শিবপুরে বড় ভাইয়ে জমি ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে দখলের অভিযোগ!

নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীর শিবপুর উপজেলায় মাছিমপুর ইউনিয়নের খড়িয়া গ্রামে বড় ভাই মো: আমানউল্লাহ সরকারের  পৈত্রিক সম্পত্তি দখলের অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাই ওসমান গনী সরকারে বিরুদ্ধে।এ সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ মীমাংসায় করতে কয়েক দয়া গ্রাম্য সালিশ বসলেও কোন কোল কিনা হয়নি।আমানুল্লাহ সরকারের অভিযোগ, বাড়িতে আসলে তাকে হত্যা, গুম ও গ্রাম থেকে অত্যাচার করে বের করে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে ছোট ভাই। অভিযোগের বিষয়ে অস্বীকার করেছেন ওসমান গনী সরকার।

মো: আমানউল্লাহ সরকার বলেন, আমরা ছয় ভাই বোন।পিতা মৃত মো: আবুল হাসিম সরকারের রেখে যাওয়া পৈতৃক সূত্রে জমির ৩০৭.৬২ শতাংশ। উক্ত জায়গা সবার মধ্যে সমান ভাগে বন্টন হওয়ার কথা কিন্তু ছোট ভাইয়ের যোগসাজশে তা সম্ভব হচ্ছেনা। ছোট ভাই ওসমান গনি সরকার ও মোমেন মিলিতভাবে আমার পাওনা পৈত্রিক সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করে রেখেছে।এনিয়ে বিভিন্ন জায়গায় বিচার, একাধিক ভার গ্রাম্য সালিশ ও আদালতে যাওয়ার পরও জমি ফিরিয়ে দিচ্ছে না ওসমান গনি। নিজের বাড়িতে আসলে আমাকে হত্যা, গুম ও গ্রাম থেকে অত্যাচার করে বের করে দেয়ার হুমকি দিচ্ছে। ওসমান গনি কৃষি অফিসে চাকরি করার সময় নানা রকম জমি কিভাবে নিজের নামে হাতিয়ে নিতে হয় সেই কৌশল তিনি জানেন।

তিনি আরো বলেন, জমি দখলের বিষয়ে আমি ইতিপূর্বে শিবপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছি। এবং উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সহ সকলের কাছে বিচার চেয়েছি। কিন্তু আমার ভাগের সম্পত্তি সমবন্টন আমি এখনোও বুঝে পাচ্ছিনা। আমার দাবী বাবার যে সম্পদ আছে সরকারি নিয়ম অনুযায়ী সঠিক ভাবে আমাদের সব অংশীদারের মাঝে যার যার হিস্যা মোতাবিক জমি যাতে বন্টন করে দেয়া হয়। আমি আমার জায়গা ভোগ করতে পারি, খারিজ করা সহ সরকারি খাজনা দিতে পারি।

অভিযোগের বিষয়ে ওসমান গনি সরকার বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগগুলি বড় ভাই করেছেন সবগুলোই ভূয়া এবং ভিত্তিহীন।আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি জায়গা মীমাংসা করতে কয়েক দফা সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের নিয়ে গ্রাম্য সালিশ বসানো হয়েছে এবং সমান ভাবে বন্টন করে দেয়া হয়েছে।কিন্তু তিনি তা মানেনি।আমার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বড় ভাই মো: আমানউল্লাহ সরকার গুজব রটাচ্ছেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

এবার নাটোরে শিয়াল আতংক, সংশ্লিষ্টরা দায় চাপলেন একে অন্যের ঘাড়ে

সজিবুল ইসলাম হৃদয়: নাটোরের লালপুর উপজেলার বিভিন্নস্থানে বেড়েছে শিয়াল আতংক। শেয়ালের কামড়ে ক্ষত-বিক্ষত হওয়ার খবর …

error: Content is protected !!