গুচ্ছ পদ্ধতিতে থাকছে ১৯ বিশ্ববিদ্যালয়,পরীক্ষা হবে এমসিকিউ পদ্ধতিতে

জবি প্রতিনিধিঃ গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা নিবে বাংলাদেশের ১৯টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। উচ্চ মাধ্যমিকের পাঠ্যসূচির ওপর ভিত্তি করে প্রণীত এমসিকিউ প্রশ্নপত্র দিয়ে বিজ্ঞান,মানবিক ও বাণিজ্য ইউনিটে ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে থাকছেনা বিভাগ পরিবর্তনের কোন সুযোগ। সেকেন্ড টাইমারদের জন্য পরীক্ষার ব্যবস্থা থাকলেও শুধুমাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব চাহিদা অনুসারে ভর্তির সুযোগ থাকছে সেক্ষেত্রে ।

শনিবার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সভা কক্ষে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের ভর্তির জন্য সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের উপাচার্যবৃন্দের সমন্বয়ে গঠিত কমিটির প্রথম সভায় এসব সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান।

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি কমিটির ১ম সভায় নিম্নলিখিত সিদ্ধান্তসমূহ গৃহীত হয়।

১। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়সহ (জবি) সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা ১০০ নম্বরে অনুষ্ঠিত হবে।

২। ভর্তি পরীক্ষায় কেউ পাশ বা ফেল করবে না। প্রত্যেকেই পরীক্ষার ভিত্তিতে একটি স্কোর পাবে। পরবর্তীতে সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি গুচ্ছভুক্ত প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় নিজস্ব শর্তের ভিত্তিতে ভর্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে এবং সম্মিলিত ভর্তি পরীক্ষায় ফলাফলের ভিত্তিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করবে।

৩। আবেদনের যোগ্যতা:
যে সকল শিক্ষার্থী ২০১৯ বা ২০২০ সালে এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ তারাই আবেদন করতে পারবে। ভর্তিচ্ছু আবেদনকারীর বিজ্ঞান শাখার জন্য ন্যূনতম জিপিএ ৭.০, বাণিজ্য শাখার জন্য ন্যূনতম জিপিএ ৬.৫ এবং মানবিক শাখার জন্য নূন্যতম জিপিএ ৬.০ থাকতে হবে। তবে প্রত্যেক শাখাতে (বিজ্ঞান/বাণিজ্য/মানবিক) এস এস সি এবং এইচ এইচ সি পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ ৩.০ থাকতে হবে।

৪। ভর্তি পরীক্ষায় বিষয়সমূহের মানবণ্টন:

ক. বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে : ভাষা ২০ (বাংলা ১০ + ইংরেজি১০), পদার্থ বিজ্ঞান ২০, রসায়ন ২০, গণিত/ জীববিজ্ঞান/ আইসিটি ৪০ ( যে কোন দুটি বিষয়) সর্বমোট ১০০।

খ. বাণিজ্যের ক্ষেত্রে: ভাষা ২৫ (বাংলা ১৩ + ইংরেজি ১২), হিসাববিজ্ঞান ২৫, ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা ২৫) এবং আইসিটি ২৫, সর্বমোট ১০০।

গ. মানবিকের ক্ষেত্রে : বাংলা ৪০, ইংরেজি ৩৫ এবং আইসিটি ২৫, সর্বমোট ১০০।

৫. বিজ্ঞান, বাণিজ্য ও মানবিক শাখার পরীক্ষার্থীরা নিজ নিজ গ্রুপে পরীক্ষা দিয়েই বিভাগ পরিবর্তন করতে পারবে।

৬. ভর্তি পরীক্ষা গুচ্ছ পদ্ধতিতে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে অনুষ্ঠিত হবে।

৭. ভর্তি পরীক্ষা গুচ্ছভুক্ত সবকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে।

৮. এছাড়াও সভায়, ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি (গাজীপুর) এর মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর এর নেতৃত্বে ‘টেকনিক্যাল সাব কমিটি’ এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ এর নেতৃত্বে ‘অর্থ-কমিটি’ গঠন করা হয়েছে।

সভা শেষে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, কমিটি ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থীদের একটি স্কোর দেবেন। এ গুচ্ছের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নিজ নিজ শর্ত ও চাহিদা উল্লেখ করে শিক্ষার্থী ভর্তির বিষয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন প্রকাশ করবে। স্কোর নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো শিক্ষার্থী ভর্তি করবে। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে অঞ্চলভিত্তিক পরীক্ষা হবে। এক্ষেত্রে ধারণ ক্ষমতার বেশি শিক্ষার্থী আবেদন করলে পরীক্ষার ভেন্যু বাড়ানো যেতে পারে।

উল্লেখ্য, গুচ্ছ পদ্ধতির বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো:
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

লকডাউনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জবিতে চলবে দাপ্তরিক কার্যক্রম

জবি প্রতিনিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করে আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত দাপ্তরিক কার্যক্রম পরিচালিত …

error: Content is protected !!