ইন্ডিয়া ভিসা আবেদনে কোথায় ভ্রমনের জন্য কোন বর্ডার সিলেক্ট করতে হবে

ইন্ডিয়া ভিসা আবেদনে কোথায় ভ্রমনের জন্য কোন বর্ডার সিলেক্ট করতে হবে

ইন্ডিয়া ভিসা করাটা বাংলাদেশিদের জন্য সবচেয়ে দূরহ বেপার। অনেক কষ্ট সাধ্য করে ইন্ডিয়া ভিসা পাওয়া যায় । কিন্তু কষ্ট করে ভিসা করালেন, ঘুরতে যাবেন দার্জিলিং কিন্তু পোর্ট নির্বাচন করবেন হরিদাসপুর ? তাহলে আপনাকে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হবে।

সাধারনত ইন্ডিয়া ভিসা করানোর ক্ষেত্রে আপনার গন্তব্যের উপর নির্ভর করে যে আপনি ভিসায় কোন পোর্ট আবেদন করবেন। ইন্ডিয়ান ভিসা করানোর ক্ষেত্রে ভিসা ফর্ম পূরনের সময় অবশ্যই আপনাকে আপনার গন্তব্য কোথায় ? থাকবেন কোথায় ? কেন যাবেন?এই গুলো উল্লেখ করতে হবে।

সেই ক্ষেত্রে ভুল বর্ডার উল্লেখ করলে অযথাই তা বিড়ম্বনার কারন হতে পারে। প্রথম বার যারা ভারত ভ্রমন করছেন তাদের ক্ষেত্রে এই সমস্যাটা বেশি হয়ে থাকে।

আসুন জেনে নেই আপনার গন্তব্য অনুযায়ী কোন বর্ডার ব্যবহার করবেন:

  • ডুয়ার্স, দার্জিলিং, সান্দাকফু গমনের ক্ষেত্রে আপনাকে বালাবান্ধা/চেংরাবান্ধা বর্ডার নির্বাচন করতে হবে।
  • আসাম/ত্রিপুরায় গমনের ক্ষেত্রে আপনাকে আগরতলা বর্ডার নির্বাচন করতে হবে।
  • শিলং অথবা মেঘালয় যেতে হলে আপনাকে বেছে নিতে হবে ডাউকি বর্ডার।
  • কলকাতা বা আশেপাশে ঘুরতে গেলে আপনাকে হরিদাসপুর/গেদে বর্ডার নির্বাচন করতে হবে।

 

অধিকাংশ বাংলাদেশিরা হরিদাসপুর বর্ডার ই বেশি ব্যবহার করে থাকেন। তবে মজার বিষয় হচ্ছে আপনি যে পোর্ট ই নির্বাচন করেন না কেন, হরিদাসপুর/গেদে পোর্টটি আপনি সব সময় যাতায়াত করতে পারবেন। অর্থাৎ ধরেন আপনার কাছে ডাউকি বর্ডার এর ভিসা আছে , ্‌আপনি যদি চান কিংবা ইচ্ছা করেন তাহলে আপনার পাসপোর্টে ডাউকি বর্ডারের ভিসা থাকলেও হরিদাসপুর দিয়ে যাবার অনুমতি পাবেন।

কিন্তু আপনার পাসপোর্টে যদি হরিদাস পুর বর্ডার উল্লেখ করা থাকে তবে সে ক্ষেত্রে আপনি অন্য কোন বর্ডার ব্যবহার করতে পারবেন ন।

ইন্ডিয়ান হাই কমিশন ইন্ডিয়া ভ্রমনকে আরো উৎসাহিত করার জণ্য সমন্বিত পোর্ট পদ্ধত্বি চালু করেছে। এই সুবিধার আওতায় স্থল পথে বেনাপোল বা হরিদাসপুর, রেল পথে গেদে বা দর্শনা এবং বাংলাদেশের সাথে যুক্ত ২৪টি এয়ার পোর্ট দিয়ে ভারতে প্রবেশ করতে পারবেন আপনি। ভিসায় আপনার পোর্ট এন্টি যে পোর্টেই থাকুক না কেন এই সুবিধা আপনি পাবেন।

তবে আপনার ভিসার বর্ডার এন্টি যদি সমন্বিত সুবিধা দেওয়া পথগুলোতেই হয়, তা হলে অন্য পোর্ট দিয়ে ভারতে প্রবেশ বা বের হওয়া জন্য ব্যবহার করা যাবে না। তাই কলকাতা ভ্রমন সম্ভাব্য হলে অন্য পোর্ট এন্টি নিন। তাহলে ভারতে প্রবেশের ক্ষেত্রে আপনার জন্য আরো ৪টি পথ খুলে যাবে।

আর প্রয়োজনে এইসব পোর্ট দিয়ে ভারতে প্রবেশ কিংবা প্রস্থান করতে পারবেন।

আরো পড়ুন : ভারত ভ্রমনে শীর্ষে কে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

আসছে মহিন চৌধুরীর পরিচালনায় বিয়ে করবো

মোঃ এনামুল হক বাবু: তরুণ প্রজন্মের নির্মাতা মহিন চৌধুরী মিউজিক ভিডিও হতে শুরু করে টেলিভিশন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!