৪৫ বছর বয়সের চেয়ারম্যান বিয়ে করলেন নবম শ্রেণি শিক্ষার্থীকে

শ্রী সৌরভ সাহা,কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

৪৫ বছর বয়সী ইউপি চেয়ারম্যান নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে বিয়ে করে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন। তৃতীয়বারের মতো তিনি বিয়ে করার জন্য সমালোচিত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর উপজেলার বুড়াবুড়ি ইউনিয়নে। সরকার বাল্যবিবাহ মুক্ত ঘোষণার পরেও একজন ইউপি চেয়ারম্যান নিজে কীভাবে বাল্য বিবাহ করেন তা নিয়ে মানুষের মনে অনেক প্রশ্ন উঠছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইউপি চেয়ারম্যান আবু তালেব সরকার, বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের দোলন গ্রামের প্রতিবন্ধী বাচ্চু মিয়ার নবম শ্রেণির ছাত্র বন্নি আক্তারের উপর নজর পড়ে ।বন্নি বকসীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী,চেয়ারম্যান ছাত্রীটির সাথে বিভিন্ন উপায়ে প্ররোচিত করেন এবং তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি করেন এবং দরিদ্র মেয়ের পরিবারকে আর্থিক প্রলোভন দেখাতে থাকেন।

 

গত রবিবার রাতে এক পর্যায়ে মেয়েটির পরিবারের সদস্যরা তাকে চেয়ারম্যানের সাথে বিয়ে দেয়।

ব্যক্তিগত জীবনে ইউপি চেয়ারম্যান আবু তালেব সরকারের এক স্ত্রী এবং একটি কলেজ পড়ুয়া কন্যা সন্তান রয়েছে। তবে এর আগে একবার বিয়ে করলেও বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। চেয়ারম্যানের তৃতীয় বিয়ের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ায়, যা নিয়ে এলাকায় ব্যাপক সমালোচনা ঝড় দেখা দিয়েছে।

এদিকে, নির্বাচিত একজন ইউপি চেয়ারম্যান প্রকাশ্যে বাল্য বিবাহ করলেও প্রশাসন কোনও আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় জনমনে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান আবু তালেব সরকারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও যোগাযোগ সম্ভব হয় নি।
সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নিবার্হী অফিসার আশরাফুল আলম রাসেল বলেছেন, “যেহেতু বাল্যবিবাহ হয়েছে তাই মোবাইল কোট ব্যবহার করার সুযোগ নেই। তবে এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নামে চলছে রমরমা ব্যবসা

  আবদুল্লাহ আল মামুন যশোর জেলা প্রতিনিধিঃ বছর বছর ধরে ভুয়া মাদ্রাসার নাম করে চলছে …

error: Content is protected !!