বাড়ি ফেরা হয়নি শাহাদাতের

জবি প্রতিনিধি:মাদারীপুরের শিবচরে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটের কাঁঠালবাড়ী ঘাট সংলগ্ন এলাকায় বাল্কহেডের  সাথে স্পিডবোটের সংঘর্ষের ঘটনায় ২৬জন নিহত হয়েছে এছাড়াও আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। এঘটনায় নিহতদের একজন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ম ব্যাচের শিক্ষার্থী শাহাদাত হোসেন (২৯)।
সোমবার (৩ মে) শিমুলিয়া থেকে  সকাল পৌনে ৭টায় ৩২ জন যাত্রী নিয়ে স্পিডবোটটি ছেড়ে আসে। এ সময় মাদারীপুর কাঁঠালবাড়ী বাংলাবাজার পুরোনো ঘাটে থেমে থাকা বালুবোঝাই একটি বাল্কহেডে ধাক্কা দিলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।
 নিহত শাহাদাত হোসেন মোল্লা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ৭ম ব্যাচের শিক্ষার্থী। সম্প্রতি মাদারীপুর থেকে ঢাকায় আসেন একটি চাকরির মৌখিক পরীক্ষা দিতে।
 জানা যায় , শাহাদাত হোসেনের গ্রামের বাড়ি মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার নিয়ামতকান্দী গ্রামে। তার বাবা আদম আলী মোল্লা ও মা রিজিয়া বেগম দম্পতির ছয় ছেলে ও চার মেয়ের মধ্যে সবার ছোট ছিলেন শাহাদাত।
 রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ থেকে অনার্স ও  এ বছর মাস্টার্স পাস করেন।চাকরির মৌখিক পরীক্ষা শেষে ঢাকা থেকে বাড়ি ফেরার পথে শিমুলিয়া ঘাট থেকে স্পিডবোটে উঠেন। নদীতে বালুবোঝাই একটি বাল্কহেডের সঙ্গে ধাক্কা লেগে স্পিডবোট ডুবিতে প্রাণ হারান।
 শাহাদাতের মৃত্যুতে শোকের স্তব্ধতা নেমে এসেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে।
 এ বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড.মোস্তফা কামাল বলেন, শাহাদাতের মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। এভাবে একজন মেধাবী শিক্ষার্থীর প্রাণ চলে গেল, কোনোভাবে মেনে নেয়া যায় না। স্পিডবোট চালকদের আরো প্রশিক্ষণ ও সতর্কতা মেনে চলতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি নজরদারির আহ্বান জানাই। তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই।
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটোগ্রাফি সোসাইটির সভাপতি রায়হান, সম্পাদক আবির

পল্লব সিয়াম: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ফটোগ্রাফি সোসাইটির নতুন কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়েছে। সংগঠনটির উপদেষ্টাদের স্বাক্ষরিত …

error: Content is protected !!