নকলা পৌরসভায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হলেন যারা

রাইসুল ইসলাম রিফাত (শেরপুর প্রতিনিধি):শেরপুর জেলার নকলা পৌরসভা নির্বাচনে মো. সারুয়ার আলম (উট পাখি), মো. জরিফ হোসেন (পানির বোতল), নূরে আলম সিদ্দিক (পাঞ্জাবী), ফরিদ আহম্মেদ (উট পাখি), মো. তোতা মিয়া (উট পাখি), মো. জিয়াউল হক (পনির বোতল), মো. ইয়াদ অলী (টেবিল ল্যাম্প), মো. রফিকুল ইসলাম (ডালিম) ও মো. ইন্তাজ আলী (পানির বোতল) বেসরকারি ভাবে সাধারণ কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

৩০ জানুয়ারি শনিবার সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহন ও গণনা শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী সাধারণ কাউন্সিলর হিসেবে ১ নং ওয়ার্ডের মো. সারুয়ার আলম উট পাখি প্রতীকে ৪৯০ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. ছায়েদুর রহমান টেবিল ল্যাম্প প্রতীকে ৪১২ ভোট পেয়েছেন। তাছাড়া মো. শরিফুল ইসলাম ডালিম প্রতীকে পেয়েছেন ৩১৭ ভোট ও মো. নূর মামুদ পানির বোতল প্রতীকে ২০৯ ভোট পেয়েছেন।

২ নং ওয়ার্ডের মো. জরিফ হোসেন পানির বোতল প্রতীকে ৯২৪ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. ফরিদুল ইসলাম উট পাখি প্রতীকে ৬১২ ভোট পেয়েছেন। তাছাড়া মো. নজরুল ইসলাম ডালিম প্রতীকে ১৯৭ ভোট পেয়েছেন।

৩ নং ওয়ার্ডের নূরে আলম সিদ্দিক পাঞ্জাবী প্রতীকে ৬৪৪ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. ফিরোজ মিয়া উট পাখি প্রতীকে ৫৩৫ ভোট পেয়েছেন। তাছাড়া মো. রিপন মিয়া পানির বোতল প্রতীকে ৩৫০ ভোট পেয়েছেন।

৪ নং ওয়ার্ডের ফরিদ আহম্মেদ উট পাখি প্রতীকে ৯৮৬ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. হাবুল উদ্দিন টেবিল ল্যাম্প প্রতীকে ৮৬৩ ভোট পেয়েছেন। তাছাড়া মো. আব্দুল জলিল পানির বোতল প্রতীকে ৬৮৯ ভোট পেয়েছেন, জাহাঙ্গীর হোসেন বুলবুল ডালিম প্রতীকে ১৪ ভোট ও মো. শওকত হোসেন মিন্টু ব্রীজ প্রতীকে পেয়েছেন ১৩ ভোট।

৫ নং ওয়ার্ডের মো. তোতা মিয়া উট পাখি প্রতীকে ১ হজোর ১২৩ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. শফিকুল হাসান রুবেল ডালিম প্রতীকে ৫৮১ ভোট পেয়েছেন। তাছাড়া মো. ছাদেক হোসেন পাঞ্জাবী প্রতীকে ৪৭৮ ভোট পেয়েছেন, মো. শফিউদ্দিন টেবিল ল্যাম্প প্রতীকে ২৩৫ ভোট, মো. হালিম ব্রীজ প্রতীকে পেয়েছেন ৩৫ ভোট।

৬ নং ওয়ার্ডের মো. জিয়াউল হক পনির বোতল প্রতীকে ৯১৫ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. রেজাউল করিম গাজর প্রতীকে ৮১০ ভোট পেয়েছেন। তাছাড়া মো. আব্দুল আউয়াল সেলিম ব্রীজ প্রতীকে পেয়েছেন ৬৭৪ ভোট, মো. ফজলুর রহমান উট পাখি প্রতীকে ৫৫৫ ভোট, হেকমত ডালিম প্রতীকে পেয়েছেন ৩৪ ভোট।

৭ নং ওয়ার্ডের মো. ইয়াদ অলী টেবিল ল্যাম্প প্রতীকে ৬৭৩ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. বেলায়েত হোসেন উট পাখি প্রতীকে ৪৯৯ ভোট পেয়েছেন। তাছাড়া জাহাঙ্গীর আলম ব্রীজ প্রতীকে পেয়েছেন ৪৮৮ভোট, মো. ফজলুর রহমান পাঞ্জাবী প্রতীকে ২৯১ ভোট, মো. আমিরুল ইসলাম ডালিম প্রতীকে পেয়েছেন ৪ ভোট।

৮ নং ওয়ার্ডের মো. রফিকুল ইসলাম ডালিম প্রতীকে ১ হাজার ১২১ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. লোকমান হোসেন উট পাখি প্রতীকে ১ হাজার ২৫ ভোট পেয়েছেন। তাছাড়া মো. নজরুল ইসলাম পানির বোতল প্রতীকে ২৭৫ ভোট পেয়েছেন।

৯ নং ওয়ার্ডের মো. ইন্তাজ আলী পানির বোতল প্রতীকে ১ হাজার ৬৮ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. হেলাল উদ্দিন উট পাখি প্রতীকে ৮৬১ ভোট পেয়েছেন। তাছাড়া মো. আনিছুর রহমান পাঞ্জাবী প্রতীকে পেয়েছেন ৬৩৩ ভোট।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

‘আস্থার আলো আনোয়ারা’র উদ্যোগে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত

এম.এম.জাহিদ হাসান হৃদয় (আনোয়ারা, চট্টগ্রাম):  আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আনোয়ারা উপজেলার সামাজিক সংগঠন “আস্থার আলো …

error: Content is protected !!