রাজশাহীর ১৩টি উপজেলায় পৌর নির্বাচন ডিসেম্বরে 

শাহিনুর রহমান :- চলতি বছরের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রাজশাহী জেলার ১৪টি পৌরসভার মধ্যে ১৩ টি পৌরসভার ভোট গ্রহণ । লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিবালয়কে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছে কমিশন। গত ২৩ আগস্ট অনুষ্ঠিত কমিশন সভায় এই নির্দেশনা দেয়া হয় বলে জানা গেছে।

রাজশাহী জেলার মধ্যে গোদাগাড়ী উপজেলার কাঁকনহাট ও গোদাগাড়ী বাঘা উপজেলার আড়ানী, তানোর উপজেলার মুণ্ডুমালা ও তানোর, মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট, বাগমারা উপজেলার তাহেরপুর ও ভবানীগঞ্জ, চারঘাট, দুর্গাপুর, পুঠিয়া এবং পবা উপজেলার কাটাখালী ও নওহাটা পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তবে শুধুমাত্র বাঘা উপজেলা নির্বাচন পরে হওয়ায় এ দফায় সেখানে নির্বাচন হচ্ছে না বলে জানা যায়। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা দৌড়ঝাঁপ শুরু করে দিয়েছেন মনোনয়ন প্রাপ্তির প্রত্যাশায়।

তথ্য সূত্রে জানা গেছে এ সকল পৌরসভায় সর্বশেষ ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সে হিসেব অনুযায়ী চলতি বছরের শেষের দিকে অর্থ্যাৎ ডিসেম্বরে মাঝামাঝি পর্যায়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

এদিকে জ্যামিতিক পরিধি ও সময়ের অঙ্ক কষেই নেতারা মাঠে নেমেছেন। তাদের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির হিসেব মেলাতে পৌর নির্বাচনে মনোনয়ন নিতে বেশ কয়েক মাস ধরে বড় দুই দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা লবিং ও গ্রুপিং শুরু করেছেন কেন্দ্রের সাথে।

রাজশাহী জেলা ও কেন্দ্রের শীর্ষ নেতাদের মন জয় করতে তারা প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রাখছেন নেতা নেত্রীদের সাথে । এছাড়াও স্থানীয় নেতাকর্মীদের সমর্থন পেতে বাড়িয়েছেন সাংগঠনিক তৎপরতা সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পৃতি ।

সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীরা ইতিমধ্যে তাদের জনহিতকর কার্যাবলী অব্যাহত রাখা ছাড়াও অসহায় ও হতদরিদ্রের পাশে দাঁড়িয়ে নানা রকম সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন । এছাড়াও ব্যানার ফেস্টুন ও পোস্টারের মাধ্যমে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়ে মেয়র প্রার্থী হিসেবে অনেকেই আলোচনায় এসেছেন। ফলে রাজশাহীর পৌরসভাগুলোতে ভোটের হাওয়া যে বইতে শুরু করেছে তা বলার অপেক্ষা রাখেনা ।

এদিকে বর্তমান রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব মেরাজ উদ্দিন মোল্লা ঢাকা নিউজ কে জানান, আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা মাঠে রয়েছেন। দলীয় সমর্থনে ও সভার মাধ্যমে যাদের যোগ্য বলে মনে করা হবে দলীয়ভাবে মনোনয়ন তাদেরকেই দেয়া হবে, আমি মনে করি দলীয়সভার এ সিদ্ধান্ত সকলেই মেনে নিয়ে নেতাকর্মীদের তারা পাশেই থাকবেন।

পৌরসভা নির্বাচন সম্পর্কে রাজশাহী জেলা বিএনপির সদস্য সচিব বিশ্বনাথ সরকার জানান, আগামী পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে কি না তা দলের হাইকমান্ড সিদ্ধান্ত দেবে। তবে নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য বিএনপি নেতারা প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

পবা উপজেলার দুটি পৌরসভা নওহাটা ও কাটাখালি। নওহাটায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী , নওহাটা পৌর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল হাসান, যুবনেতা হাফিজুর রহমান হাফিজ, আবদুল বারী খান এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল কবির রুনুর নাম শোনা যাচ্ছে। বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান মেয়র মকবুল হোসেন, ওয়াদুদ হাসান পিন্টু ও মামুনুর সরকার জেড।
অন্যদিকে কাটাখালি পৌরসভার বর্তমান মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা আব্বাস আলী আবারও মেয়র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে জানা গেছে। বিএনপি প্রার্থীদের তালিকায় রয়েছেন সিরাজুল ইসলাম ও নুরুল ইসলাম।

মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান মেয়র শহিদুজ্জামান শহিদ, বর্তমান কাউন্সিলর রুস্তম আলী প্রামাণিক এবং শাহিনুর আলমের নাম শোনা যাচ্ছে। এছাড়া বিএনপির প্রার্থী হিসেবে কেবল সাবেক মেয়র আলাউদ্দিন আলোর নাম শোনা যাচ্ছে।

বাগমারা উপজেলার ভবানীগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান মেয়র আবদুল মালেক ও মামুন অর রশিদ মামুন। বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন সাবেক মেয়র আবদুর রাজ্জাক প্রামাণিক ও শাহিনুর রহমান শাহিন। বাগমারা উপজেলার অপর পৌরসভা তাহেরপুরে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে কেবল বর্তমান মেয়র আবুল কালাম আজাদের নাম শোনা যাচ্ছে। বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন সাবেক মেয়র আবু নাঈম শামসুর রহমান মিন্টু।

পুঠিয়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে বর্তমান মেয়র রবিউল ইসলাম রবি, খালেদ হোসেন লালন, হাবিবুর রহমান হাবিব এবং ইব্রাহিম সরকারের নাম শোনা যাচ্ছে। বিএনপি প্রার্থীদের মধ্যে মামুন খান, আসাদুল হক আসাদ ও বাবুল হোসেন আলোচনায় রয়েছেন।

চারঘাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের মধ্যে একরামুল হক ও কাজী মাহমুদুল ইসলাম মামুনের নাম শোনা যাচ্ছে। এছাড়া বিএনপির একমাত্র প্রার্থী হিসেবে বর্তমান মেয়র জাকিরুল ইসলাম বিকুল মাঠে রয়েছেন।

বাঘা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন সাবেক মেয়র আক্কাছ আলী, মাসুদ রানা তিলু, শাহিনুর রহমান পিন্টু ও ওয়াহেদ সাদেক কবির। বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান মেয়র আবদুর রাজ্জাক ও কামাল হোসেন। আড়ানি পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বর্তমান মেয়র মুক্তার আলী, শহীদুজ্জামান শহীদ, মতিউর রহমান মতি এবং রিবন আহম্মেদের নাম শোনা যাচ্ছে ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

বাংলাদেশ মুজিব সেনা লীগ টাঙ্গাইল শাখার কমিটি গঠন

টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি :- বাংলাদেশ মুজিব সেনা লীগ টাঙ্গাইল জেলা শাখার কমিটি গঠন করা হয়েছে। …

error: Content is protected !!