করোনার কারণে কড়া বিধিনিষেধ ফিরছে ইরানে

 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ইরানের রাজধানী তেহরানসহ এর আশপাশের এলাকাগুলোতে আবারও কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। কেউ অসুস্থতার তথ্য গোপন করলে বা সরকারি কর্মকর্তারা মাস্ক না পরলে বড় অংকের জরিমানা ও সাজার বিধানও জারি করতে যাচ্ছে ইরান।

শনিবার টেলিভিশনে করোনা টাস্কফোর্সের সাপ্তাহিক আয়োজনে হাসান রুহানি বলেন, প্রথম বিষয় হচ্ছে, কেউ অসুস্থতা অনুভব করলে বা বুঝতে পারলে অবশ্যই তা গোপন করা যাবে না। যদি কেউ করে, তবে সে আইন ভঙ্গ করছে। এর জন্য গুরুতর জরিমানা হতে পারে।

তিনি জানান, নতুন আইন কার্যকর হলে যেসব সরকারি সংস্থা ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো জনগণের সেবা দিচ্ছে, তাদের কর্মীদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হবে। অন্যথায় কঠিন জরিমানার মুখে পড়তে হবে।

ইরানি প্রেসিডেন্ট বলেন, যদি কোনও সরকারি কর্মকর্তা স্বাস্থ্যবিধি না মানেন তাকে সর্বোচ্চ এক বছর পর্যন্ত বহিষ্কার করা হতে পারে। আর বেসরকারি প্রতিষ্ঠান নিয়মভঙ্গ করলে একমাস পর্যন্ত সেটি বন্ধ করে দেয়া হতে পারে।

তিনি বৃহত্তর তেহরানের সব বাসিন্দাকে সতর্ক করে বলেন, বাইরে সবসময় মাস্ক পরে থাকতে হবে। অন্যথায় এর পরিণতি ভোগ করতে হবে।

করোনাভাইরাস মহামারির প্রথম ঢেউয়ে বিশ্বের অন্যতম ভুক্তভোগী দেশ ইরান। সম্প্রতি সেখানে আবারও বাড়তে শুরু করেছে সংক্রমণ; বিশেষ করে তেহরানে।

শনিবারও দেশটিতে ১৭৯ জন করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন। এ নিয়ে সেখানে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬ হাজার ৭৪৬ জনে।

পাশাপাশি, এদিন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন অন্তত ৩ হাজার ৫২৩ জন। ফলে সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৪ লাখ ৬৮ হাজার ১১৯ জনে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ট্রাম্পের ছেলেও করোনায় আক্রান্ত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের সঙ্গে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন তাদের …

error: Content is protected !!