পুলিশ এর কর্মকান্ড হার মানালো সিনেমার গল্পকেও

পুলিশ এর কর্মকান্ড হার মানালো সিনেমার গল্পকেও

কৌশলে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়  সদর মডেল থানা পুলিশ এ উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রফিকুল ইসলাম ও কনস্টেবল শরীফুল ইসলাম সহ এবং আরো এক জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

অপহরণের শিকার জাকির হোসেন ভূঁইয়া মঙ্গলবার সকালে  বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় মামলাটি করেন। মামলার আরেকজন আসামি হচ্ছে সদর উপজেলার বেতবাড়িয়া এলাকার আল আমিনের স্ত্রী আখি আক্তার। মামলাটিতে পুলিশ এর এস আই রফিকুল, কনস্টেবল শরীফুল এবং আখিকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

মামলার নথি মোতাবেক জানা যায়, গেল সোমবার দুপুর দুইটার দিকে জাকির হোসেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরশহরের মসজিদ রোডে পুবালী ব্যাংকের সামনের সড়কে দাঁড়িয়েছিলেন ।

এ সময় আঁখি অসুস্থতার নাটক করে জাকিরের গায়ে ইচ্ছাকৃত ভাবে ধাক্কা দিয়ে তাকে একটি রিক্শায় উঠিয়ে দিতে বলেন। রিক্শায় উঠিয়ে দেয়ার পরে আঁখি তাকে বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন।

মানবতার খাতিরে জাকির তার কথা মতো রাজি হন। আখির কথা মতো জাকির আখির বাড়িতে পৌছানো মাত্র সেখানে আগে থেকে প্লানিং মোতাবেক থাকা  মডেল থানা পুলিশের এ এস আই রফিকুল ইসলাম ও কনস্টেবল শরীফুল ইসলাম তার চোখ বেঁধে হত্যার হুমকি দেন।

এ সময় তিন লাখ টাকা না দিলে জাকির কে মেরা ফেলা হবে বলে তারা হুমকি দিতে থাকেন। টাকা বিকাশের মাধ্যমে এনে দেয়ার কথা মামলাতে উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়, জাকির  মুক্তিপণের টাকার জন্য প্রায় ৮৩ হাজার টাকা তার আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করে কয়েকটি বিকাশ নাম্বারে  এএসআই রফিকুল ও কনস্টেবল শরীফুলের কথা মতো এনে দেন।

আরও টাকা আনার জন্য জাকির আরেক আত্মীয়কে ফোন দিয়ে বিকাশ নম্বর দিলে ওই আত্মীয় সাথে সাথে তা সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নবীর হোসেনকে বিষয়টি জানান।

পরে প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে জানা গেছে, যে  বিকাশ নম্বরটি ব্যবহার করা হয়েছে সেটি শহরের মধ্যপাড়া এলাকার ‘মা জেনারেল স্টোর অ্যান্ড টেলিকমের।। বিষয়টি অপহরণকারীরা জানতে পেরে  প্রচন্ড মারধর করে জাকিরকে নিয়াউট এলাকায় ফেলে দেন  একটি সিএনজির মাধ্যমে।

এরপর জাকির থানায় এসে পুরো ঘটনাটি ওসি নবীর হোসেনকে জানান। ওসি নবীর ওদিন রাতেই এএসআই রফিকুল, কনস্টেবল শরীফুলকে গ্রেফতার করে ।

পরে আঁখিকে গ্রেফতার করা হয় মঙ্গলবার সকালে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নবীর হোসেন এ ব্যাপারে বলেন, আসামিদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। আদালতের নির্দেশনা পাওয়া মাত্র তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 আরো পড়ুন : শীতের অপেক্ষায়

 

সুত্র: জাগো নিউজ

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ভূমি কর্মকর্তাকে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে ইন্দুরকানীতে মানববন্ধন

  ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি: পিরোজপুরের নাজিরপুরের মাটিভাঙা ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ সাখাওয়াত হোসেনকে সরকারি …

13 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!