আইএমডিবির রেটিং ৯-এর ঘরে ‘আয়নাবাজি’

টেলিভিশন, চলচ্চিত্র ও সেলিব্রেটির তথ্যসমৃদ্ধ জনপ্রিয় সাইট আইএমবিডির সর্বোচ্চ রেটিংয়ের ঘরে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশি চলচ্চিত্র ‌‘আয়নাবাজি’।
ছবিটি ১০-এর মধ্যে ৯.১ পয়েন্ট পেয়েছে। তবে এর ভোটার সংখ্যা মাত্র ২০ হাজার হওয়ায় সর্বকালের সেরা ১০০-এর তালিকায় ঢুকতে পারেনি। ছবিটির ইংরেজি নাম ‘মিরর গেম’।
এদিকে, ৯.৩ পয়েন্টে এ তালিকায় শীর্ষ অবস্থান করছে ‘দ্য শশাঙ্ক রিডেম্পশন’। তার ভোট ২২ লাখেরও বেশি। দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ৯.২ পয়েন্ট পাওয়া ‌‘দ্য গডফাদার’। ছবিটি দেখে ভোট দিয়েছেন ১৫ লাখ ৮০ হাজার জন।

অন্যদিকে, ১৩০ দেশের চলচ্চিত্র বিশ্লেষণ ও আইএমডিবি’র রেটিং স্কোর ব্যবহার করে দেশভিত্তিক বিশ্বের সর্বোচ্চ নম্বরপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রের তালিকা প্রকাশ করেছেন ট্রান্সক্রিপশন সাইট ‘অ্যাম্বার স্ক্রিপ্ট ডট কম’।

চলতি বছরের তেমন কোনও ছবি মুক্তি না পেলেও কিছু চলচ্চিত্র দর্শকের কাছ থেকে উচ্চ নম্বর পেয়েছে। সেই ভিত্তিতে এই সাইটটি সেরার তালিকা প্রকাশ করে। সেখানে আইএমডিবি রেটিং পয়েন্ট ৯.১ পেয়ে যৌথভাবে দ্বিতীয় অবস্থান বাংলাদেশের ‘আয়নাবাজি’র (২০১৬)। একই স্থানে থাকা অন্য চলচ্চিত্রটি কসোভোর ‘জানা’ (২০১৯)।

১৯৯৪ সালে মুক্তি পাওয়া ‘দ্য শশাঙ্ক রিডেম্পশন’ শীর্ষ স্থানে রয়েছে। আইএমডিবিতে তার পয়েন্ট ৯.২।

২০১৬ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর মুক্তি পায় ‘আয়নাবাজি’। এরপর ২০১৭ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত দেশের প্রায় প্রতিটি প্রেক্ষাগৃহে হাউজফুল চলে এই ছবিটি। পায় তুমুল প্রশংসা

কনটেন্ট ম্যাটার্সের প্রযোজনায় ‘আয়নাবাজি’ অমিতাভ রেজা চৌধুরীর পরিচালনায় প্রথম ছবি। যার মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী। তার নাম শরাফত করিম ওরফে আয়না। পরিচালক ছাড়াও এর মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় অভিনেত্রী নাবিলা ও সংগীতশিল্পী-অভিনেতা পার্থ বড়ুয়ার।

ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছেন অনম বিশ্বাস ও গাউসুল আলম শাওন। এতে আরও অভিনয় করেছেন লুৎফর রহমান জর্জ, হীরা চৌধুরী, শওকত ওসমান, বৃন্দাবন দাস, গাউসুল আলম, ইফফাত তৃষা প্রমুখ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

বিজয়ের মাসে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ছুটির দিনে’

  বিজয়ের মাসকে সামনে রেখে নির্মিত হয়েছে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ছুটির দিনে’। নতুন প্রজন্মের কাছে বাংলাদেশের …

error: Content is protected !!