৪০০ এর নিচে বেচমু না

৪০০ এর নিচে বেচমু না

৪০০ হাজার (চার লক্ষ) হইলে গরু বেচমু। এর নিচে গরু ছাড়মু না। অনেক কষ্ট কইরা হাতে পাইল্লা গরু বড়ো করছি। কোন প্রকার ঔষুধ দিয়া বড়ো করি নাই। এই দামে কিনলে কেউ ঠকবো না।

সোমবার কেরানীগঞ্জের জিনজিরা গরুর হাটে কুষ্টিয়া থেকে আসা বিক্রেতা  মো: উজ্বল নিজের গরু নিয়ে এ ভাবেই কথা গুলো বলেন। শনিবার রাতে ৩টি গরু নিয়ে তিনি জিনজিরা হাটে এসেছেন।এর মধ্যে বড়ো গরুটির দাম হাকাচ্ছেন পাচ লক্ষ টাকা।

পেশায় তিনি একজন খামারী। কৃষি কাজের পাশাপাশি তিনি গরু লালন পালন ও করেন। এবার ঈদ কে কেন্দ্র করে তিনি ৩টি গরু বড়ো করেছেন। বর্তমানে সেগুলা অনেক স্বাস্থ্যবান হয়েছে।

গরু গুলোর বয়স ৩ বছর করে। সবচেয়ে বড়ো গরুটার ওজন তার ভাষ্য মতে প্রায় ১৬/১৭ মন।

 

মো: উজ্বল বলেন, নিজের ঘরের গরু। অনেক যত্ন করে বড়ো করেছি। এই বার বেচনের লইগা তিন বছর ধইরা গরুগুলারে বড়ো করছি। দুইটার দাম দশ লাখ আর ছোট টার দাম চাইর লাখ চাইতাসি।

তিনি আরো বলেন, বড়ো দুইটা ৮০০ হাজার (আট লাখ) টেকার নিচে বেচলে আমার হইবো না।

গেল বছর রামপুরা হাটে আইসিলাম, আমার অনেক লস হইয়া গিসেলো। আল্লাহ চাইলে এই বার ২ডা পয়শা লাভ করবার চাই।

মো: উজ্বল সহ আরো ২ জন তার সাথে জিনজিরা হাটে এসেছেন। গরু গুলোকে তারা নানা ভাবে যত্ন নিচ্ছেন। হাটের বড়ো গরু হবার কারনে সাধারন মানুষ ভিড় জমাচ্ছে এখানে। কেউ দরদাম করছে কেউ আবার গরু গুলো সম্পর্কে নানা তথ্য জানতে চাইছে।

এ পর্যন্ত কতো দাম উঠেছে জানতে চাইলে বেপারী বলে এ পর্যন্ত তার গরুটি ৩ লক্ষ টাকা দাম উঠেছে। তবে সে ৪ লাখ টাকার নিচে বিক্রি করবেই না।

 

আরো পড়ুন: গুফা ’য় বাবার দেখভাল করার জন্য ২০০ সুন্দরী শিষ্যা !

 

রিপোর্টার – সানমুন আহমেদ।
ক্যামেরা- মো: মাসুদ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

নানা দাবীতে কেরানীগঞ্জ ওয়াশিং ফ্যাক্টরী মালিকদের সংবাদ সম্মেলন

লোকাল গার্মেন্টস শিল্পে জড়িত শ্রমিক ও তাদের পরিবার-পরিজন‌কে বাচা‌তে প্রধানমন্ত্রী ও বিদুৎ,জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!