নওগাঁয় পুলিশের সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষ, আহত ৫০

নওগাঁয় পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।

বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ বাধা দেওয়ায় বিএনপি নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে এক পর্যায়ে পুলিশের উপর চড়াও হয়ে ওঠেন ইটপাটকেল নিক্ষেপ, গাড়ী ও দোকানপাট ভাংচুর শুরু করে।

পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লাঠিচার্জ, রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এতে বিএনপির একজন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ৪০-৫০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

আহতরা বর্তমানে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীর রয়েছেন।

বিক্ষোভ মিছিল ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ঘটনারপর বিএনপির তিনজন নেতাকর্মীকে আটক করছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শহরের কেডির মোড়ে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে এই ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, সারাদেশে মানুষ হত্যা, খুন-গুমের প্রতিবাদে বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নওগাঁ জেলা বিএনপির আয়োজনে দলীয় কর্যালয়ের সামনে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এসময় উপস্থিত পুলিশ সদস্য তাদের মিছিলে বাঁধা প্রদান করে এবং দলীয় কার্যালয় থেকে চলে যেতে বলেন।

পুলিশ বিক্ষোভ সমাবেশে বাধা প্রদান করায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুড়তে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশও ফাঁকা গুলি, রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।

এসময় দফায় দফায় পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া সংঘটিত হয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করে পরিস্থিততি নিয়ন্ত্রন করাহয়।

জেলা যুবদলের সভাপতি বায়োজিদ হোসেন পলাশ বলেন, সারাদেশে মানুষ হত্যা, খুন-গুমের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নওগাঁয় দলীয় কর্যালয়ের সামনে শান্তিপূর্ন বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ বাঁধা প্রদান করে ও নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায়, এতে আমাদে একজন কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন এবং অন্তত ৪০-৫০ জন নেতাকর্মী আহত হয়ে হাসপাতাল ও বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

নওগাঁ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, এ ঘটনায় সদর থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। ঘটনায় জড়িত থাকায় ঘটনারপর তিনজনকে আটক করা হয়েছে। অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) রকিবুল আক্তার বলেন, বিএনপির সমাবেশ চলাকালে নেতাকর্মীরা কোন রকম উষ্কানি ছাড়াই অতর্কিত ভাবে পুলিশের উপর হামলা চালায় এঘটনায় অন্তত ৫-৭ জন পুলিশ সদস্য আহত হন। পরে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করা হয়েছে। এই নাশকতার সাথে জড়িতদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

মাধবপুরে নিষিদ্ধ রিং জাল দিয়ে মা মাছ শিকার

শেখ জহান রনি, মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের মাধবপুরে ভয়ঙ্কর চায়না রিং জালের ফাঁদে দেশীয় প্রজাতির …

error: Content is protected !!