রংপুরে অনুষ্ঠিত হলো মুদ্রা প্রদর্শনী

 

এম হামিদুর রহমান লিমন, রংপুর: ৬ নভেম্বর রংপুর জেলার সদর উপজেলার সদ্যপুস্করিনী ইউনিয়নের ফেজবুক গ্রুপ ঐক্য পরিষদ। ৪নং সদ্যপুস্করিনী ইউনিয়ন,সদর,রংপুর এর আয়োজনে আসাদুজ্জামান সাগরের (১৮) একক মুদ্রা প্রদর্শনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সকাল সাড়ে নয়টা থেকে দুপুর সাড়ে বারটা পযর্ন্ত এই মুদ্রা প্রদর্শনী চলবে বলে জানান আয়োজকরা।

রংপুর সদর উপজেলার ভাইসচেয়ারম্যান মাসুদার রহমান মিলন বলেন, আজ যে মুদ্রা প্রদর্শনী দেখছি আসলে আমরা গ্রামের মানুষ প্রদর্শনী সম্পর্কে অবগত না। আজকে এখানে আসাদুজ্জামান সাগরের মুদ্রা প্রদর্শনী অজানাকে জানার অনেক বিষয়।এই প্রজন্ম সাগরেরর এই মুদ্রা প্রদর্শনী আসার কারণে বিভিন্ন সময়ের বিভিন্ন দেশের মুদ্রার সম্পর্কে জানতে পারবেন বলে দাবি করেন তিনি। আর এই মুদ্রা প্রদর্শনী আয়োজক কমিটি ও আসাদুজ্জামান সাগরকে আমার ব্যাক্তিগত ও রংপুর সদর উপজেলার পক্ষ থেকে জানাই কৃতজ্ঞতা ও শুভেচ্ছা।তিনি আরো বলেন, আসলে আমরা যারা জনপ্রতিনিত্ব করি এবং সরকারের বিভিন্ন দায়িত্বে রয়েছি তাদের এখানে অংশগ্রহণ করা প্রয়োজন। কারণ এ রকম প্রদর্শনী করতে গেলে তাদের একটা ব্যায় ভার আছে সেটা আমরা লক্ষ্য করতে পারছি। তবে আমি চেষ্ঠা করব এ বিষয়ে আমাদের উপজেলা মাসিক মিটিং এ তুলে ধরব বলে দাবী করেন তিনি।

ফেজবুক গ্রুপ ঐক্য পরিষদের এডমিন মাহবুবুলাজীম সিপন বলেন, আসাদুজ্জামান সাগরের একক মুদ্রা প্রদর্শনী ৪নং সদ্যপুস্করিনী ইউনিয়নে এটা একটি বিশাল প্রোগ্রাম। সারা বাংলাদেশে এর আগে বিভাগীয় পর্যায়ে কয়েকবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। এটা জেলা পর্যায়েও অনুষ্ঠিত হয় বলে দাবী করেন তিনি। তিনি আরো বলেন, সেই ক্ষেত্রে ৪নং সদ্যপুস্করিনী ইউনিয়ন একটি ঐতিহ্যবাহি ইউনিয়ন তারি অংশ হিসাবে আজ আসাদুজ্জামান সাগর একজন ছাত্র হিসাবে সে এত পূরনো টাকা বা মুদ্রা সংগ্রহ করেছে আসলে আমরা হতবাক। ধন্যবাদ জানাই সাগরকে।আমরা তার পাশে দাড়াতে পেরেছি এবং আমরা মুদ্রা প্রদর্শনী অনুষ্ঠান করতে পারছি বলে আমরা গর্বিত্ব।

আসাদুজ্জামান সগর জানান, মুদ্রা গুলো সংগ্রহ করতে পরিশ্রম করতে হয়েছে আমাকে। আমার তিন বছর সময় লাগেছে এই মুদ্রা গুলো সংগ্রহ করতে। এই মুদ্রা গুলো সংগ্রহ করতে আমার কতটাকা খরচ হয়েছে তার নিদির্শষ্ট কোন হিসাব আমি দিতে পারব না বলে দাবি করেন আসাদুজ্জামান সাগর।

তবে তিনি আরো বলেন প্রতিটিমুদ্রার পিছনে কিছু হিস্টরি বা গল্প আছে সেগুলো এই মুদ্রা গুলো দেখলেই বুঝা যায়।তিনি আরো জানান, যেহেতু ঢাকা মিরপুরে সরকারি ভাবে টাকা দেখানোর জন্য যাদুঘর আছে। সেখানে তারা সব মুদ্রা প্রদর্শনী করেন।এখানে সরকার থেকে সরকারি কোন হেল্প পাবাে কোন ব্যাবস্থা বা স্কোপ নাই।আমি নিজের অর্থায়নে ও চেষ্টায় আরো মুদ্রা সংগ্রহ করতে চাই। কারণ এটা আমার শখ বলে দাবী করেন তিনি।
প্রদর্শনী দেখতে আসা দর্শকরা জানান, আমরা এই প্রথম কোন মুদ্রা প্রদর্শনী দেখলাম। প্রায় অনেক গুলো দেশের মুদ্রা দেখলাম। তারা বলে আমরা অনেকগুলো মুদ্রা দেখালাম ও সঙ্গে করে বাচ্চাদের নিয়ে দেখতে আসলাম। তারাও দেখে খুশি। রংপুর যেহেতু বিভাগীয় শহর সেখানেও একটা মুদ্রা প্রদর্শনী যাদুঘর স্থাপন করার দাবী জানাচ্ছি।

শুধু মুদ্রা প্রদর্শনী দেখতে আসা দর্শকদের নয়, রংপুর বিভাগের শিক্ষিত মহল, সচতেন মহল সহ রংপুর বিভাগ বাসির দাবি রংপুরে টাকা প্রদর্শনী যাদুঘর স্থাপন সহ সরকার ও সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কমনা করছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ফুলপুর ইউএনও’র সহায়তায় শিশু রিয়া মনিকে খুঁজে পেল তার স্বজনরা

এস,এম,শামীম(ফুলপুর)ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ- ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলায় ফেলে যাওয়া মেয়ে শিশু রিয়া মনিকে খুঁজে পেল তার স্বজনরা। …

error: Content is protected !!