কেরানীগঞ্জের গ্যাস সিলিন্ডার দোকান অগ্নিকান্ড \ ৫টি দোকান পুড়ে ছাই, ৪০লক্ষ টাকার ক্ষয়খতি

ঢাকার দক্ষিন কেরানীগঞ্জের পেট্রোল, মবিল ও এলপি গ্যাস সিলিন্ডারের দোকান অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এসময় পাশের আরো ৪টি দোকান পুড়ে প্রায় ৪০লক্ষ টাকার ক্ষয়খতি হয়েছে। শনিবার রাতে শুভাঢ্যা ইউনিয়নের হাসনাবাদ এলাকার কনটেইনার পোর্ট রোডে সোহেল ট্রেডার্স এর মালিক সোহেল মিয়ার পেট্রোল, মবিল ও এলপি গ্যাস সিলিন্ডার দোকানে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়। মুহুর্তের মধ্যে আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে পাশের আরো ৫টি দোকান পুড়ে এবং ব্যাপক ক্ষয়খতি হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্থ দোকানগুলো হল সুমাইয়া ট্রেডার্স মালিক সোহেল এর পাশাপাশি ৩টি দোকান,উজ্জল ট্রেডার্স এর মালিক উজ্জল হার্ডওয়ার পার্টস টায়ারসহ বিভিন্ন প্রকার মালামাল, আমজাদ এর ভাঙ্গারী দোকান।
আগুনে দোকানের ব্যাপক ক্ষয়খতি হয়েছে উল্লেখ করে পোস্তাগোলা ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার ইনচার্জ মোঃ জহিরুল ইসলাম জানান,রাতে সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে আগুন লাগার ঘটনা স্থলে চলে যাই এবং আগুন নিভানো কাজে এ্যাকশনে যাই। অত্র এলাকায় পানির সোর্স না থাকায় একটু সমস্যা হয়েছে। পরে কেরানীগঞ্জ থেকে আরো দুটি টিম আসে আমরা একসাথে অল্প সময় মধ্যে আগুন নিয়ন্ত্রন আনতে সক্ষম হয়েছি। কোন হতাহতোর খবর পাওয়া যায়নি।তিনি আরো জানান,কি পরিমান ক্ষয়খতি হয়েছে তদন্ত সাপেক্ষে পরে জানানো হবে।

প্রতক্ষ্যদর্শী আবু হালিম জানান, প্রথমে আমি বিকট আওয়াজ শুনতে পাই। এরপর বাসা থেকে বের হয়ে দেখি পাম্পের মাধ্যমে গাড়ীর চাকায় হাওয়া দেওয়ার মেশিং বাস্ট হয়েছে। এর কিছু ক্ষন পর প্রচুর পরিমান আগুন দেখতে পাই আর একটু পরপর গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফরন হতে থাকে। ভিতরে আগুনের পরিমান আরো বৃদ্ধিপায়। পরে ত্রিপল ৯৯৯ কল দিলে পোস্তাগোলা ফায়ার স্টেশনকে দেয় তারা বলে কোথায় আমি জানাই হাসনাবাদ পরে মুহুর্তেই তারা চলে আসে। এর মধ্যে সিলিন্ডার তেল ,পেট্রোল আগুনে অনেক পুড়ে যায়। এদিকে উপরে ডিপো আছে ব্রেলে তেল আছে সেখানে আগুন ছড়িয়ে পরে প্রথমে পোস্তাগোলা ফায়ার সার্ভিস আসে পরে বসুন্ধরা ফায়ার সার্ভিস গাড়ি আসে। এসময় ভিতরে অনেক আগুন ছিল। তিনি আরো জানান, আমরা তাদের বলি ভিতরে অনেক ব্রেল আছে। এসময় ৫ টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ের যায়। এর মধ্যে সুমাইয়া ট্রেডার্স এর বেশি ক্ষয়খতি হয়েছে বলে আবু হালিম জানান।

এদিকে অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল সহকারী কমিশন (ভূমি) ও নির্বহী ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল হাসান সোহেল ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন। এসময় তিনি জানান, বিভিন্ন দোকানে যন্ত্রতন্ত্র গ্যাসসিলিন্ডার,তেল,মবিল,পেট্রোল বিক্রি করার কারনে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে এবং ঘটনাস্থলের পাশেরই গেøাবল কেমিক্যাল ফেক্টরী থাকা সত্বেও সেখান থেকে পানি না দিয়ে ফায়ার সার্ভিসকে সহযোগিতা না করার কারনে আগুনে নিয়ন্ত্রন আনতে সময় বেশী লেগেছে। এতে করে ক্ষয়খতি বেশি হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এসময় দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ শাহজামান এর সহযোগিতায় হাজার হাজার মানুষের ভীড় এড়াতে এবং ফায়ার সার্ভিস এর কাজে যাতে ব্যাঘাত না ঘটে পুলিশ আগুন নিভানোর নিরাপত্তায় কাজে ফায়ার সার্ভিসকে সহযোগিতা করেছেন। #

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে শিশু চুরি করে পালানোর সময় এক যুবক গ্রেপ্তার

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে শুক্রবার সন্ধ্যায় সংবাদের ভিত্তিতে চুনকুটিয়া বউ বাজার এলাকা থেকে মোঃ সাব্বির(২১) নামের …

error: Content is protected !!