নরসিংদীতে অসভ্য আচরণের প্রতিবাদ করায় সাংবাদিকে মারধর

হৃদয় এস সরকার,নরসিংদী : নরসিংদীর পলাশে মসজিদে অসভ্যতার প্রতিবাদ করায় জাহিদুল ইসলাম জাহিদ নামে এক সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে মুঞ্জুর আলম ( ৫৫) তার দুই ছেলে সেতু (২৫) ও রেহান (২২) এর বিরুদ্ধে।

আজ শুক্রবার দুপুরে উপজেলার পলাশ শিল্পাঞ্চল কলেজ রোডে এই মারধরের ঘটনা ঘটে। এঘটনায় বিকেলে মারধরের শিকার সাংবাদিক জাহিদুল ইসলাম পলাশ থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। জাহিদুল ইসলাম জাহিদ দৈনিক বাংলাদেশ বুলেটিনের পলাশ উপজেলা প্রতিনিধি ও পলাশ উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের সিঃ সহ সভাপতি। অপরদিকে অভিযুক্ত মুঞ্জুর আলম নতুন বাজার গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী সাংবাদিক জানায়, শিল্পাঞ্চল কলেজ মসজিদে জুম্মার নামাজের আগ মুহুর্তে খুদবা পাঠকালীন সময় অভিযুক্ত মুঞ্জুর আলম মসজিদে চেয়ারে বসে পায়ের উপর পা তোলে তা নাড়াচারা করছিল। এসময় নামাজের জন্য পাশে বসা সাংবাদিক জাহিদ তাকে পা নামাতে বললে মুঞ্জুর আলম তার উপর ক্ষিপ্ত হয়। পরে নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হয়ে মুঞ্জুর আলম, তার দুই ছেলে সেতু ও রেহান মিলে মুসল্লিদের সামনে প্রকাশ্যে সাংবাদিক জাহিদকে কিলঘুষি মারতে থাকে।

এসময় বাঁধা দিতে গিয়ে কয়েজন মুসল্লিও আহত হয়। পরে আশে পাশের আরো মসল্লি ছুটে আসলে তারা পালিয়ে যায়। হামলার পর পুলিশ অভিযুক্ত মুঞ্জুর আলম ও রেহানকে আটক করে। এছাড়া আহত জাহিদকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

পলাশ থানার ওসি (তদন্ত) হুমায়ুন কবির জানায়, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই মারধরের ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী সাংবাদিকের পক্ষ থেকে থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় নিন্দা প্রকাশ করেছে স্থানীয় সাংবাদিক সংগঠন গুলো। তারা দ্রুত দোষীদের শাস্তির দাবি জানান।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে জেলা প্রশাসকের মতবিনিময়

কেরানীগঞ্জে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে মতবিনিময় করেছেন ঢাকা জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম। বৃহস্পতিবার সকালে …

error: Content is protected !!