শহীদ বুদ্ধিজীবিদের স্মরণে কেরাণীগঞ্জ গ্র্যাজুয়েট সোসাইটির আলোর মিছিল

শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষে  প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও মোমবাতি জ্বালিয়ে আলোর মিছিলের মাধ্যমে ১৯৭১ এর ১৪ ডিসেম্বর পাকিস্তানী দোসরদের হাতে নিহত বুদ্ধিজীবিদের স্মরন করলো কেরানীগঞ্জ গ্র্যাজুয়েট সোসাইটি ।

দিবসটি পালন উপলক্ষে ১৩ ডিসেম্বর রবিবার বিকেল ৪ টা  থেকে সম্পূর্ন অরাজনৈতিক এই  সংগঠনটির উদ্দ্যোগে কেরাণীগঞ্জ উপজেলা চত্বরে   শুরু হয় সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা। করোনা মহামারীর কারনে এবার সীমিত পরিসরে করা হয় কেরানীগঞ্জ গ্রাজুয়েট সোসাইটির আয়োজন।  দিনের আলো নিভে গিয়ে যখন অন্ধকার নেমে আসে ঠিক তখনই  মোমবাতি প্রজ্জলন করে আলোর মিছিলের মাধ্যমে ৭১ এ শহীদ বুদ্ধিজীবিদের স্মরণ করা হয় । করোনা কালীন সময়ের জন্য এ সময় সকলে কালো মাস্ক পরে অংশগ্রহন করেন।

কেরানীগঞ্জ  উপজেলার বিভিন্ন শ্রেনীর জনগন , স্কুল কলেজের ছাত্র ছাত্রী, সাংবাদিক, সামাজিক ব্যাক্তিত্ব ও উপজেলা প্রশাসনের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত   আলোর মিছিলটি  উপজেলা শহীদ মিনার থেকে শুরু হয়ে   কয়েকটি সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা প্রাঙ্গনে এসে শেষ হয়।  পরে শহীদ মিনারের শহীদ বেদীতে  পুস্পার্পনের মাধ্যমে ৭১’এর শহীদ বুদ্ধিজীবিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে শেষ হয়।

সংক্ষিপ্ত এক ব্ক্তব্যে  ম. ই মামুন বলেন, প্রতিবছর বাঙালী জাতির সূর্য সন্তান শহীদদের  প্রতি আমাদের বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের লক্ষ্যে কেরানীগঞ্জ গ্র্যাজুয়েট সোসাইটির উদ্দ্যোগে কেরানীগঞ্জের সর্বস্তরের জনগনকে সাথে নিয়ে আমরা আলোর মিছিলসহ নানান আয়োজন করে থাকি। করোনার কারনে আমাদের এবারের আয়োজন সীমিত করা হয়েছে। আমাদের জাতীয় ইতিহাসের শ্রেষ্ঠতম অধ্যায় হলো একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ। স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন ইতিহাসের মহানায়ক। স্বাধীনতা যুদ্ধের শেষ পর্যায়ে এসে পাকিস্তান বাহিনী যখন বুঝতে শুরু করে যে তাদের পক্ষে যুদ্ধে জেতা সম্ভব না, তখন তারা নবগঠিত দেশকে সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও শিক্ষাগত দিক থেকে দূর্বল এবং পঙ্গু করে দেওয়ার জন্য পরিকল্পনা করতে থাকে। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী ১৪ ডিসেম্বর রাতে পাকিস্তানী বাহিনী তাদের দেশীয় দোসর রাজাকার, আলবদর ও আল শামস বাহিনীর সহায়তায় দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের নিজ নিজ গৃহ হতে তুলে এনে নির্মম নির্যাতনের পর হত্যা করে। এরপর ১৬ ডিসেম্বর স্বাধীনতা লাভের মধ্য দিয়ে যুদ্ধের পরিসমাপ্তি ঘটে। পৃথিবীর মানচিত্রে জন্ম নেয় বাংলাদেশ নামের নতুন একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশ।

কেরাণীগঞ্জ গ্র্যাজুয়েট সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম মামুনের নেতৃত্বে আয়োজিত এ আলোর মিছিলে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কামরুল হাসান সোহেল, কোন্ডা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ফারুক চৌধুরী, গ্রাজুয়েট সোসাইটির গভর্নিং বডির সদস্য জাকির আহমেদ, সাইফুল ইসলাম শরীফ, মো: রাহাত সহ কেরানীগঞ্জ গ্রেজুয়েট সোসাইটির অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আরো পড়ুন: কে জি এসের মাধ্যমে বিশ্ববাসী কেরানীগঞ্জকে চিনবে

নিউজ ঢাকা ২৪।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে নৈশ্য প্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা

কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন আতাসুর এলাকায় সামছ’ল হক (৪৪) নামের এক নৈশ্য প্রহরীকে উপর্যপুরি কুপিয়ে হত্যা …

error: Content is protected !!