কেরানীগঞ্জে তিন তলা ভবন ধস ; কোন প্রকার পাইলিং বা বেইজ ঢালাই ছাড়া ভবন নির্মাণ

কোন প্রকার পাইলিং বা বেইজ ঢালাই ছাড়া এবং অনুমোদনহীন ভাবে ২০০০ইং সালে পুকুরের পাড়ে একতলা ভবন তৈরি করে মালিক জানে আলম । মা বাবা পরিজন নিয়ে বসবাস শুরু করেন । পরিবার বড় হতে থাকলে তার ভবন আরো উচূ হতে থাকে।গত ২০ বছরে বিল্ডিং টি একতলা থেকে তিনতলা হয়। বিল্ডিং এর নিচের মাটি নরম হয়ে শুক্রবার সকালে ১৯ ফেব্রুয়ারী ধসে উল্টে যায়।এঘটনায় এলাকাবাসী ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা পরিবারের ৭জনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়।

আহতরা চিকিৎসা শেষে আতœীয়দের বাড়িতে অবস্থান করেন। বিল্ডিংটিতে জানে আলমের পরিবার ছাড়া অন্যকোন পরিবার বসবাস করতেন না। এঘটনায় উপজেলা প্রশাসন ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে আশপাশের একই রকম ঝুকিতে থাকা আরো ৫ টি বাড়ির বসবাসকারী সদস্যদের অন্যাত্র সরিয়ে বিদ্যুৎ-গ্যাস বিচ্ছিন্নের পর পরিত্যাক্ত ঘোষনা করে। এরপর উপজেলা প্রকৌশরীকে আহবায়ক করে ৭ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে তিন কার্যদিবস এর মধ্যে প্রতিবেদন পেশ করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।

পাশেবর্তী মোঃ মজিবুর রহমান জানান, সকালে বিকট আওয়াজে গ্রামবাসির ঘুম ভাঙ্গে আমি দৌড়ে আসি এসে দেখি আমার চাচাত ভাইয়ের ছেলে (ভাতিজা) জানে আলমের তিনতলা ভবনটি পিছন দিকে উল্টে পড়ে আছে। আমি বিল্ডিংটির ভিতরে মানুষের কান্নার আওয়াজ শুনতে পাই। তারা আমাদের বাচাও বাচাও বলে চিৎকার করতে থাকে এসময় আশপাশে লোকজন এসে ঝরো হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ আরিফুর রহমান জানান, ২০০০ইং সালে অপরিকল্পিত ভাবে কোন প্রকার আইনের তোয়াক্কা না করে অনুমোদনহীন ভাবে পুকুর পাড়ে বিল্ডিংটি তৈরি করে বিল্ডিংটির আশপাশের খালি জায়গা ভরাট করলে পুকুরটিসহ কিছু জায়গা পানিবন্দি হয়ে জলাশয়ের মত হয়ে পরে থাকে। সেই পানিতে জানে আলম এর বিল্ডিং এর নিচে মাটি নরম হয়ে এদূর্ঘটনা ঘটে।
প্রথমে আমরা ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করি। পরে ফায়ার সার্ভিস আসলে ভিতরে আটকে থাকা সকল সদস্যকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠাই ।
তদন্ত কমিটির আহবায়ক উপজেলা প্রকৌশরী ইঞ্জিনিয়ার শাহজাহান আলী জানান, আগামী সোমবার আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যাবো পরে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবো।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত দেবনাথ বলেন, আমরা খোজ খবর নিয়ে জেনেছি বিল্ডিং এর মালিক নিজেই পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন তাই আমাদের প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন সাহায্য সহযোগিতা করা হয়নি।
উল্লেখ্য, গত ১৯ ফেব্রুয়ারি সকালে ঢাকার কেরানীগঞ্জের মধ্য চড়াইল খেলার মাঠ এলাকার পাশে ডোবার পানিতে ধসে পরে ৩ তলা ভবন। পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ভবন থেকে আহত অবস্থায় ৭ জনকে উদ্ধার করে। #

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে বিভিন্ন খালের তীর ঘেষে অপরিকল্পিতভাবে গড়ে উঠেছে বহুতল ভবন

ঢাকার কেরানীগঞ্জে বিভিন্ন খালের তীর ঘেষে গড়ে উঠেছে একাধিক বহুতল ভবন। এসকল ভবনের অধিকাংশের নেই …

error: Content is protected !!