কেরানীগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ

ঢাকার কেরানীগঞ্জের তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে একই গ্রামরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে চারজন আহত হয়েছেন। ঘটনাটি কেরানীগঞ্জের শুভাঢ্যা উত্তরপাড়া হাজী নগর এলাকায়।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, রবিবার রাতে শুভাঢ্যা উত্তরপড়া হাজী নগর এলাকায় স্থানীয় দুই দোকানদারের মধ্যে বাকবিত-া ও হাতাহাতি হয়। বিষয়টি মিমাংসা করতে আসেন থানা যুবলীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক শরীফ আহম্মেদ ফালান। এসে দুই দোকানাদারকে থামানোর চেষ্টা করলে সেখানে উপস্থিত হন শুভাঢ্যা ১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো.সোহেল। সোহেলকে দেখে সোহেলের উপর ক্ষিপ্ত হয় ফালান। পরে তাদের মধ্যে হাতাহাতি ও বাকবিত-া হয়। তাদের হাতাহাতির বিষয়টি দুই গ্রামের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে ফালানে পক্ষের লোকজন এসে সোহেলের বাসায় হমলা করে। এ সময় সোহেলের পক্ষের তুহিন, সজিব,জনি ও ফারুক নামে চার লোক কে আহত হয়।

এ বিষয়ে ১ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মো: সোহেল বলেন, ফালান এলাকায় স্ট্যান্ডবাজি,চাদাবাজি থেকে শুরু করে নানান অপকর্মের সাথে জড়িত। এলাকার মানুষ ওর অত্যাচারে অতিষ্ট। এলাকায় নতুন কোন বাড়ি ঘর হলে ওর কাছ থেকে ইটাবালূ কিনতেই হবে। কেউ না কিনলেই ওর সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে নানান রকমের অত্যাচার শুরু করে। আমি মাঝে মধ্যেই ওর নানান সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে বাধা দেই। তাই কালকে তুচ্ছ ঘটনায় পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ও আমার বাড়িঘরে হামলা করে। এতে আমার বাড়ির প্রায় লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়। এবং আমার ভায়রা ও দোকনের কর্মচারীকে আহত করে ফালানের লোকজন বেশ কিছু নগদ টাকা নিয়ে যায় । আমি এ ঘটনায় ন্যায্য বিচার চাই।

তবে বিষয়টি অস্বীকার করে ফালান বলেন, আমি সোহেলের ওপর হামলা করি নি। আমি বিচার করছিলাম, সোহেল ই আমার ওপর হামলা করেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ বলেন, এ বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ পেয়েছি, আমরা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নিবো।#

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে যুবককে আটকে রেখে মারধরের অভিযোগ

ঢাকার কেরানীগঞ্জে  এক যুবককে আটকিয়ে রেখে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ।  এ ঘটনায় অভিযোগকারী মোহাম্মদ আমান …

error: Content is protected !!