নজরুলের জীবনের মতো নজরুলিয়ানদেরও সঠিক মূল্যায়ন হয়ত হবে না

 

নিজ ঘরেই পরবাসি’ এই কথাটার বাস্তব উদাহরণ হতে পারে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত প্রতিটি ‘নজরুলিয়ান’। যত বঞ্চনা, যাতনা, মিথ্যা আশ্বাস সব নজরুলিয়ানের জন্য। আর আমাদের বুক ফাটে তো মুখ ফোটে না। একজন নজরুলিয়ান সে শিক্ষক বা কর্মকর্তা যাই হোক তার চাকরি পাওয়াটাই যেন যথেষ্ঠর উপর অতিরিক্ত, যোগ্যতা অনু্যায়ী অন্য দায়িত্বের বেলাতেও এ বাবা এসব তোমাদের জন্য না, তোমরা ছোট ভার্সিটিতে পরেছ; তোমাদের লবিং তোমাদের অর্জিত সব তো গাও গেরামের। তুমি চাকরি পেয়েছ সেই নিয়ে সন্তুষ্ঠ থাকো।

সেই ছাত্রবেলা থেকেই দেখেছি দেশের নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রেজুয়েটরা এখানে জয়েন করে সময় গুনত কখন তার বিশ্ববদ্যালয়ে সার্কুলার হবে, যেই জায়গা পেয়েছে ওমনি দে দৌর, সাথে উপরি পাওনা ১.৫/২ বছরের অভিজ্ঞতা। তাদের কাওকে এই তীর্থ স্থানটা নিজের মনে করতে দেখি নি। তারা চলে গেল জায়গা খালি হলো তারাই আবার তাদের একটু পিছে থাকা বন্ধু, ছোট ভাইদের নিয়ে এসে আমাদের ধন্য করলেন। আর আমরাও তাদের বিদ্যাস্থানের গর্বে গর্বিত হতে লাগলাম। যখন আমাদের যোগ্যতা হলো তখন তারা এক্সপার্ট বানালেন তাদের সম্মানিত দেশ বরেণ্য কোন শিক্ষাবিদ কে। কিন্তু আমরা তাদের চোখে অযোগ্যই হয়ে রইলাম কিন্তু মাথা তুলে বলতে পারলাম না যে অযোগ্যতা আমাদের না বরং অযোগ্যতা আপনাদের কারন আপনি যাকে পড়িয়ে শিখিয়ে যোগ্য বানিয়ে এখানে পাঠিয়েছেন তিনি আমাকে তা বানাতে পারেন নি! এটা বলা যায় না কারন আমরা মুখে নজরুলিয়ান কিন্তু আদর্শে নজরুলের মতো দৃপ্তকণ্ঠ নই তাই নয় কি?

আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচেয়ে মেধাবি মুখটি যার ফলাফলে রাষ্ট্রপ্রধানের স্বীকৃতি রয়েছে তারাও ছাগলের ৩ নম্বর বাচ্চার মতো পাগলের ন্যায় ঘুরছে কোন রকম একটা চাকরির জন্য। আর তার কপাল পুড়ছে দেশের নামকরা কোন প্রতিষ্ঠানের কেও যাদের কিনা নিয়োগ যোগ্যতাও বিশেষ যোগ্যতা দিয়ে পূরণ করতে হয়!

এত চরাই উতরাই পেরিয়ে যদিও বা সে পেশায় যোগ দেয়ও তবে তার জন্য বঞ্চনা, কিছু ক্ষেত্রে লাঞ্চনা এবং দিন শেষে হতাশা অবধারিত।
নজরুলের জীবনের মতো নজরুলিয়ানদেরও সঠিক যোগ্যতার মূল্যায়ন হয়ত হবে না। চিটার, বাটপার, মিথ্যাবাদি আর টাকা খোরে ভরে গেছে দেশ। নজরুল তীর্থ তা থেকে বাদ যায়নি।

তাইতো নিজ ঘরে পরবাসি আমরা।
চরম সত্য এই, ব্রিটিশ রাজ নজরুলের সত্য বচন কে যেমন ভয় পেতো তেমনি এই সব আযোগ্য সুবিধাবাদীর দলেরও নজরুলিয়ানে খুব ভয়। আর এই ভয়েই এরা হারিয়ে যাবে।
প্রিয় নজরুলিয়ান, তোমাকে কেও ঘরে এসে দিয়ে যাবে না কারন এরা জানে আর কয়দিন বাদে এদের অযোগ্যতা আর মূল চরিত্র বেরিয়ে আসবে তাই এখন ওদের সব লাগবে, কিন্তু তুমি যদি আওয়াজ তোল ওরা বাতাস ছাড়তে ছাড়তে পালাবে। তোমার সব থেকে বড় যোগ্যতা তুমি নজরুলিয়ান।

লিখেছেন :ফাহাদুজ্জামান মো.শিবলী
সহকারী পরিচালক (শারীরিক শিক্ষা দপ্তর)
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়কে দুর্নীতি ও জঙ্গিবাদের কবল থেকে রক্ষার দাবি জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন

দেশের শীর্ষ¯’ানীয় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্থ সাউথকে দুর্নীতি ও জঙ্গিবাদের কবল থেকে রক্ষার দাবি জানিয়েছে প্রটেকশন …

error: Content is protected !!