রাজবাড়ী পৌরসভায় নৌকা জিতলে উন্নয়নের জন্য ব্যাপক বরাদ্দ আসবে

শেখ রনজু আহাম্মেদ রাজবাড়ী প্রতিনিধি: রাজবাড়ীতে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এফবিসিসিআই)’র সভাপতি ও যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলে ফাহিম বলেছেন, রাজবাড়ী পৌরসভায় নৌকা জিতলে উন্নয়নের জন্য ব্যাপক বরাদ্দ আসবে। জলাবদ্ধতা নিরসন, আধুনিক সুযোগ-সুবিধাসহ পৌরবাসীর সব আকাঙ্খা পূরণ হবে।

 

গতকাল ১২ই ফেব্রুয়ারী বিকালে রাজবাড়ী শহরের ১ নং রেলগেট এলাকায় আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী মহম্মদ আলী চৌধুরীর নির্বাচনী পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। রাজবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগ আয়োজিত এ পথসভায় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনসমূহের নেতাকর্মীদের পাশাপাশি দল-মত নির্বিশেষে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

 

রাজবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি এডঃ উজির আলী শেখের সভাপতিত্বে ও দপ্তর সম্পাদক ফজলুল হক আবু’র সঞ্চালনায় পথসভায় প্রধান বক্তা হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী। আরও বক্তব্য রাখেন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) এর সভাপতি ডাঃ ইকবাল আর্সলান, আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মহম্মদ আলী চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকীর আব্দুল জব্বার, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক কামরুল ইসলাম লিংকন, সামিউল আমিন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক এডঃ মুক্তা আক্তার, উপ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হরে কৃষ্ণ বৈদ্য, উপ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম দুর্জয়, সদস্য সরদার মোহাম্মদ আলী মিন্টু, অলীদ হোসেন, এডঃ রেজাই রাব্বি, শেখ রবিউল ইসলাম, গৌতম গাঙ্গুলী, শেখ গিয়াস উদ্দিন, ইয়াসির আরাফাত রামিম, এস.এম আশরাফুল ইসলাম রতন, অভিমন্যু বিশ্বাস অভি, মোঃ আলামিন, এস.কে মহিউদ্দিন, তাজ উদ্দিন, হাসান খন্দকার, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ শেখ আব্দুস সোবহান, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইঞ্জিঃ আমজাদ হোসেন, জেলা জাসদের সভাপতি মুনিরুল হক মুনির, রাজবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম সফি, যুগ্ম-সম্পাদক ও পৌর নির্বাচন পরিচালনা কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম সোহাগ, যুগ্ম-সম্পাদক আতিকুল ইসলাম চৌধুরী রতন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হাফিজুর রহমান হাফিজ, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বককার খান, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাহিদা চৌধুরী তন্বি, জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি মীর মাহফুজা খাতুন মলি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এফবিসিসিআই’র সভাপতি ও যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলে ফাহিম আরও বলেন, উন্নয়ন, জলাবদ্ধতা নিরসনের ব্যবস্থা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন শহর, রাস্তা-ঘাট, সড়ক বাতি ভালো থাকা-এসবই চায় পৌরবাসী। তাদের এই আকাঙ্খাগুলো বাস্তবায়ন করতে হলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর কোন বিকল্প নাই। কারণ আওয়ামী লীগ সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা নিজে তাকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন। তার উপর আস্থা রেখেছেন। এ জন্য তিনি নির্বাচিত হলে উন্নয়নের জন্য ব্যাপক বরাদ্দ পাওয়া যাবে। প্রত্যাশিত উন্নয়ন হবে। পৌরবাসী শান্তিতে থাকতে পারবে। তাই তাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করতে হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী বলেন, রাজবাড়ী পৌরসভার উন্নয়ন করতে চাইলে নৌকা ছাড়া কোন বিকল্প নাই। এই নৌকা হচ্ছে স্বাধীনতার প্রতীক। এই নৌকা দিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে। নৌকা দিয়ে বাংলার মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটেছে। শেখ হাত ধরে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নগুলোকে বাস্তবায়ন করার জন্য তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। মহম্মদ আলী চৌধুরী দুই বার মেয়র থাকা অবস্থায় সব উন্নয়ন হয়নি। তার অসম্পূর্ণ কাজগুলো সম্পন্নসহ পৌরসভার সার্বিক উন্নয়নে নৌকায় ভোট দিয়ে তাকে আবারও মেয়র নির্বাচিত করুন।
পৌরবাসীর দোয়া ও ভোট চেয়ে মেয়র প্রার্থী মহম্মদ আলী চৌধুরী বলেন, আমি মহান আল্লাহ্র নিকট শুকরিয়া আদায় করছি এ জন্য যে, তার কৃপায় আমি এবার দিয়ে ৫ বার মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সুযোগ পেয়েছি। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি, কারণ তিনি আমাকে ভালোবেসে আমার উপর আস্থা রেখে বার বার আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন। ২ দফায় মেয়র নির্বাচিত হয়ে ১২ বছর দায়িত্ব পালনকালে অনেক কাজ করেছি। আবার অনেক কিছুই করতে পারি নাই। তবে আমি আমার সাধ্য অনুযায়ী নিষ্ঠার ও সততার সাথে দায়িত্ব পালন করেছি। মানুষ মাত্রই ভুল হয়। বিশেষ করে যারা কাজ করে, তাদের ভুল-ভ্রান্তি হতেই পারে। আমিও যেহেতু একজন মানুষ, সেহেতু আমারও ভুল-ত্রুটি হতে পারে। কেউ কেউ মনে আঘাতও পেয়ে থাকতে পারেন। এ জন্য আমি আন্তরিকভাবে আপনাদের নিকট ক্ষমা চাচ্ছি। আপনারা ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে পুনরায় নির্বাচিত করে আরেকবার পৌরবাসীর সেবা করার সুযোগ দিন। এছাড়াও তিনি তার বক্তব্যে মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে পৌরসভার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ও সফলতাগুলো তুলে ধরা, দলবাজী না করা, ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন ও পর্যাপ্ত সড়ক বাতির ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন এবং পুনরায় নির্বাচিত হতে পারলে ব্যাপক উন্নয়ন করাসহ বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দেন। এছাড়াও তিনি নিউ কলোনী এলাকার আরো উন্নয়নসহ সেখানকার বস্তিবাসীদের জন্য স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট ও বিদ্যুতের ব্যবস্থা এবং জলাবদ্ধতা নিরসনের পদক্ষেপ গ্রহণের আশ্বাস দেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

তিন জেলার মানুষ বিনামূল্যে পাবে চক্ষু চিকিৎসা

জবি প্রতিনিধি: পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও ও মানিকগঞ্জ এই তিন জেলায় অসহায়দের বিনামূল্যে চক্ষুসেবা দিতে চারটি চক্ষু …

error: Content is protected !!