কেরানীগঞ্জে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ॥ স্বামী আটক

ঢাকার দক্ষিন কেরানীগঞ্জে জান্নাতুল সরদার (২০) নামের এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে। উপজেলার তেঘরিয়া ইউনিয়নের আব্দুলাহ্পুর চৌধুরীপাড়া এলাকায় বুধবার ভোর রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় স্বামী ইমন মিয়াকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনদের সূত্রে জানা যায়,গত ১ বছর আগে মাদারীপুরের ঝাউদি গ্রামের শওকাত মিয়ার বড় মেয়ে জান্নাতের সঙ্গে মুন্সিগঞ্জ জেলার পাঁচঘুইরাকান্দি এলাকার বাচ্চু মিয়ার ছেলে ইমনের সঙ্গে প্রেম সংগঠিত বিয়ে হয়। গত ২০ আগস্ট জান্নাত ও ইমন মিলে তেঘরিয়া চৌধুরীপাড়া আমির হোসেন মেম্বারের বাড়ীতে ভাড়া নেয়। ইমন ইলেট্রিসিয়ান হিসেবে কাজ করত। বিয়ের পর প্রায় সময়ই স্বামী ও স্ত্রী মাধ্যে ঝগড়া হতো। প্রতি রাতেই জান্নাতকে মারধর করতেন স্বামী ইমন।
বাড়ীর মালিক আমির হোসেন মেম্বর জানান, আজ বুধবার ভোর রাত ৫টার দিকে ইমন আমাকে ডেকে বলে আমার স্ত্রী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। আমি ওদের ঘরে এসে দেখি জান্নাতের লাশ খাটের উপর একটা কাপড় দিয়ে ঢেকে রেখেছে। যদিও ঘরের ভিতরে গলায় ফাঁস লাগানোর মতো কোন ব্যবস্থা ছিলোনা।
নিহতের খালা মালেকা বেগম অভিযোগ করে বলেন,তার বোনের মেয়ে জান্নাত দীর্ঘদিন তার কাছে ছিলো। এসময় ইমন জান্নাতের জন্য বিয়ের প্রস্তাব দেয়। এতে আমরা রাজি হইনি। কারন ইমন এর আগে আরো একটি বিয়ে করেছে। পরে পরিবারের অমতে জান্নাতকে ফুসলিয়ে বিয়ে করে ইমন। বিয়ের পর জান্নাতের কাছে আগের স্ত্রীকে তালাক দেয়ার জন্য ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা দাবী করে। এ টাকার জন্য প্রায় সময়ই মারধোর করতো ইমন। খালা মালেকা বেগম অভিযোগ করেন,জান্নাতকে তার স্বামী পিটিয়ে হত্যা করেছে।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার এস আই কুদ্দুস জানান,ভোর রাতে ৯৯৯ থেকে ফোন আসলে জানতে পারি যে,তেঘরিয়া এলাকায় এক নারী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ খাটের উপর কাপড় দিয়ে ঢাকা দেখতে পাই। পওে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়না তদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ্ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে পাঠাই। নিহতের হাতে কামড় ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
এ ঘটনায় নিহতের বাবা শওকত সরদার বাদী হয়ে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। #

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

উদ্যত শির লুটিয়ে দাও

  লেখক ডাক্তার রফিকুল ইসলাম হে বিশ্ব! থমকে দাড়ালে কেন? চমকে গেলে কেন? কোথায় তোমার …

error: Content is protected !!