আজ বয়ফ্রেন্ড দিবস

 

আজ বয়ফ্রেন্ড দিবস। অবশ্যই তাঁদেরও একটা দিন পাওনা বৈকি। আমাদের জীবনকে সুন্দর করে সাজিয়ে তোলেন তাঁরা। আমাদের রাগ-অভিমান, হাজারো বায়নাক্কা সামাল দেন সব সময়। বাড়ি ফিরে হয়তো সব সময় জানিয়ে দেন না, হোয়াটসঅ্যাপে অনেক কথার উত্তরে হয়তো শুধু একটা ‘ওকে’ লিখে পাঠিয়ে দেন। তবু প্রয়োজনের সময় তাঁর হাতটা ধরা যায় বৈকি। তাই বয়ফ্রেন্ডদের জন্য ৩ অক্টোবর বয়ফ্রেন্ড দিবস।

ইন্টারনেটের বিভিন্ন সূত্র বলছে, ২০১৪ সালে যাত্রা শুরু হয় দিবসটির। ২০১৬ সাল থেকে এটি জনপ্রিয় হতে শুরু করে। বর্তমানে বিশ্বজুড়েই দিনটি বেশ সমাদৃত হচ্ছে। তাহলে প্রেমিকের সঙ্গে আজ প্রেমময় দিন কাটুক!

 

জীবনে প্রেমিক বা বয়ফ্রেন্ডের গুরুত্ব কতটুকু? প্রশ্নটা এক কথায় করা গেলেও জবাবটা বোধ হয় এক কথায় দেওয়া সম্ভব নয়। তবে প্রেমিক যে বন্ধুর চেয়েও গভীরতর ঘনিষ্ঠ বন্ধু, এ কথা তো নির্দ্বিধায় বলা যায়। প্রেমিকার মননের সবটা জুড়ে যেমন থাকেন প্রেমিক, তেমনি নির্ভরশীল ছায়া হয়ে প্রেমিকার পাশে থাকেন অষ্টপ্রহর। বয়ফ্রেন্ড, সুন্দর বাংলায় যাকে বলি প্রেমিক; সেই প্রেমিক হওয়া কিন্তু বড় সহজ নয়। নামকাওয়াস্তে প্রেমিক আর সত্যিকারের প্রেমিকের মাঝে ঠিক ততটুকুই পার্থক্য, যতটুকু পার্থক্য প্রেমিকার জীবনের গতিপথ নির্ধারণ করে দেয়।

 

কেবল মিষ্টি মিষ্টি কথা আর সুন্দর সুন্দর স্বপ্ন দেখানো নয়, বরং সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে কার্যকরভাবে পাশে থাকা, দমে যাওয়া মুহূর্তে সাহস জোগানো, পা হড়কানোর সময় শক্ত করে হাতটা ধরতে পারা; এসবই একজন সত্যিকারের প্রেমিকের বৈশিষ্ট্য। ও হ্যাঁ আরেকটি কথা। আপনার প্রেমিক পুরুষ বাহ্যিকভাবে হয়তো সুদর্শন না হতে পারেন, কিংবা হয়তো তিনি ছন্নছাড়া, বোহিমিয়ান। এসব কিন্তু অযোগ্যতা নয়। কে জানে, তিনি হয়তো আপনাকে ভালোবাসার ক্ষেত্রে শতভাগ সৎ!

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

প্রতিদিন লবণ পানি দিয়ে গার্গল করা উচিত কেন?

  যখন আপনি গলা ব্যথা বা মাড়ি থেকে রক্তঝরা সমস্যায় ভোগেন, তখন লবণ ও পানির …

error: Content is protected !!