নেত্রকোনার দূর্গাপুরে পাহাড়ি বন্যায় নদীতে ভাঙন, আতঙ্কে ১৫গ্রামের বসতি

 

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে সোমেশ্বরী ও নেতাই নদীর ভাঙনে অধিকাংশ ঘর-বাড়ি বিলীন হয়ে গেছে,
আতঙ্কে  রয়েছে উপজেলার সীমান্তবর্তী কুল্লাগড়া ইউনিয়নের বড়ইকান্দি,ভূলিপাড়া, কামারখালী,রানিখং,বিজয়পুর, পৌরসভার শিবগঞ্জ বাজার,ডাকুমারা,৷দক্ষিণ ভবানীপুর সহ বেশ কয়েক গ্রামের মানুষ।
অন্যদিকে নেতাই নদীর তীব্র ভাঙনে গাঁওকান্দিয়া ইউনিয়নের বন্দউষান বাজার,মসজিদ -মাদ্রাসা, কবরস্থান নদীতে বিলীন হয়ে গেছে।
এছাড়াও টানা বর্ষণে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কাকৈরগড়া ইউনিয়নের রামবাড়ি, লক্ষ্মীপুর সহ বেশ কিছু গ্রামের মানুষ পানিবন্দী হয়ে বসবাস করছে।
সোমেশ্বরী ও নেতাই নদীর  অবাধ ভাঙনে বিলীন হতে চলেছে ওসব এলাকার  মসজিদ, মন্দির,  বিদ্যালয়, ঐতিহ্যবাহী রানিখং ধর্মপল্লী সহ আরও স্থাপনা।
সোমেশ্বরী ও নেতাই নদীর অবাধ ভাঙন রোধে স্থানীয়রা নিজ অর্থায়নে বালুর বস্তা ফেলে বাঁধ দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান  নদীর  দুই পাড়ে স্থায়ী বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবীতে বেশ কয়েকবার মানববন্ধন হয়েছে।
প্রশাসনের উর্দ্ধতন মহল থেকে কর্মকর্তা গণ সরেজমিনে বেশ কয়েকবার তদন্তও করে গেছেন।

নদী ভাঙন নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা খানম জানান সোমেশ্বরী ও নেতাই নদীর ভাঙন ঠেকাতে  সংসদ সদস্য মানু মজুমদারের ঐকান্ত প্রচেষ্টায় উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, জেলা প্রশাসক সহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বেশ কয়েকবার এলাকা পরিদর্শন করেছেন।
এ নিয়ে স্থায়ী বেড়িবাঁধ নির্মাণের বড় প্রস্থাবনাও পাঠানো হয়েছে।
বৃষ্টিপাত কমলেই বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ শুরু হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

দূর্গাপুজা উপলক্ষে সেক্যুলার বাংলাদেশ মুভমেন্ট এর সৌজন্যে উপহার সামগ্রী বিতরণ

  দিপক রায়,পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলায় শারদীয় দূর্গা পুজা উপলক্ষে সুবিধাবঞ্চিত অসহায় মানুষদের …

error: Content is protected !!