কেরানীগঞ্জে গৃহকর্তার রহস্যজনক লাশ উদ্ধার

ঢাকার কেরানীগঞ্জে মো: মনির (২৭) নামে এক গৃহকর্তার লাশ উদ্ধার করেছে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ। নিহতের স্ত্রী বলছে গতকাল রাতে আত্মহত্যা করেছে মনির, অন্যদিকে মনিরের স্বজনদের দাবী মনির কে পরিকল্পিত হত্যা করেছে তার শশুড় বাড়ির লোকজন। সোমবার ২৩ নভেম্বর কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন বাহেরচর এলাকার ঘটনাটি ঘটেছে।

নিহত মনিরের গ্রামের বাড়ি শরিয়তপুরের সূর্বহাটের পূর্বচরসন্ধি গ্রামে। পেশায় তিনি একজন লেবার ছিলেন।
নিহতের স্ত্রী মেহেরুন নেসা (২০) জানান, ৮ বছর ধরে মনিরের সাথে তিনি সংসার করছেন । তাদের ঘরে দুইটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। বর্তমানে তিনি গর্ভবতী। মনির যেখানে লেবারী কাজ করতো ১৫ দিন আগে সেখানে কোন একটা বিষয় নিয়ে মনিরের সাথে তার সহকর্মীদের ঝামেলা হয়েছিলো। এরপর থেকে মনির নিয়মিত কাজেও যেতো না।

১০ ১২ দিন আগে শ্যালকের মোবাইল ফোন নিয়ে নিলে মনিরের সাথে তার কথা কাটাকাটি হয়। তখন তিনি জীদ করে বাবার বাড়ি চলে আসেন। ২ দিন পরে তিনি আবার চলে যান তার বাড়িতে। এরপরে ৪-৫ দিন আগে দুইজনে কথা বলে সিন্ধান্ত নেন যে এখন থেকে মেহেরুন নেসা তার বাবার বাড়িতে থাকবে এবং মনির নিয়মিত কাজ করবে এবং খরচ পাঠাবে। ঐ দিন ই মনিরের সাথে তার শেষ কথা হয় এবং তিনি বাপের বাড়িতে চলে আসেন। এরপরে গত কয়েকদিন মনিরের কোন খোজখবর ছিলো না।

গতকাল ২২ নভেম্বর সকালে মনির তার শশুর বাড়ির সামনে এসে মেয়ে কে ডাকে এবং তার ভোটার আইডি কার্ডটি চায়। মেহেরুন নেসা মেয়েকে দিয়ে মনিরের ভোটার আইডি কার্ডটি পাঠিয়ে দিলে মনির কারো সাথে দেখা না করেই চলে যায়। রাতে খাওয়া দাওয়া করলে সবাই ঘুমিয়ে পড়লে রাত ১ টার দিকে মেহেরুন নেসা টয়লেটে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হলে ঘড়ের বাইরে আড়ার সাথে ফাসি দেওয়া অবস্থায় মনিরের লাশ দেখতে পায়। তার ডাক চিৎকারে তখন সবাই সজাগ হয়ে মনিরের লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়।
এদিকে নিহতের পরিবার দাবী করছে পরিকল্পিত ভাবে মনিরকে হত্যা করে এটা আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিতে চাইছে মনিরের শশুড় বাড়ির লোকজন। নিহতের বোন নুরুন নাহার জানান, আমার ভাই নিরীহ প্রকৃতির ছিলো। ফাসি দেওয়া লাশ পুলিশ নামাবে, কিন্তু পুলিশ আসার আগে তারা নিজেরাই নাকি লাশ নামিয়েছে। তারা কেন লাশ নামাবে ? আর নিহতের কান দিয়ে রক্ত বের হচ্ছে দেখলাম। এটা ফাসি হতে পারে না। ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তের দাবী করছি।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার এস আই মো: খাইরুল জানায়, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করি। সুরতহাল রিপোর্ট শেষে লাশের ময়না তদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর সঠিক কারন জানা যাবে। #

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

বিদ্যুতের অবৈধ পার্শ্ব সংযোগ দিয়ে রাতারাতি কোটিপতি

কোটিপতি হবার ইচ্ছে সকল মানুষেরই থাকে। কিন্তু সবাই হতে পারে না, কেউ চেষ্টা করে সফল …

error: Content is protected !!