তৃষ্না মিটানোর জন্য যে কোন সময় ঠান্ডা পানি যতোটা সম্ভব এড়িয়ে চলা উচিত।

এটি আমাদের পরিপাক তন্তে বাধা দেয়। পেটে বদ হজমের জন্য ঠান্ডা পানি ও অনেক সময় দায়ী।

ওই বইয়ে ঠান্ডা পানির বদলে হালকা উষ্ণ পানি কয়েক চুমুক খাবার জন্য বলা হয়েছে।

 

ঠান্ডা পানিকে না করার কারন জেনে নিন:

 

১) হজমে বাধা: বিশেষজ্ঞদের মতে, ঠান্ডা বা কোমল পানী রক্ত নালীর সংষ্পর্শে আসে এবং খাবার হজমে সমস্যা সৃষ্টি করে।

ঠান্ডা পানি খেলে আমাদের শরীরের শক্তি ক্ষয় হয়। যা হজম প্রক্রিয়ার বদলে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রনে চলে যায়।

২) গলা ব্যাথা: গরমে ঠান্ডা পানি খেলে গলা ব্যাথার সমস্যা দেখা দিতে পারে।

এছাড়া সর্দিজনিত সমস্যা ও দেখা দিতে পারে। শ্বাস নালীতে সমস্যা সহ নানা বিধ সমস্যা দেখা দেয়।

৩) চর্বি গলতে বাধা দেয়: কিছু খাবার পর ঠান্ডা পানি খেলে, চর্বি জমে শক্ত হয়ে যায়।

ফলে শরীর চর্বি ভাংতে পারে না। যার কারনে শরীরে অনাকাঙ্খিত চর্বি জমে।

তাই খাবারের পর অনেক ডা: ঠান্ডা পানি খেতে নিষেধ করেন্।

৪) হৃদ স্পন্ধন কমায়: ঠান্ডা পানি আমাদের হৃদয়ের স্পন্ধন কমিয়ে দেয়ার ক্ষমতা রাখে।

যখন ঠান্ডা পানি খাওয়া হয় তখন এর শীতলতা ভাব আমাদের স্নায়ুকে উদ্দীপ্ত করে আমাদের হৃদয়ের স্পন্ধন কমিয়ে দেয়।

৫) পেট ব্যাথার কারণ: যারা শরীরের ওজন হ্রাসের জন্য ব্যায়াম করেন , তাদের কে ঠান্ডা পানি না খাবার জন্য পরামর্শ দেন ডা: রা।  ব্যায়ামের পর আমাদের দেহে তাপের সৃষ্টি হয়।

ঠান্ডা পানি খেলে তাপের সাথে তা মানায় না। এতে হজমের সমস্যা সহ আমাদের পেটে ব্যাথা হয়।

তথ্য: এনডিটিভি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে মসজিদে

জনসচেতনতা বাড়াতে কেরানীগঞ্জে মসজিদে মসজিদে পুলিশ

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে জনসচেতনতা বাড়াতে, সর্বস্তরের মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে উদ্বুদ্ধ করা,আসন্ন ঈদ উল আযহায় আইন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!