এবিএম আনিছুজ্জামান আনিছকে পূনরায় মেয়র হিসাবে দেখতে চায় পৌরবাসী

স্টাফ রিপোর্টারঃ১৪ ই ফেব্রুয়ারী ত্রিশাল পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র পদপ্রার্থী ত্রিশাল পৌরসভার রুপকার দুই বারের সফল মেয়র আলহাজ্ব এবিএম আনিসুজ্জামান আনিস কে পুনরায় মেয়র হিসাবে দেখতে চাই ত্রিশাল পৌরবাসী।

উন্নয়ন এর রুপকার হিসাবে ব্যপক সুনাম রয়েছে আনিছ এর৷ ত্রিশাল পৌরবাসীর উন্নয়নে তার রয়েছে অনেক অবদান।গরিব এর বন্ধু এবং সাধারণ মানুষের অতি আপনজন তিনি। নির্বাচনের মাঠে সাধারণ মানুষ তাকেই আবার মেয়র হিসাবে দেখতে চাচ্ছে।

উল্লেখ্য- ১৯৯৮ সালে ত্রিশাল পৌরসভাটি (খ) শ্রেণীতে প্রতিষ্ঠা লাভ করার পর
অস্থায়ী কার্যালয়, নিন্ম আয় আর কর্মচারীদের বকেয়া বেতনের হাহাকার ছিল ত্রিশাল পৌরসভায়। আয় না থাকায় নাগরিদের সুবিধা না দিতে পেলেও উল্টো নাগরিকদের উপরেই প্রভাব পরতো অর্থনৈতিক চাপের। কোন নাগরিকের পৌরসুবিধা না পেলেও ট্যাক্স বহন করতেই হতো। এভাবেই চলতে থাকে ২০১০সাল পর্যন্ত। পৌর এলাকার লোকের পৌরসভার সুবিধা না পেয়ে তাদের মুখে মুখে কথা ছিল পৌরসভা থেকে ইউনিয়ন পরিষদ ভালো ছিল। এভাবেই যখন চলছিল ১২ বছর ২০১১ সালে পৌর নির্বাচন কাছাকাছি তখনকার সময়ে উপজেলায় জনপ্রিয় নেতা আলহাজ্ব এবিএম আনিছুজ্জামান আনিছ মেয়র পদে নির্বাচন করতেন । নির্বাচনে জয়ী হয়ে আওয়ামীলীগের মেয়র হওয়ায় এবং দল ক্ষমতা থাকাই দলের মন্ত্রীদের সুদৃষ্টি আসে ত্রিশাল পৌরসভার প্রতি ।

প্রথমেই বিশাল পৌরভবন নির্মান এর উদ্বোধক ছিলেন, প্রয়াত বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও স্থানীয় এমপি রেজা আলী। ভাগ্য খোলে যায় ত্রিশাল পৌরবাসীর। শুরু হতে থাকে ত্রিশাল পৌরসভা উন্নয়ন। মেয়রের প্রচেষ্টায় প্রথমেই পৌরসভা শুরু হয়( ক) শ্রেণীতে উন্নতি হয়।এরপর পৌরবাজারকে শহরে উন্নয়ন, পৌরশহরের বিভিন্ন মহল্যার রাস্তাগুলো আর সিসি ঢালাই, এবং যাতায়াতের সুবিধার জন্য লাইটিং, পৌর ব্যবসায়ীদের জীবনমান উন্নয়নে একাধিক বিশাল মার্কেট, পৌর শহর হতে বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাঁচা রাস্তাগুলো উন্নতমানের করে পাকাকরণ, বিদ্যুৎ , পানি ও গ্যাসের ব্যবস্থা করে দেওয়া, পানি নিষ্কাশনে বিশাল বড় বড় ড্রেন নির্মাণ, ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপন, উন্নত শহর প্রতিষ্ঠা পরিকল্পনায় ঘনবসতি অঞ্চলে যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপন, পৌরবাজারে নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সিসিক্যামেরা স্থাপন, সকল ওয়ার্ডের বয়স্ক মানুষের জন্য শতভাগ বয়স্ক ভাতার ব্যবস্থা করা, বিধবা ভাতা, মাতৃ ভাতা ও প্রদান। ত্রিশাল পৌর এলাকায় প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে খোজ খবর নিয়ে ছাত্র-ছাত্রী শিক্ষার মান উন্নত করতে সুপরামর্শ দেওয়া, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গুলোতে অর্থনৈতিক সহায়তা, করোনাকালীন সময়ে সরকারি ত্রাণের পাশা-পাশি নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মুলধনের অর্থ থেকে
বিশাল অর্থনৈতিক সহয়তা প্রদান, পৌরশহরে মাস্ক বিতরণ, শিশু খাদ্য বিতরণ, প্রতিটি শিশুদের টিকা দেওয়াসহ সকল নাগরিক সুবিধা দিতে পাশে থাকেন মেয়র আনিছ। পৌরবাসী তৃতীয় মেয়াদে আলহাজ্ব এবিএম আনিছুজ্জামান আনিছকে মেয়র হিসেবে দেখতে চান।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

লালপুরে ৮০ বছরের বৃদ্ধের আত্মহত্যা

লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধিঃ  নাটোরের লালপুরে বিষপান করে জলিল খামারু (৮০) নামের এক বৃদ্ধ আত্মহত্যা করেছে। …

error: Content is protected !!