দুর্গাপুর মুক্ত দিবস উপলক্ষে পথ পাঠাগারের উদ্যোগে শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা

 

পলাশ সাহা, নেত্রকোনা ( দূর্গাপুর) প্রতিনিধিঃ  ৬ই ডিসেম্বর দুর্গাপুর মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে বাংলার দামাল ছেলেদের রক্তক্ষয়ী লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে নেত্রকোণার সীমান্তবর্তী দুর্গাপুর উপজেলা কে মুক্ত করেন।

১৯৭১ সালের ৫ ডিসেম্বর বিকাল থেকেই বীর মুক্তিযোদ্ধারা দুর্গাপুর উপজেলার চারদিক ঘিরে রাতভর রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে বিরিশিরি এলাকায় পাক হানাদার বাহিনীর শক্তিশালী ঘাঁটির পতন ঘটায়। ভোর হওয়ার পূর্বেই এই হানাদার বাহিনী রাতের অন্ধকারে পালিয়ে যায়। ৬ ডিসেম্বর সকাল থেকেই জয় বাংলা ধ্বনিতে আকাশ বাতাস প্রকম্পিত করে তোলে মুক্তিকামী জনতা। ঝাঁকে ঝাঁকে মুক্তিকামী মানুষ ঘর থেকে রাস্তায় বেড়িয়ে আসে। হানাদারদের ঘাঁটিতে উড়ানো হয় স্বাধীন বাংলার পতাকা।

এ উপলক্ষে পথ পাঠাগার সকাল থেকেই নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় পালন করে।৬ ডিসেম্বর উপলক্ষে পথ পাঠাগার শিশু  কিশোরদের নিয়ে এক চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার আয়োজন করে এবং শিশু দের মাঝে এ দিবস নিয়ে আলোচনা করে এবং বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করে। এসময় উপস্থিত ছিলেন পথ পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও দুর্গাপুর সাহিত্য সমাজের সভাপতি কবি নাজমুল হুদা সারোয়ার ও মনবতার ফেরিওয়ালা নামে খ্যাত রিক্সা চালক তারা মিয়া,এবং অন্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন পথ পাঠাগারের যুগ্ম সম্পাদক সাংবাদিক রাজেশ গৌড়, পথ পাঠাগারের প্রচার সম্পাদক টুকু সাহা,পথ পাঠাগারের পাঠাগার সম্পাদক সাংবাদিক পলাশ সাহা, পথ পাঠাগারের সদস্য শুভ ও প্রতিযোগি দের অভিভাবক বৃন্দ।

এসময় মনবতার ফেরিওয়ালা নামে খ্যাত রিক্সা চালক তারা মিয়া বলেন
এমন একটি ব্যতিক্রমধর্মী কার্যক্রম আমাদের মুগ্ধ করেছে। আমরা চাই পথ পাঠাগার এমন আরো ভিন্ন রকম কার্যক্রমের মাধ্যমে আরো সামনে এগিয়ে যাক।

পড়ে পথ পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি নাজমুল হুদা সারোয়ার বলেন – দিন দিন শিক্ষার্থীদের পাঠের অভ্যাস কমে যাচ্ছে। প্রযুক্তিনির্ভরতা,ফেসবুক আসক্তির কারণে শিক্ষার্থীরা পড়ার টেবিল থেকে দূরে সড়ে যাচ্ছে ক্রমাগত। আমরা চাই পথ পাঠাগারের মাধ্যমে ছাত্র শিক্ষক ও সাধারণ মানুষের মাঝে পাঠের অভ্যাস গড়ে তুলতে।

এসময় অভিভাবকরা পথ পাঠাগারের কার্যক্রম কে সাধুবাদ জানায়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ঈদ উপহার নিয়ে মানুষের দোয়ার দোয়ারে কামরুল হাসান রিপন

৬৭ ও ৬৮ নং ওয়ার্ডের ১০০০ পরিবারকে ঈদ উপহার দিলেন কামরুল হাসান রিপন স্টাফ রিপোর্টার …

error: Content is protected !!