মেসি কোপায় শিরোপা খরা কাটাতে পারবেন!

স্পোর্টস ডেস্কঃ  লিওনেল মেসিকে সর্বকালের সেরা ফুটবলার খেতাব দেন অনেকেই।সমালোচকরা এই কথার বিরোধিতা করেন একটা যুক্তিতে, মেসির তো আন্তর্জাতিক কোনো ট্রফি নেই! বার্সা মহাতারকা মনে করেন, আগামী কোপা অ্যামেরিকায়ই এই বন্ধ্যাত্বও ঘুচবে তার।

২০২১ কোপা অ্যামেরিকা খেলতে মুখিয়ে আছেন আর্জেন্টাইন তারকা। তিনি মনে করছেন, এই টুর্নামেন্টের মাধ্যমেই তার আক্ষেপ ঘোচানো সম্ভব।
বার্সার হয়ে ১০টি লা লিগা কিংবা ৪টি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ট্রফিও তার নামের প্রতি সুবিচার করেনা, যতক্ষণ না দেশের হয়ে কোনো ট্রফি জিততে পারেন রেকর্ড ৬ বারের ব্যালন ডি অর জয়ী এই মহাতারকা।

২০০৮ অলিম্পিকে দেশের হয়ে স্বর্ণ জিতেছিলেন ক্ষুদে জাদুকর। ২০০৫ সালে জিতেছিলেন যুব বিশ্বকাপও। তবে আলবিসেলেস্তেদের জাতীয় দলের হয়ে ট্রফিটা অধরাই রয়ে গেছে তার।
এরমধ্যে ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। সেবার জার্মানির বিপক্ষে হৃদয়ভাঙার গল্প রচিত না হলে, তাকে সর্বকালের সেরা বলতে দ্বিধা করার কাউকে খুঁজে পাওয়া যেতো কিনা সন্দেহ।

তবে কোপা অ্যামেরিকা তার জন্য হয়ে আছে দুঃসহ যন্ত্রণার নাম। ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনাল হারের পর, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে আর্জেন্টিনা পরপর দুটো কোপার ফাইনালে উঠলেও, চিলির কাছে টাইব্রেকারে হেরে বসে দুটোতেই।

আর্জেন্টাইন অধিনায়ক তাতে এতোটাই হতাশায় পুড়েন যে, তাৎক্ষণিকভাবে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসরের ঘোষণাও দিয়ে দেন। যদিও পরবর্তীতে দেশটির প্রেসিডেন্টের অনুরোধে আবারো দেশের জার্সি গায়ে খেলতে নামেন মেসি।
যাই হোক, সব ভুলে আগামী কোপা অ্যামেরিকার প্রস্তুতিই নিচ্ছেন মেসি। মহাদেশীয় টুর্নামেন্টটি এবছর হওয়ার কথা থাকলেও, করোনার আগ্রাসনে পিছিয়েছে এক বছর। এই সময়টাকে প্রস্তুতির সুযোগ ধরে নিয়ে এগোচ্ছেন মেসি।

আগামী আসর যৌথভাবে আয়োজন করবে আর্জেন্টিনা ও কলম্বিয়া। ১১ জুন থেকে ১০ জুলাই আসরটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। মেসি সুযোগ পাচ্ছেন ঘরের মাটিতে, স্বাগতিক সমর্থকদের উল্লাসের সামনে খেলার।

বার্সেলোনা ছাড়া নিয়ে সম্প্রতি যে ঝামেলা তৈরি হয়েছিল সেসময় তার সাক্ষাৎকার নিয়ে হৈচৈ ফেলে দেয় ফুটবলভিত্তিক ওয়েবসাইট গোলডটকম। তারা বলছে, কথায় কথায় মেসি জানিয়েছেন, আগামী কোপা অ্যামেরিকা নিয়ে বেশ ছক কষে এগোচ্ছেন মেসি।

আর্জেন্টাইন তারকা মনে করেন, দেশটির কোচ লিওনেল স্ক্যালোনি এবং তার কোচিং স্টাফ যদি পরিকল্পনা অনুযায়ী এগোতে পারে তাহলে ট্রফি জয় সম্ভব।

২০১৮ সালের বিশ্বকাপের রাউন্ড অব সিক্সটিন থেকে বিদায় নেয় আর্জেন্টিনা। এরপর হোর্হে সাম্পাওলির পরিবর্তে কোচের দায়িত্ব নেন স্ক্যালোনি। তরুণ এই কোচ এসেই বিস্ফোরক কিছু সিদ্ধান্ত নেন। হিগুয়েন কিংবা বানেগার মতো অভিজ্ঞ কিন্তু বয়স্কদের বাদ দিয়ে একঝাঁক তরুণ ফুটবলার নিয়ে আসেন। লো সেলসো, পারেদেস, লওতারো মার্টিনেজ এবং রদ্রিগো দে পলরা প্রত্যাশার পালে হাওয়াও দিচ্ছেন।
মেসি মনে করেন, তরুণ এই দলটাকে নিয়ে অনেকদূর যাওয়া সম্ভব।

কেবল কোপাই নয়, ২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপও জিততে চান মেসি। তবে সেটি এখনো বহুদূরের পথ। এখনো বিশ্বকাপ বাছাইপর্বও শুরু হয়নি ল্যাতিন অ্যামেরিকায়।

মেসির দৃষ্টিসীমায় এখন আগামী মৌসুমটা। বার্সার হয়েই আরেকটা মৌসুম কাটাবেন তিনি। তবে হৃদয়ের কোণে বড় একটা জায়গাজুড়ে আছে আর্জেন্টিনা। দেশটিকে একটি ট্রফি উপহার দেয়া নিজের দায়িত্ব বলেই মনে করছেন বিশ্বসেরা ফুটবলার। অার্জেন্টিনাকে নিয়ে আশাবাদী মেসি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ক্রিকেটারদের দ্বিতীয় দফা করোনা পরীক্ষা বুধবার

  তিন দিন বিরতির পর বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) থেকে ক্রিকেটারদের আরেক দফা করোনা পরীক্ষা করানো …

error: Content is protected !!