পাচার হওয়া মেয়েকে ভারতে গিয়ে উদ্ধার বাংলাদেশি মায়ের

ছয় মাস আগে বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাচার হওয়া কিশোরী মেয়েকে দেশটি থেকে উদ্ধার করে এনেছেন ৪৫ বছর বয়সী এক নারী।

বিএসএফ এবং বিজিবির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ১৭ বছর বয়সী ওই কিশোরীকে দেহব্যবসায় বাধ্য করেছিল পাচারকারীরা।

দেশ রূপান্তর জানতে পেরেছে মেয়েটিকে ভারতের একটি পারলারে চাকরি দেয়ার কথা বলে দেশটিতে পাচার করা হয়। কালু এবং সোহাগ নামের দুই যুবকের সঙ্গে তিনি বাড়ি ছাড়েন।

কালু-সোহাগ পাচারকারী চক্রের সদস্য। ভারতে যাওয়ার পর দেড় লাখ রুপিতে মোহাম্মদ আলী নামের এক প্রতারকের কাছে মেয়েটিকে বিক্রি করে দেয় কালু। কালু তাকে নিয়ে চলে যায় পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুরের পাঞ্জিপাড়া এলাকায়। এখানে তাকে জোর করে দেহব্যবসায় নামানো হয়।

ভুক্তভোগী মেয়েটির মা জানিয়েছেন, মিঠুন নামের আরেক যুবকের কাছে তিনি মেয়ের দুর্দশার কথা জানতে পারেন। মিঠুন ফোনে তাকে সব জানান।

বিএসএফকে ওই নারী জানিয়েছেন, ১৬ জানুয়ারি থেকে মেয়ে নিখোঁজ ছিল। পরে ঢাকার মিরপুর এলাকার পল্লবী থানায় এফআইআর দায়ের করেন তিনি।

ভারতে গিয়ে পাঞ্জিপাড়ার স্থানীয়দের সহযোগিতায় মেয়ের অবস্থান শনাক্ত করে নিরাপদে উদ্ধার করেন।

বিএসএফ সদস্যরা গত মঙ্গলবার মা-মেয়েকে বিজিবির হাতে তুলে দিয়েছেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

৬৩ দিনব্যাপী মাহফিল শুরু হচ্ছে রাজারবাগে

নিজস্ব প্রতিবেদক ঈদ ই মিলাদুন্নবী উপলক্ষে ৬৩ দিনব্যাপী বিশেষ মাহফিল রাজধানীর রাজারবাগ দরবার শরীফে অনুষ্ঠিত …

error: Content is protected !!