স্বাস্থ্য সৌন্দর্যে নিমের আশ্চর্য ওষধিগুণ

প্রাচীনকাল হতে, মানুষ রোগ আরোগ্যের জন্যে ভেষজ উদ্ভিদ ব্যবহার করে আসছে। কোন উদ্ভিদের রোগ নিরাময় ক্ষমতা থাকলে তাকে ভেষজ উদ্ভিদ বলে। এছাড়া উদ্ভিদ মানুষের জীবনে উপকার হিসেবেই কাজ করে আসছে। এমনই একটি গাছ নিম।

নিম গাছ আামদের খুবই পরিচিত একটি গাছ। সকল রোগের মহাঔষুধ নামেও এটি বেশ পরিচিত। ঔষধি গাছ হিসেবে এর ডাল, পাতা, রস খুবই উপকারি। এটি একটি ওষধিগুণ সম্পন্ন, চির হরিত, বহু বর্ষজীবি বৃক্ষ। নিম গাছের বৈজ্ঞানিক নাম আজাদিরাচটা ইন্ডিকা।

নিম গাছের ডাল, পাতা— সবই কাজে লাগে। যেমন, নিমের কাঠ খুব শক্ত। নিম কাঠে উইপোকা বাসা বাঁধে না। ফলে নিম কাঠে কখনও ঘুণ ধরে না। শুধু উইপোকাই নয়, নিম গাছে কোনও পোকাই বাসা বাঁধে না। শরীর থেকে সৌন্দর্য, সবকিছুই উপকারী নিমপাতা। প্রতিদিন খালি পেটে যদি পারেন একমুঠো নিমপাতা চিবিয়ে বা নিমপাতার জুস তাহলে উপকার পাবেন বহুবিধ। আর্য়ুবেদ তো তাই বলে।

খ্রিষ্টপূর্ব আনুমানিক ৪০০ সালে বৈদিক যুগে নিম জীবাণু ধ্বংসকারী হিসেবে প্রয়োগ হতো। ক্ষয় রোগ, ক্রিমি প্রভৃতি রোগে নিমের উপকারিতার প্রমাণ পাওয়া যায়। দুষিত বায়ু বা অন্য কোন কীটের উপদ্রব থেকে রক্ষা করতে এর ভুমিকা আছে।

ইমিউনিটি সিস্টেম জোরদার থেকে ত্বকের দাগ ছোপ দূর করা সবই করে নিমপাতা। কেটে গেলে বা পুড়ে গেলে ক্ষত স্থানে নিমপাতার রস লাগান; গায়ের দুর্গন্ধ এবং ঘামের দুর্গন্ধ দূর করতে নিমপাতার রস খুবই কার্যকরী। শীত আসতে চলেছে। ঋতু বদলের সময়টায় অসুখ ছড়ায় সবচেয়ে বেশি। আর তাই এই সময়ে শরীরের খেয়াল রাখা খুব জরুরি।

এক কাপ নিমপাতায় ক্যালোরি থাকে ৩৫ গ্রাম। ফলে প্রতিদিন এককাপ নিমপাতা খেলে ব্লাড সুগার থাকবে এক্কেবারে নিয়ন্ত্রণে। এছাড়াও যাদের সুগার নেই, তাদের ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা করা যায়।

দাঁত ও মাড়ির সুরক্ষায় নিম গাছের ডাল উপকারি। দাঁত ও মাড়ির যে কোনও রকম ইনফেকশন থেকে দূরে রাখে। যে কারণে নিমের দাঁতন ব্যবহার করা হয়।

চুলের যত্নে নিমপাতা ব্যবহার খুবই কার্যকরী। চুল পড়া থেকে খুসকির সমস্যা যে কোনও কিছুতে নিম শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। বা শ্যাম্পুর পর নিমপাতা দেওয়া পানি ব্যবহার করুন।

গ্যাস বা বদহজমের দীর্ঘদিনের সমস্যায় নিম খুব ভালো কাজ দেয়।

কেটে বা ছড়ে গেলে বা পোকার কামড় খেলে ক্ষতস্থানে নিমপাতা বাটা লাগিয়ে নিন। ইনফেকশন হবে না। ক্ষত তাড়াতাড়ি শুকাবে। নিম ফুল দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। রাতকানা রোগে নিমের ফুল ভেজে খেলে এ অসুবিধা থাকে না।

খুশকির সমস্যা দূর করে নিমপাতা। খুশকির সমস্যা থাকলে নিমপাতা পানিতে সেদ্ধ করুন। পানির রং সবুজ হলে নামিয়ে ঠান্ডা করুন। শ্যাম্পু করার পরে ওই পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

চোখ জ্বালা দূর করতে নিমপাতা বিশেষ ভূমিকা পালন করে। চোখ জ্বালা করলে বা চোখ লাল হয়ে গেলে নিমপাতা পানিতে সেদ্ধ করুন। পানি ঠান্ডা হলে, তাই দিয়ে চোখ ধুলে উপকার পাবেন।

মুখের কালো ছোপ দূর করে নিমপাতা। ব্রণ বা মুখে কালো ছোপ থাকলে নিমপাতা বাটা লাগিয়ে নিন। ত্বকে বিভিন্ন ধরনের রোগ হয়। কাঁচা হলুদ বাটার সঙ্গে নিমপাতা বাটা মিশিয়ে ব্যবহার করুন।

পাতা- নিমপাতা রোদে শুকিয়ে ভাল করে গুঁড়া করে রেখে দিতে পারলে পরবর্তীকালে তা ফেস প্যাক হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

নিম তেল একটি শক্তিশালী শুক্রাণুনাশক হিসেবে কাজ করে। বিজ্ঞানীরা দেখিয়েছেন যে, নিম তেল মহিলাদের জন্য নতুন ধরনের কার্যকরী গর্ভনিরোধক হতে পারে। এটি ৩০ সেকেন্ডের মধ্যেই শুক্রানু মেরে ফেলতে সক্ষম। এছাড়া নিম তেল পোকামাকড় বা ব্যাকটেরিয়া থেকে দূরে রাখবে। এই সময় মশার প্রকোপ বাড়ে। তাই বাড়িতে নিম তেল ব্যবহারের সঙ্গে সঙ্গে প্রতিদিন নিমপাতা খান। মশা কম কামড়াবে। ম্যালেরিয়া থেকে দূরে থাকবেন।

ভাইরাস রোগ নির্মূল করে নিমপাতা। ভারতীয় উপমহাদেশে ভাইরাস রোগ নিরাময়ে নিম ব্যবহৃত হয়। আগে চিকেন পক্স, হাম ও অন্য চর্মরোগ হলে নিমপাতা বাটা লাগানো হতো। এছাড়াও নিমপাতা পানিতে সিদ্ধ করে সে পানি দিয়ে গোসল করলে ত্বকের জ্বালাপোড়া ও চুলকানি দূর হয়।

নিমের ছাল অজীর্ণ রোগে চার-পাঁচ গ্রাম নিমের ছাল এককাপ গরম পানিতে রাতে ভিজিয়ে সকালে খালি পেটে খেলে উপকার পাওয়া যায়।

একগ্রাম নিমের ছাল, অর্ধগ্রাম কাঁচা হলুদ ও একগ্রাম আমলকির গুঁড়ো সকালে খালি পেটে সপ্তাহ খেলে যকৃতের ব্যথা উপশম হয়।

ব্লাড সুগারের রোজ সকালে খালি পেটে ১৫ থেকে ২০ টি নিম পাতা চিবিয়ে খেলে উপকার হয়। বিয়ে খেতে অসুবিধা হলে একই নিয়মে ৫ থেকে ৬ চামচ নিমপাতার রস খেলে একই উপকার হয়।

রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় নিমপাতা। কিছু নিমপাতা চুর্ণ করে এক গ্লাস পানির সঙ্গে মিশিয়ে প্রতিদিন সকালে পান করলে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে বহুগুণ। নিম গাছ যে বাড়ির আঙ্গিনায় থাকে রোগ বালাই কম থাকে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনা টিকার ট্রায়াল স্থগিত

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক খ্যাতনামা ওষুধ উৎপাদক প্রতিষ্ঠান জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনা টিকার ট্রায়াল সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। …

error: Content is protected !!