বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর নাম ফলকের সামনে ময়লা আবর্জনার স্তুপ!!

ময়লা ফেলানোর নির্দিষ্ট কোন স্থান ও পরিকল্পনা না থাকায়, কেরানীগঞ্জের যত্র তত্রই দেখা মিলে ময়লা আবর্জনার স্তুপ। যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনার স্তুপের কারনে এক প্রকার দিশেহারা হয়ে পড়েছেন কেরানীগঞ্জের জনগন । এবার ময়লা আবর্জনা স্তুপ দেখা গেলো বিদ্যুৎ জ¦ালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপুর একটি নাম ফলকের সামনে। ঘটনাটি কেরানীগঞ্জের আগানগর ইউনিয়নের আমবাগিচা খেলার মাঠ সংলগ্ন একটি রাস্তায়।

সরেজমিন মঙ্গলবার (১৮ আগষ্ট) আমবাগিচা খেলার মাঠ এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, মাঠের এক পাশে রাস্তায় প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু ও উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদের নাম সমন্বিত একটি নাম ফলক রয়েছে। নাম ফলকটি ২০১৯ সালে তৈরী করা হয়েছিলো আগানগর ইউনিয়ন পরিষদের তত্বাবধানে আমবাগিচা একটি রাস্তায় সোয়ারেজ লাইন নির্মান ও রাস্তার উন্নয়ন প্রকল্প উদ্ভোধনের সময়। নাম ফলকের সামনেই ময়লা আবর্জনার স্তুপ রয়েছে। অনেক দিন যাবৎ ময়লা রাস্তায় পড়ে থাকায় দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এ রাস্তা দিয়ে কোন মতে নাক চেপে পার হচ্ছে পথচারীরা। আসেপাশের বাড়ির বাসিন্দারাও এই ময়লার দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ।

এ স্থানে ময়লা ফেলা নিয়ে স্থানীয়রা ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য দিচ্ছে। অনেকেই বলছে ময়লা সংগ্রহকারীরা নিয়মিত বাসাবাড়িতে ময়লা সংগ্রহ করতে যায় না, তাই আশেপাশের এলাকাবাসী নিরুপায় হয়েই তাদের বাসাবাড়ির ময়লা এখানে ফেলছে। কেউ কেউ দাবী করছে ময়লা সংগ্রহকারীরাই বাসা বাড়ি থেকে ময়লা সংগ্রহ করে এখানে জমাচ্ছে।

তবে যারাই ময়লা ফেলুক, নাম ফলকের সামনে অথবা এ রাস্তায় যেন কেউ ময়লা না ফেলতে পারে তা দেখভালের দায়িত্ব স্থানীয় মেম্বারের। মেম্বার দেখভাল না করায় এভাবে প্রতিমন্ত্রীর নাম ফলকের সামনে ময়লা জমে আছে বলে দাবী এলাকাবাসীর। বিষয়টা অপমানজনক ও দৃষ্টিকটু দাবী করে তারা দ্রæত এ ময়লার অপসারন দেখতে চান।

মো: করিম নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, আমবাগিচা মাঠসহ মাঠের চারপাশটা ময়লার ভাগাড়ে পরিনিত হয়েছে। এ সমস্যাটা দীর্ঘ দিনের। মাঝে মাঝে চেয়ারম্যান মেম্বাররা আশে ময়লা পরিষ্কারের আশ্বাস দিয়ে যায়, কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয় না।

শরিফুল ইসলাম নামে একজন জানান, এতোদিন মাঠের ভিতর ময়লা ছিলো, মাঠের একপাশে তো ময়লার ভাগার ই রয়েছে। তবে মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের নামফলকের সামনে ময়লার স্তুপ এটা আমাদের সবার জন্যই অপমানজনক। শুধু মন্ত্রী মহোদয়ের নাম ফলকের সামনেই নয় পাশেই আমবাগিচা মহিলা কলেজ।কলেজের দেয়ালের সাথেও ময়লার স্তুপ রয়েছে। ময়লা যে বা যারাই ফেলেছে এগুলো দ্রæত পরিষ্কারের দাবী জানাই। স্থানীয় মেম্বার, চেয়ারম্যান এ ব্যাপারটা একটু গুরুত্ব সহকারে দেখলেই সমস্যাটার দ্রæত সমাধান হবে আশা করি।

এ ব্যাপারে ৭ নং ওয়ার্ড মেম্বার হাজী রাসেলের সাথে কথা হলে  তিনি জানান, পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা ময়লা সংগ্রহ করে যেখানে ফালায় সে যায়গাটা পানিতে ডুবে গেছে তাই বাসাবাড়ি থেকে ময়লা সংগ্রহ আপাতত বন্ধ আছে। আর মন্ত্রী সাহেবের নাম ফলকের সামনে ময়লার স্তুুপ আছে কেউ এমন অভিযোগ করে নি। বিষয়টা আমি অবগত না মাত্রই জানলাম।

আগানগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর শাহ খুশি বলেন, ময়লাগুলো আপাতত বর্ষার জন্য এখানে কয়েক দিনের জন্য রাখা হয়েছে। এগুলো সব পরিষ্কার করে ফেলা হবে।#

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জের শুভাঢ্যা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় চুনকুটিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শুভাঢ্যা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত …

error: Content is protected !!