বালিয়াকান্দিতে চালতাখালী খালে অবৈধ বাঁধ দেয়ায় সহস্রাধিক একর জমির ফসল নিয়ে শঙ্কা

 

শেখ রনজু আহাম্মেদ রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে চালতাখালী খালে অবৈধ ভাবে বাঁধ দিয়ে মাছ শিকার করার কারণে চত্রার বিলের সহাস্রাধিক একর জমির ফসল উৎপাদন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন কৃষকরা।

বৃহস্পতিবার নলিয়া, জামালপুর এলাকাবাসীর পক্ষে প্রতিকার চেয়ে মোঃ আবু জাফর খান উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত ভাবে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগে বলা হয়েছে, বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ছাবনীপাড়া, মাটিয়াবাড়ী, নলিয়া, সাঙ্গুড়া, ডাঙ্গাহাতিমোহন এলাকাটি কৃষি প্রধান। এ এলাকার কৃষির মূল এলাকাটি হচ্ছে চত্রা বিল। এ বিলটি দৈর্ঘ্য প্রায় ৮ কিলোমিটার এবং প্রস্থ ৬ কিলোমিটার। এ বিল থেকে বর্ষায় পানি চালতাখালি খালের মাধ্যমে হড়াই নদীতে যায়।

খালটি ছাবনীপাড়া ও মাটিয়াবাড়ী গ্রামের মাঝ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। ইতিপূর্বে খালটি পলি পড়ে ভরাট হয়ে যাওয়ায় ২০১৫ সালে খালটি পুণঃখনন করা হয়। ফলে চত্রার বিলের পানি অক্টোবরের মাঝামাঝিতে চালতাখালী খাল হয়ে দ্রুত হড়াই নদী হয়ে পানি বের হয়। এতে করে খুব সহজে মাঠটি শুকিয়ে যাওয়ায় চাষাবাদ শুরু করা যেত। কিন্তু বর্তমানে চালতাখালী খালটিতে একাধিক মাছ ধরার বাঁধ থাকায় পানি প্রবাহে বাধার সৃষ্টি হচ্ছে।

কয়েকদফা তাদেরকে বাঁধ অপসারণ করতে বলা হলেও তারা কোন কর্ণপাত করেনি। বাধ্য হয়ে এলাকার লোকজন একটি বাঁধ অপসারণ করে। কিন্তু প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় পুনরায় বাঁধটি নির্মাণ করে। এতে খুবই অল্প পরিসরে পানি নিষ্কাশন হচ্ছে। এতে রবিশস্য চাষাবাদে বিলম্ব হচ্ছে। বিশেষ করে পেয়াজের বীজতলা তৈরীতে কৃষকের অপুরনীয় ক্ষতি হচ্ছে।

অভিযোগে আরো বলা হয়েছে, চালতাখালী খালের উপর বাঁধ দেওয়ার ফলে চত্রার বিলের এক হাজার একরের অধিক জমির ফসল নষ্ট হচ্ছে। দ্রুত অবৈধ বাঁধ অপসারণ করাসহ যাতে যথাসময়ে চৈতালী ফসল চাষাবাদ করতে পারে সে বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানানো হয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

টাঙ্গাইলে ঘাটাইলে আমন ধানের বাম্পার ফলন

  নাসির উদ্দিন,টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলে ঘাটাইলের মাঠে মাঠে সোনালি পাকা আমন ধানের বাম্পার ফলনে কৃষকের …

error: Content is protected !!