মুক্তিযোদ্ধা আতিক উল্ল্যাহ চৌধুরী হত্যা মামলায় ৭ জনের ফাঁসি ১ জন খালাস

কেরানীগঞ্জে সাবেক আওয়ামীলীগ নেতা ও কোন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিক উল্ল্যাহ চৌধুরীর হত্যা মামলায় ৭ জনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে বিজ্ঞ আদালত। আজ (গতকাল) ২ ডিসেম্বর বুধবার দ্রæত বিচার ট্রাইবুনাল- ১ এর বিজ্ঞ বিচারক আবু জাফর মোহাম্মাদ কামরুজ্জামান এই রায় দেন। ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলো গোলজার হোসেন, শিবু,আসিফ,তানু,টুন্ডা আমিন,ইমন ও জাহাঙ্গীর। মামলার আরেক আসামি শম্পাকে বেকসুর খালাস প্রাধান করা হয়।

চাঞ্চল্যকর এই রায়ের সাক্ষী হতে সকাল থেকেই উপজেলার ভিন্ন প্রান্ত থেকে শতশত উৎসুক মানুষ আদালতের সামনে ব্যানার, পোষ্টার ও ফেষ্টুন নিয়ে দাঁড়িয়ে রায়ের অপেক্ষায় ছিলো। তাই রায় পেয়ে খুশি এলাকাবাসী। অন্যদিকে রায় শুনার পর আসামি স্বজনরা কান্নায় ভেঙে পড়ে।

মামলার বাদী ও নিহতের ছেলে সাঈদুর রহমান ফারুক চৌধুরী বলেন, আমি রায়ে সন্তুষ্ট। যত দ্রæত সম্ভব এর বাস্তবায়ন আশা করছি।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১০ ডিসেম্বর নিখোঁজ হন বীরমুক্তিযোদ্ধা ও তৎকালীন ইউপি চেয়ারম্যান আতিক উল্ল্যাহ চৌধুরী। পরদিন ১১ ডিসেম্বর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের দোলেশ্বর এলাকার সরকারী ১০ শয্যা হাসপাতালের পাশ থেকে তার আগুনে পোড়া বিকৃত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তার সঙ্গে থাকা কাগজপত্র ও এটিএম কার্ড দেখে লাশ শনাক্ত করেন নিহতের ছেলে সাইদুর রহমান ফারুক চৌধুরী। আট আসামীর মধ্যে ইমন, জাহাঙ্গীর এবং শম্পা জেলখানায় থাকলেও মামলার প্রধান আসামী গোলজার, শিবু, আসিফ, তানু এবং টুন্ডা আমিন পালাতক রয়েছে। #

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

বুড়িগঙ্গায় গোসল করতে নেমে শিশু নিখোঁজ ; একদিন পর লাশ উদ্ধর

বুড়িগঙ্গা নদীতে সুমন মিয়া নামের (০৯) বছরের এক শিশু গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হয়। পরদিন …

error: Content is protected !!