মারামারি

কেরানীগঞ্জে পুলিশের সাথে ছাত্রলীগের মারামারি

ঢাকার কেরানীগঞ্জে পুলিশের সাথে ছাত্রলীগের মারামারি ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫ পুলিশ সদস্য সহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, মডেল থানা ছাত্রলীগ নেতা মো: রুবেল কে মডেল থানা এলাকা থেকে সন্দেহভাজন ভাবে গ্রেফতার করে   কেরানীগঞ্জ মডেল থানার উপপরিদর্শক শফিউল আযম। এ সময় রুবেলের সাথে থাকা ২০/২৫ লোক শফিউল আযমকে ঘেড়াও করে। ছাত্রলীগের কর্মীদের সাথে শফিউল আযমের এসময় বাক বিতর্ক এবং মারামারি হয়। এক পর্যায়ে শফিউল আযমের মোবাইল ফোনটি ছিনিয়ে নেয়া হয়।

দ্রুত গতিতে শফিউল আলম রুবেলকে নিয়ে মডেল থানায় চলে আসেন। খবর পেয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মডেল থানার সামনে জড়ো হতে থাকে।  এর পরে প্রায় ২৫/৩০ জনের একটি দল নিয়ে মডেল থানায় প্রবেশ করেন  কলাতিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাহের আলী ও শাক্তা ইউপি চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন লিটন। ইউপি চেয়ারম্যান তাহের আলীর সাথে সফিউল আযমের বাকবিতন্ডের এক পর্যায়ে সংঘর্ষ শুরু হয়। তাহের আলী, সফিউল আযম সহ প্রায় ১৫ জন আহত হয়।

পরে খবর পেয়ে জিনজিরা ইউপি চেয়ারম্যান সাকু সহ আওয়ামীলীগের অনেক সিনিয়র নেতারা এসময় থানায় আসতে থাকে। রাত ১১.৩০ দিকে  দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেন। ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইদুর রহমান এক প্লাটুন পুলিশ নিয়ে আসেন।

ভোর ৪টা পর্যন্ত সবার সাথে আলোচনার পরিপেক্ষিতে রুবেল কে ছেড়ে দেয়া হয়।

শফিউল আযমের সাথে কথা বললে তিনি ঘটনার সতত্যা নিশ্চিত করেছেন। মুঠোফোনে কলাতিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাহের আলীকে পাওয়া যায় নি।

আরো পড়ুন :  হতাশ ইসলামপুরের ব্যবসায়ীরা।

 

সুত্র: দৈনিক সমকাল

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

দুর্গাপুরে বাজারের ভিতর দিয়ে বালুবাহী যানবাহন বন্ধের মানববন্ধন

পলাশ সাহা,নেত্রকোনা(দুর্গাপুর)প্রতিনিধিঃ নেত্রকোনা জেলার সুসং দুর্গাপুরে শহরের ভিতর দিয়ে সকল ধরনের বালুবাহী যানবাহন বন্ধে মানববন্ধন …

15 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!