নবাব সিরাজ উদ দৌলা পার্ক ধ্বংসের দৌড় গোড়ায়

নবাব সিরাজ উদ দৌলা পার্ক ধ্বংসের দৌড় গোড়ায়

পুরান ঢাকার নয়াবাজারের জিন্দাবাহার সংলগ্ন অবস্থিত নবাব সিরাজ উদ দৌলা পার্ক। অযত্নে অবহেলায় ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে পার্কটি।

পার্কের চারপাশে ঘিরে রয়েছে অবৈধ বাসস্টান্ড ও ফলের দোকান।এতে করে চরম দূর্ভোগে পরতে হচ্ছে এখানকার পথচারী ও পার্কে অাসা দর্শনার্থীদের ।দিনের পর দিন দূর্ভোগ বেড়েই চলছে বলে জানান এখানকার স্থানীয় বাসিন্দারা।

সরোজমিনে গিয়ে দেখা গেল ঐতিহ্যবাহী পার্কটি অযত্নে ও অবেহেলায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এখানকার পরিবেশ।এছাড়া পার্কের প্রধান গেটের সামনে রয়েছে গাংচিল  পরিবহন নামক বাস স্টান্ড ও পার্কের চারপাশ ঘিরে রয়েছে অবৈধ ভাবে গড়ে তোলা হরেক রকমের দোকান।

কেও কেও নবাব সিরাজ উদ দৌলা পার্কের অপর পাশে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালামাল পার্কের দেয়াল ঘিরে সাজিয়ে রেখেছে। পার্কটির সম্পর্কে জানতে চাইলে, পার্কে ব্যায়াম করতে অাসা সালমান নামে একজন জানায়, অামার বাসা নয়াবাজারে।অামি প্রতিনিয়ত পার্কে অাসি।বর্তমান পার্কের অবস্থা খুব খারাপ।এগুলো দেখার মতো কেউ নেই।বেশির ভাগ সময় দেখা যায় মাদক সেবন কারিরা এখনে এসে মাদক সেবন করে।

পার্কে অাসা হাসান নামে এক যুবক জানায় পার্কে ব্যায়ামের তেমন কোন সরঞ্জাম নেই।অার যা অাছে তা দিয়ে কোন কাজ হয় না। এখানে কোন রকম সুযোগ সুবিদা নেই।পানি খাবারের ব্যবস্থা ও নেই।পার্কের বেহাল অবস্থার জন্য অাগের মতো কাউকে দেখা যায় না।এছারা এখানে সোচাগার এর ও কোন বেবস্থা নাই।

নবাব সিরাজ উদ দৌলা পার্কের স্থানীয় এক যুবক ইমরান আহমেদের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পার্কের বাহিরে অবৈধ দোকান পাট ও গেটের সামনে বাস স্টান্ট এর পাশা-পাশি ফলের দোকান থাকায় এখানে যাতায়াত করা কষ্টকর হয়ে যায় এখানকার বাসিন্দাদের। ভিতরে চলছে প্রকাশ্যেই ধুমপান ও ময়লা আবর্জনা জর্জারিত নোংরা পরিবেশ । তার জন্য এখন আর কেউ আসতে  চায় না।

মোসা:শাহেদা বেগম নামে অপর একজন জানায় অামার ডায়বেটিক্স হওয়ায় অামাকে বাধ্য হয়ে অাসতে হয় পার্কে। দিনের পর দিন নোংরা অবস্থায় দুর্গন্ধ দিয়ে বিলীন হয়ে যাচ্ছে পার্কের পরিবেশ। কিন্তু এখানের যে পরিবেশ হয়ে আছে মনে হয় কিছু দিন পরে পার্কের ভিতরে ও দোকানপাট হয়ে যাবে। আগে দুই একটা দোকান থাকলে ও এখন তার সংখা বেড়ে গেছে। অার তার সাথে যুক্ত হচ্ছে অবৈধ ফুটপাত ও বাস স্টান্ড।

এছারা পার্ক সম্পর্কে সুশিল সমাজের অাছে ভিন্নমত।তারা জানান ঐতিহ্যবাহী পার্কটিকে রক্ষা করা সরকারের দায়িত্ব।একজন নাগরিকের অধিকার অাছে তার রাষ্ট্রের সকল রকম সুযোগ সুবিধা নেওয়া সরকারের কাছ থেকে।তাই অামারা মনে করি সরকার খুব দ্রুত এই পার্কটি দখলদার থেকে রক্ষা করা সুন্দর ও অাধুনিক পরিবেশ গড়ে তুলবে।

 

—– মো: নাদিম।

নিউজ ঢাকা ২৪ ডটকম।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

সংগীত জগত কাঁপানো চার তারোকা একসাথে

মোঃএনামুল হক বাবু (বিনোদন প্রতিবেদন) : জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী আল মামুন এবার কন্ঠ দিলেন জনপ্রিয় গীতিকার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!