স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ঘোড়াশালে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী শরিফুলের নির্বাচনী জনসভা

হৃদয় এস সরকার,নরসিংদী: করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কায় সতর্ক থাকার সময়ে নরসিংদীর ঘোড়াশালে বর্তমান পৌর মেয়র ও এবারের পৌর নির্বাচনে  আ.  লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী শরিফুল হক কোন প্রকার স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে এক বিশাল নির্বাচনী শোডাউন ও জনসভা করেছেন।এতে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি ছিল।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলা পলাশ বাসস্ট্যান্ডে নির্বাচনী জনসভা অনুষ্ঠানে হাজার হাজার মানুষের সমাগম ঘটে।এই সময় বাসস্ট্যান্ডে তিল ধারণেরও জায়গা ছিলোনা। দুপুর ৩ টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে এই সভা।

পুরো সভা জুড়ে অসংখ্য মানুষ ঘন্টার পর ঘন্টা মাস্ক না পরে, শারীরিক দূরত্ব বজায় না রেখে অবস্থান করেন। স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধ করার জন্য সোশ্যাল ডিসট্যান্স বা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। অন্যদের কাছ থেকে কমপক্ষে এক মিটার বা তিন ফুট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। নাহলে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাবে। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অন্যের জীবনকে ঝুঁকির মুখে ফেলে এমন জনসভাসের বিরুদ্ধে অনেকেই নিন্দা জানিয়েছেন।


যেদিকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ও শীতকালে সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কায় সরকার নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।এর মধ্যে একটি সব জায়গায় নো মাস্ক-নো সার্ভিস নীতি বাস্তবায়নের নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।জনসভায় ঘোড়াশাল পৌর সভার মেয়র শরিফুল হকের সভাপতিত্বে নির্বাচিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, পলাশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুল কাদের মৃধা, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফরোজা দিলিপ, উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ জাবেদ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরি সদস্য মাহফুজুল হক টিপু, ঘোড়াশাল পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম শফি প্রমুখ বিভিন্ন স্বাস্থ্য সংস্থা সবাইকে যে বিষযটির দিকে খেয়াল রাখতে বলছেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, অর্থাৎ অন্যদের কাছ থেকে শারীরিকভাবে খানিকটা দূরে থাকা। এতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়ার সম্ভব। সতর্কতা হিসেবে ভিড় এড়িয়ে চলারও পরামর্শ দিয়েছে তারা। ভিড়ের মধ্যে গেলে কোভিড-১৯ আক্রান্ত কারো সংস্পর্শে যাওয়ার ঝুঁকি বাড়ে। হাঁচি, কাশি বা কথা বলার সময় মানুষের নাক বা মুখ থেকে যে ড্রপলেটস বের হয়, তাতে ভাইরাস থাকতে পারে, আর আক্রান্ত ব্যক্তির খুব বেশি কাছে গেলে শ্বাস-প্রশ্বাসের সাথে এই ড্রপলেটস কোভিড-১৯ এর ভাইরাস অন্য মানব দেহে সহজেই ঢুকে পারে।

নরসিংদী জেলা সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৩ জানুয়ারী পর্যন্ত নরসিংদী জেলা মোট করোনা পজিটিভ সনাক্তের সংখ্যা ২৭৬৫জন। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ১৬৩৯জন, শিবপুরে ২৭৮জন,পলাশে ৩১৪জন, মনোহরদীতে ১৮৮ জন, বেলাবোতে ১৫৯ জন, রায়পুরাতে ১৮৫জন। এবং মৃত হয়েছে মোট ৫১জনের। সদর ২৯জন,পলাশ ০২জন, বেলাব ০৬জন , রায়পুরা ০৬জন, মনোহরদী ০২জন, শিবপুর ০৬জন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

মাধবপুরে পাটের ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

  শেখ জাহান রনি, মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় মাধবপুর উপজেলায় পাটের ফলন ভালো …

error: Content is protected !!